পিরলোই বললেন, সুয়ারেজের যাওয়া হচ্ছে না জুভেন্টাসে

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:৩৩, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৪০, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

জুভেন্টাস কোচ আন্দ্রেয়া পিরলো                  -ছবি: টুইটারআন্দ্রেয়া পিরলোর নিজের কথাই হতে পারতো এই সংবাদ সম্মেলনের মূল আকর্ষণ। ইতালির সর্বকালের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার ও ২০০৬ বিশ্বকাপ জয়ের নায়কের অভিষেক হতে যাচ্ছে কোচের ভূমিকায়, তারই কত কিছু বলার ছিল। কিন্তু জুভেন্টাসের কোচ হিসেবে প্রথম ম্যাচে নামার আগের সংবাদ সম্মেলনে পিরলো প্রথমে কথা বলতে বাধ্য হলেন লুইস সুয়ারেজকে নিয়ে। বলে দিলেন, ইতালিয়ান পাসপোর্ট প্রাপ্তির জটিলতায় সুয়ারেজের  জুভেন্টাসে যাওয়াটা খুবই অনিশ্চিত।

বার্সেলোনার নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যান দায়িত্ব নিয়েই জানিয়ে দিয়েছেন সুয়ারেজকে তিনি চান না। নতুন ঠিকানা খুঁজতে হবে ৩৩ বছর বয়সী উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারকে। গঞ্জালো হিগুয়েইনকে ছেড়ে দেয সুয়ারেজকে জুভেন্টাসে নেওয়ার উদ্যোগ নেন পিরলো। কিন্তু সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় সুয়ারেজের নাগরিকত্ব। স্পেনে স্ত্রীর ইতালিয়ান পাসপোর্টের জোরে ইউরোপীয় হিসেবে খেলতে পারলেও ইতালিতে সেটা অসম্ভব। জুভেন্টাসের অইউরোপীয় খেলোয়াড়ের কোটাও পূর্ণ। একটাই উপায়, স্ত্রীর সুবাদে ইতালিয়ান ভাষার পরীক্ষা দিয়ে পাসপোর্ট জোগাড় করা। সেই পরীক্ষা দিতেই বৃহস্পতিবার ইতালি যান সুয়ারেজ। কিন্তু আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় ৫ অক্টোবর দলবদল শেষ হওয়ার আগে কোনক্রমেই পাসপোর্ট পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। সুতরাং জুভেন্টাসে যাওয়া হলো না, কোম্যানের অনুগ্রহ নিয়েই চুক্তির শেষ মৌসুমটা বার্সেলোনায় কাটাতে হবে সুয়ারেজকে। লিওনেল মেসিও বন্ধুর জন্য বিশেষ কিছু করতে পারবেন বলে মনে হয় না।

‘সুয়ারেজ? সময় বিবেচনা করলে জুভেন্টাসের সেন্টার ফরোয়ার্ড হওয়াটা তার জন্য জটিল ও কঠিন ব্যাপার’-সুয়ারেজকে নিয়ে প্রশ্নে পিরলোকে এভাবে উ্দধৃত করেছে সংবাদ সংস্থা এএফপি। রোমার বসনিয়ান স্ট্রাইকার এডিন জেকোর দিকে নজর আছে জুভেন্টাসের। তবে তাকে নিতে পিরলো খুব ব্যতিব্যস্ত নন, ‘আমরা নাম্বার নাইনের অপেক্ষায় আছি, কিন্তু বাজারের এ অবস্থায় সময় লাগতে পারে। আমাদের কোনও তাড়াহুড়ো নেই।’

রবিবার সিরি ‘আ’তে নিজেদের প্রথম ম্যাচ ক্লদিও রানিয়েরির সাম্পদোরিয়ার সঙ্গে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও দেয়ান কুলুসেভস্কির কাছ থেকে গোলের আশায় দলকে ৪-৪-২ ছকে খেলাবেন পিরলো। জুভেন্টাসে চার বছরের খেলোয়াড়ি জীবনে যেমন ছিলেন, কোচ হিসেবেও তেমন অনুপ্রাণিত হয়ে মাঠে নামতে চান তিনি, ‘আমি কোচ হিসেবেও একইরকম থাকবো, যেমনটা ছিলাম খেলোয়াড় হিসেবে।’ কোচের ভূমিকায় প্রথম বছরে কেমন করেন সে নিয়ে অনেকেরই সংশয় আছে, কিন্তু ৪১ বছর বয়সী ইতালিয়ানের মনে ‘সন্দেহের জায়গা নেই, আছে নিশ্চিন্তি’। টানা দশম লিগ শিরোপা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি, ‘আমি জুভেন্টাসে আছি, যে দলটি চ্যাম্পিয়নদের।’ 

/পিকে/

লাইভ

টপ