‘টেকসই হাই-টেক ম্যানুফ্যাকচারিং ইকোসিস্টেম নির্মাণের এখনই সময়’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৪৬, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫২, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২০

 

 

দেশের হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিতে বিপ্লবের প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ। এলক্ষ্যে কোভিড-১৯ পরবর্তী পরিস্থিতিতে হাই-টেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ‘বিয়ন্ড-২০২০’ শীর্ষক ওয়েবিনারের দ্বিতীয় দিনে এসব বিষয় তুলে ধরেন বক্তারা। দক্ষতা উন্নয়ন, স্টার্ট-আপ ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয় ‘বিয়ন্ড-২০২০’।

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের হাই-টেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগের উপযোগিতা জানাতে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে এই ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দ্বিতীয় দিনে বিনিয়োগকারীদের জন্য হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের প্রণোদনা সুবিধা, ওয়ানস্টপ সার্ভিসসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে আলোচনা হয়। বৈদেশিক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে এখন সবচেয়ে অনুকূল পরিবেশ বিরাজ করছে।  প্রণোদনা প্যাকেজ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, সহায়ক অবকাঠামো, অনুকূল রফতানি শর্ত, নেতৃস্থানীয় ভোক্তা দেশগুলোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ইত্যাদি সূচকে বাংলাদেশ ভারতসহ বিশ্বের মধ্যে ৯টি উদীয়মান গন্তব্যের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বলে আলোচনায় উঠে আসে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম অংশ নিয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশে টেকসই হাই-টেক ম্যানুফ্যাকচারিং ইকোসিস্টেম নির্মাণের এখনই উপযুক্ত সময়, যেখানে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। কোভিড-১৯ পরবর্তী বৈশ্বিক যে মন্দার ঝুঁকি রয়েছে, তা কাটিয়ে উঠতে উদীয়মান অর্থনীতিগুলোর প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে শ্রমনির্ভর অর্থনীতি যথেষ্ট নয়। চলমান পরিস্থিতিতে যেসব দেশ জ্ঞানভিত্তিক ও প্রযুক্তিনির্ভর শিল্পের বিকাশে মনোনিবেশ করছে, তারাই এফডিআই (সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ) আকৃষ্ট করতে সমর্থ হবে। ’

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি বলেন, ‘দেশে এই মুহূর্তে ৫টি হাই-টেক পার্ক বিনিয়োগের জন্য প্রস্তুত। সম্প্রতি ওরিক্স বায়োটেক লিমিটেড নামের একটি চীনা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটি,  কালিয়াকৈরে ৩০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের লক্ষ্যে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এছাড়া সামস্যাং, নকিয়া, ওয়ালটনসহ আরও কিছু কোম্পানি এই পার্কে কাজ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

আজকের ওয়েবিনারে আলোচনা করেন সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক ভল্ট ইনভেস্টমেন্ট’র চেয়ারম্যান সুলতান লুতাহ, বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শৈবাল চক্রবর্তী প্রমুখ।

এই ওয়েবিনার শেষ হবে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর)। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সহায়তায় এই ওয়েবিনার আয়োজন করছে ইন্সপায়রিং বাংলাদেশ নামের একটি দেশীয় উদ্যোগ।

 

 

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ