দ্রুত নির্মিতব্য ভেন্টিলেটরের বিকল্প আনছে মার্সিডিজ এফওয়ান

Send
ইশতিয়াক হাসান
প্রকাশিত : ২০:৩০, এপ্রিল ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৬, এপ্রিল ০১, ২০২০

ছবি: বিবিসিমহামারী করোনাভাইরাসে প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। এই ভাইরাসের চিকিৎসায় অন্যতম প্রয়োজনীয় একটি যন্ত্র হলো ভেন্টিলেটর। কিন্তু প্রতিদিন যে হারে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে সেই অনুপাতে এতো দ্রুত যোগান দেওয়া কোনও ভাবেই সম্ভব হয়ে উঠছে না কোনও প্রতিষ্ঠানের।

এরই একটি বিকল্প সমাধান নিয়ে কাজ করছে মার্সিডিজের ফর্মুলা ওয়ান এবং ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন হসপিটাল বা ইউসিএলএইচ এর প্রকৌশলীরা। ভেন্টিলেটরের বিকল্প হিসেবে তারা শ্বাস-প্রশ্বাসের একটি যন্ত্র তৈরি করেছে যেটা ধারাবাহিক অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারবে। যন্ত্রটির নাম কনটিনিয়াস পজিটিভ এয়ারওয়ে প্রেসার বা সিপিএপি।

বিবিসি জানায় যন্ত্রটি আপাতত পরীক্ষাধীন পর্যায়ে ইতালি এবং চীনের কয়েকটি হাসপাতলে রয়েছে। এটি সফল হলে মার্সিডিজ-এএমজি-এইচপিপি প্রতিদিন অন্তত এক হাজার ডিভাইস তৈরি করতে পারবে। এবং আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই তা নির্মাণ শুরু করা সম্ভব হবে।

মেডিসিন অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রডাক্টস রেগুলাটরি এজেন্সি অর্থাৎ এমএইচআরএ ইতোমধ্যেই যন্ত্রটি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে।

ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের ইনস্টিটিউট অফ হেলথ কেয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং-এর পরিচালক প্রফেসর রেবেকা শিপলে বলেন, 'সাধারণত কোনও মেডিক্যাল ডিভাইস তৈরি করতে এক বছর বা তারও বেশি সময় লেগে যায় কিন্তু শ্বাস-প্রশ্বাসের এই যন্ত্রটি একদিনেই তৈরি করা সম্ভব কেনও না এখানে আমরা খুব সাধারণ প্রযুক্তি ব্যবহার করছি যাকে রিভার্স ইঞ্জিনিয়ারিং বলা যেতে পারে।

এদিকে ইউকে ইন্ডাস্ট্রিয়াল কনসোর্টিয়ামে, এয়ারবাস, বিএই সিস্টেমস্, ফোর্ড, রোলস রয়েস এবং সিমেন্স একত্রিত হয়ে ভেন্টিলেটর তৈরি ঘোষণা দিলেও এমএইচআরএ থেকে তারা এখনও অনুমোদন পায়নি।

/এইচএএইচ/আপ-এনএস/

লাইভ

টপ