বেলের বিদায়ে স্বস্তি রিয়ালের ড্রেসিংরুমে

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ০১:২৪, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৫, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

বেলকে (ডানে) এরকম দেখবে এবার টটেনহাম         -ছবি: ফেসবুকক্লাব চেয়ারম্যান ড্যানিয়েল লেভির ব্যক্তিগত বিমানে চেপে দুপুরের দিকে মাদ্রিদ থেকে গ্যারেথ বেল পৌঁছে গেছেন উত্তর লন্ডনে। যে ক্লাব থেকে রিয়াল মাদ্রিদে গিয়েছিলেন, সেই টটেনহাম হটস্পারেই আবার ফিরে এলেন সাত বছর পর। তবে স্থায়ীভাবে নয়, একবছরের ধারের চুক্তিতে। তার সঙ্গী হয়ে এসেছেন রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ ২৩ বছর বয়সী লেফট-ব্যাক সের্জিও রেগিলন। বিকেলে টটেনহামের অনুশীলন মাঠ এনফিল্ডে এসে বেল তো পেলেন বীরোচিত সংবর্ধনা। স্পার সমর্থকেরা তাকে ভোলেনি। ওদিকে রিয়াল মাদ্রিদের ড্রেসিংরুমে নাকি স্বস্তি ফিরে এসেছে বলে জেনেছে স্পেনের ক্রীড়া দৈনিক এএস।

এএসের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে আবার ইংল্যান্ডে ফেরার আগে রিয়াল সতীর্থ সবার কাছ থেকে বিদায়ও নেননি বেল। রিয়াল দলে একটু অবাঞ্ছিতই হয়ে পড়েছিলেন ওয়েলশ উইঙ্গার। কোচ জিনেদিন জিদানের সুদৃষ্টি হারিয়ে খেলার সুযোগ পাচ্ছিলেন না। আবার কয়েকজন সহখেলোয়াড়ের সঙ্গে তার যোগাযোগটাও ক্ষীণ হয়ে পড়েছিল। বিশেষ করে এরাই মনে করছে, কিছুদিনের জন্য একটা ‘আপদ’ বিদায় হয়েছে।

এটা যে সত্যি তা প্রমাণ করে বিখ্যাত ওই ছবিটাই। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে গত জুনে লা লিগার অবশিষ্ট অংশের খেলা আবার শুরু হওয়ার পর এক ম্যাচে রিজার্ভ বেঞ্চে বসে থাকা বেল সেই যে দুই হাতে মুঠো পাকিয়ে দূরবীনে খেলা দেখার ভঙ্গি করছেন। ছবিটা ছিল দল থেকে বিচ্ছিন্ন একজন খেলোয়াড়ের প্রতিকৃতি, যার কিনা দলের ভালো-মন্দে কিছু এসে যায় না।

সেই সময়ের বিশ্বরেকর্ড ১০০ মিলিয়ন ইউরোর ট্রান্সফার রেকর্ড গড়ে বেল ২০১৩ সালে টটেনহাম থেকে রিয়াল মাদ্রিদে যান বেল। রিয়ালের সাত বছরে অনেক ট্রফি জিতেছেন। জিতেছেন চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগ, দুটি লা লিগা শিরোপা, কোপা দেল রে ও তিনটি ক্লাব বিশ্বকাপ ট্রফি। ওই সময় ২৫১ ম্যাচ খেলে গোল করেন ১০৫টি। কিন্তু গত মৌসুমে মাত্র ১৬টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পান। সেজন্যই নিয়মিত খেলার সুযোগ পেতে বেপরোয়া হয়ে পড়েছিলেন।

তারও একটা হিল্লে চাইছিল রিয়াল মাদ্রিদ। করোনাকালীন আর্থিক মন্দায় সেরকম কোন ক্লাব ৩১ বছর বয়সী ফরোয়ার্ডকে কিনতে এগিয়ে আসেনি। শেষ পর্যন্ত পুরোনা ক্লাব তাকে নিল ধারে। তবে বেতনটাও বিশাল, ডেইলি মেইলের দাবি, ধারের এক বছরে ১৩ মিলিয়নেরও বেশি বেতন পাবেন। যার অনেকটা জোগাবে রিয়াল মাদ্রিদ।

চারবছরের টটেনহাম-অধ্যায়ে বেলের শুরুটা ছিল মন্থর, যদিও বেশ সাড়াই ফেলেছিলেন। তবে শেষ বছরে দুর্দান্ত ছিলেন বেল, ২০১২-১৩ মৌসুমে করেছিলেন ২১ গোল। তাকে ফিরিয়ে এনে এবার বাজি ধরেছেন কোচ জোসে মরিনিয়ো। ক্লাব সমর্থকেরা আশায়, সন হিউং-মিন ও হ্যারি কেনের সঙ্গে দুর্ধর্ষ আক্রমণভাগ গড়ে তুলতে চলেছেন বেল।

/পিকে/

লাইভ

টপ
X