বার্সেলোনাতেই মেসির সঙ্গে মিলবেন গার্দিওলা?

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:২৮, অক্টোবর ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৩৩, অক্টোবর ২৯, ২০২০

মেসির পাশে এভাবে দেখা যাবে গার্দিওলাকে?        ছবি: টুইটার২০১৫ সালে বার্সেলোনা যখন চ্যাম্পিয়নস লিগসহ ট্রেবল জিতলো, জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে গেলেন সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। লিওনেল মেসির বিরাগভাজন হয়ে, সংখ্যাগরিষ্ঠ বার্সা সমর্থকের নিন্দা কুড়িয়ে গত মঙ্গলবার সেই বার্তোমেউ বাধ্য হলেন বোর্ডসহ পদত্যাগ করতে। না হলে তার জন্য অপেক্ষা করছিল অনাস্থা ভোটে পরাজয়। বিরোধীদের সেই সুযোগ তিনি দেননি। তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ভিক্তর ফন্ত, আগামী নির্বাচনের অন্যতম সভাপতি প্রার্থী। অনেকেরই ধারণা, তিনি নির্বাচনী দৌড়ে এগিয়ে আছেন। ফন্তের নির্বাচনী ইশতেহারের প্রধান অংশ জুড়ে আছে কোচ পেপ গার্দিওলাকে বার্সায় ফিরিয়ে আনা।

ফন্তের পরিকল্পনা, গার্দিওলার সঙ্গে জাভি, আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও কার্লেস পুয়োলদের মতো ক্লাব কিংবদন্তিদের কাজে লাগানো। বার্সেলোনাকে আবার একটি দুর্দান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক প্রকল্পের মধ্যে নিয়ে আসতে চান এই ধনাঢ্য স্প্যানিশ ব্যবসায়ী। দুইয়ে দুইয়ে চার মেলানো যায়, গার্দিওলা কিন্তু ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে তার চুক্তি নবায়ন করেননি, আপাতত সেটি আগামী জুন পর্যন্ত কার্যকর।

গত আগস্টে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে চ্যাম্পিয়নসস লিগে ৮-২ বিপর্যয়ের পর মেসি বার্তোমেউয়ের নেতৃত্বাধীন বোর্ডের কাছে বার্সা ছাড়ার অনুমতি চেয়ে গোটা ফুটবল বিশ্বেই একটা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দিয়েছিলেন। মেসি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন বার্সেলোনা নতুন দূরদৃষ্টি সম্পন্ন প্রকল্প নিয়ে এগোতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা (বোর্ড) এটা-সেটা করে সময় নষ্ট করছে, কিন্তু সত্যিকারের কোনও প্রকল্প হাতে নিচ্ছে না। প্রতিশ্রুতি অনুয়ায়ী তাকে যেতে না দেওয়ায় বার্তেমেউকে দায়িও করেন মেসি।  চাইলে আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে বার্সেলোনা ছেড়ে যেতেও পারতেন, কিন্তু ২০ বছর ধরে যে  ক্লাবটির সঙ্গে তার অস্তিত্ব জড়িয়ে গেছে, সেটির ভালোবাসা হারাতে চাননি বলে থেকে গেছেন।

মেসির চাওয়া অনুযায়ী বার্সেলোনাকে নতুন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক প্রকল্পের মাধ্যমে এগিয়ে নিতেই গার্দিওলা-জাভি-ইনিয়েস্তা-পুয়োলদের সম্মিলন ঘটানোর ইচ্ছা ফন্তের। স্কাই স্পোর্টসকে তিনি বলেছেন, ‘ গার্দিওলা, হার্নান্দেজ, ইনিয়েস্তা, পুয়োলরা বার্সেলোনার হয়ে কাজ করছে না। এর কোনও মানে হয় না। তাদের ফিরিয়ে এনে যোগ্য দায়িত্ব দিতে চাই আমরা, কারণ মাঠের বাইরের দায়িত্ব সবাইকে দিয়ে হয় না। এর মাধ্যমে আমরা নিশ্চিত যে খুবই প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক একটি প্রকল্প  দাঁড় করাতে পারবো যেটি মেসি চায়।’

আনুষ্ঠানিকভাবে ফন্তই প্রথম সভাপতি পদে প্রার্থিতা ঘোষণা করেছেন এবং এটাও বলে দিয়েছেন জাভিকে তিনি কোচ করে আনবেন এবং পুয়োলকে বানাবেন ফুটবল পরিচালক।

তবে ফন্তকে মূল লড়াইটা সম্ভবত লড়তে হবে সাবেক সভাপতি হুয়ান লাপের্তার সঙ্গে। তার সময়েই গার্দিওলার অধীন সবচেয়ে সুফলা সময় দেখেছে বার্সেলোনা, তার সঙ্গে মেসির সম্পর্কও খুব উষ্ণ।

/পিকে/

লাইভ

টপ