চ্যাম্পিয়নস লিগের সেরার লড়াইয়ে নেই মেসি-রোনালদো

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৩২, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৩৪, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

গত ১০ বছরের কথাই ধরা যাক। লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর শ্রেষ্ঠত্বে কেবল একবারই হানা দিতে পেরেছেন লুকা মদরিচ। বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতা দুই তারকা সেরা ফরোয়ার্ডের তালিকায় নেই, এমনটা চিন্তাও করা যায় না। তবে এবার অকল্পনীয় দৃশ্যটাই ধরা পড়লো চ্যাম্পিয়নস লিগের সেরা ফরোয়ার্ডের লড়াইয়ে। জায়গা হয়নি সময়ের দুই সেরা খেলোয়াড়ের।

সেরা গোলকিপার, সেরা ডিফেন্ডার, সেরা মিডফিল্ডার ও সেরা ফরোয়ার্ড- এই চার ক্যাটাগরিতে তিনজন করে খেলায়াড় রেখে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের অ্যাওয়ার্ডের জন্য। যেখানে সেরা ফরোয়ার্ডের লড়াইয়ে জায়গা হয়নি মেসি ও রোনালদোর। মেসি ও বার্সেলোনা কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে। দল শেষ আটে আটকে যাওয়ায় সেরার লড়াইয়ে নেই আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

রোনালদোর ‍চ্যাম্পিয়নস লিগ যাত্রা তো শেষ হয়েছে আরও আগে। শেষ ষোলো থেকে তার দল জুভেন্টাসকে বিদায় করে দেয় অলিম্পিক লিওঁ। দলের ব্যর্থতায় বেশিদূর যেতে না পারায় প্রতিযোগিতাটির সর্বোচ্চ গোলদাতাও সেরা ‍ফরোয়ার্ডের লড়াইয়ে নেই।

এই পজিশনের জন্য এবার লড়াইয়ে আছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী বায়ার্ন মিউনিখের রবার্ত লেভাদোভস্কি এবং রানার্স-আপ প্যারিস সেন্ত জার্মেইয়ের নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পে।

চ্যাম্পিয়নস লিগ অ্যাওয়ার্ডে সবচেয়ে বেশি খেলোয়াড় চ্যাম্পিয়ন বায়ার্নের। গোলকিপারের পুরস্কারের দৌড়ে এগিয়ে দলটির অধিনায়ক মানুয়েল নয়ার। তার প্রতিদ্বন্দ্বী আতলেতিকো মাদ্রিদের ইয়ান ওবলাক ও পিএসজির কেইলর নাভাস। ডিফেন্ডারের লড়াইয়ে তিনজনই বায়ার্নের- ইয়োশুয়া কিমিচ, ডেভিড আলাবা ও আলফোন্সো ডেভিস। মিডফিল্ডারের লড়াইয়ে বায়ার্নের দুজন থিয়াগো আলকান্তারা ও টমাস মুলারের সঙ্গে রয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটির কেভিড ডি ব্রুইন।

মনোনয়ন পেয়েছেন যারা:

সেরা গোলকিপার:

মানুয়েল নয়ার (বায়ার্ন মিউনিখ)

ইয়ান ওবলাক (আতলেতিকো মাদ্রিদ)

কেইলর নাভাস (প্যারিস সেন্ত জার্মেই)

সেরা ডিফেন্ডার:

ইয়োশুয়া কিমিচ (বায়ার্ন মিউনিখ)

ডেভিড আলাবা (বায়ার্ন মিউনিখ)

আলফোন্সো ডেভিস (বায়ার্ন মিউনিখ)

সেরা মিডফিল্ডার:

থিয়াগো আলকান্তারা (বায়ার্ন মিউনিখ)

টমাস মুলার (বায়ার্ন মিউনিখ)

কেভিন ডি ব্রুইন (ম্যানচেস্টার সিটি)

সেরা ফরোয়ার্ড:

রবার্ত লেভানদোভস্কি (বায়ার্ন মিউনিখ)

কিলিয়ান ‍এমবাপ্পে (প্যারিস সেন্ত জার্মেই)

নেইমার (প্যারিস সেন্ত জার্মেই)

/কেআর/

লাইভ

টপ
X