হায়দরাবাদের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখলেন পান্ডে ও শঙ্কর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:৫৬, অক্টোবর ২৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৫, অক্টোবর ২৩, ২০২০

শতরানের জুটি গড়ার পথে শঙ্কর ও পান্ডের শুভেচ্ছা বিনিময়                       -আইপিএল টুইটারচোটের কারণে ম্যাচে ছিলেন না কেন উইলিয়ামসন। কিউই অধিনায়কের জায়গায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদে অভিষেক হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের। আর এটা যেন হলো শাপেবর। রবিন উথাপ্পাকে রানআউট করেছেন হোল্ডার। সঙ্গে ৪ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে রাজস্থান রয়্যালসকে ১৫৪ রানে আটকাতে রেখেছেন বড় ভূমিকা। পরে ১৪০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে হায়দরাবাদকে ৮ উইকেটে জিতিয়েছেন মনীশ পান্ডে ও বিজয় শঙ্কর। ৪৭ বলে ৪ চার ও ৮ ছক্কায় অপরাজিত ৮৩ রান করে ম্যান অব দ্য ম্যাচ পান্ডে।

টস জিতে রাজস্থানকে ব্যাটিংয়ে পাঠান হায়দরাবাদের অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। কিন্তু বড় বড় ব্যাটসম্যানদের নিয়েও রাজস্থান বড় স্কোর গড়তে পারেনি, করেছে ৬ উইকেটে ১৫৪ রান যা এই আইপিএলে দুবাইয়ের মাঠে সর্বনিম্ন। হোল্ডারের হাতে ওপেনার উথাপ্পা রান আউট হওয়ার পর রাজস্থানের সর্বোচ্চ ৫৬ রানের জুটিটি গড়ে ওঠে তৃতীয় উইকেটে সঞ্জু স্যামসন ও বেন স্টোকসের। তিন চার ও ১ ছক্কায় ২৬ বলে সর্বোচ্চ ৩৬ করে স্যামসন বোল্ড হন হোল্ডারের বলে।  ৩২ বলে ৩০ করে স্টোকস বোল্ড রশিদ খানের লেগস্পিনে। পরে দলের অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের ১৫, রিয়ান পরাগের ২০ ও জফরা আর্চারের ১৬ রান রাজস্থানকে নিয়ে যায় ১৫৪ রানে।

ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টোকে ২.৪ ওভারের মধ্যে ফিরিয়ে দিয়ে আর্চার এই রানকেই অনেক বড় মনে করাচ্ছিলেন। চার রান করে ওয়ার্নার স্লিপে অসাধারণ ক্যাচ হন স্টোকসের হাতে, এক চার ও এক ছক্কায় ১০ রান করে বোল্ড স্টোকস। ১৬ রানের মধ্যে দুই মহীরুহ নেই। পারফরম্যান্সের বিচারে ভরসা করার মতো তেমন কেউ ছিলেন না ব্যাটিং লাইনআপে। অবশেষে দায়িত্ব কাঁধে তুলে মনীশ পান্ডে পাল্টা আক্রমণ হানতে শুরু করেন, অন্য প্রান্তে ধরে খেলেন শঙ্কর। কাজ হয় তাতেই। ২৮ বলে ফিফটি করা পান্ডে অপরাজিত থাকেন ৮৩ করে, ৫২ বলে পঞ্চাশ করা শঙ্কর ৬টি চারের সাহায্যে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ৫২ রানে। রাজস্থানের কোনও বোলারই এই জুটি ভাঙতে পারেনি, হায়দরাবাদ ম্যাচ জিতে নেয় ১১ বল বাকি থাকতেই।

১০ ম্যাচে চতুর্থ জয় হায়দরাবাদকে তুলে নিলো পয়েন্ট তালিকার পাঁচে। কলকাতার কেবলই নিচে থেকে প্লে-অফে যাওয়ার একটা স্বপ্ন তারা দেখছে। ওদিকে সবার নিচে থাকা রাজস্থানের আশা শেষই বলা যায়। তাদের হাতেও ৮ পয়েন্ট, তবে বেশি খেলেছে তারা একটি ম্যাচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

রাজস্থান: ২০ ওভারে ১৫৪/৬ (স্যামসন ৩৬, স্টোকস ৩০, পরাগ ২০, হোল্ডার ৩/৩৩, শঙ্কর ১/১৫) ও হায়দরাবাদ:১৮.১ ওভারে ১৫৬/২ (পান্ডে ৮৩*, শঙ্কর ৫২*, বেয়ারস্টো ১০, আর্চার ২/২১)।

/পিকে/

লাইভ

টপ