মসজিদ-মন্দিরের উন্নয়ন প্রকল্পসহ একনেকে ১০ প্রকল্প অনুমোদন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:৩১, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩১, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

মসজিদ-মন্দিরের উন্নয়নে ‘সার্বজনীন সামাজিক অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পসহ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ৫ হাজার ১৮০ কোটি ৭৩ লাখ টাকার ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে জিওবি ৪ হাজার ৪৬২ কোটি ২৫ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব তহবিল ১৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্য ৬৯৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা।

একনেক সভাবুধবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি মিলনায়তনে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের ৫ম একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় ‘সার্বজনীন সামাজিক অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পটির অনুমোদন দেওয়া হয়। স্থানীয় পর্যায়ে সমাজের কল্যাণ ও সংহতি সুসংহত করতে সামাজিক, ধর্মীয় এবং খেলাধুলা বিষয়ক অবকাঠামো উন্নয়ন; এবং স্বল্প, দীর্ঘমেয়াদী কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করাই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য

বৈঠক শেষে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, আজ একনেকে ‘চট্টগ্রাম জেলার সন্দীপ উপজেলার পোল্ডার নং ৭২ এর ভাঙনপ্রবণ এলাকায় স্লোপ প্রতিরক্ষা কাজের মাধ্যমে পুনর্বাসন’ প্রকল্পটিও অনুমোদন করা হয়েছে। এটি প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত প্রকল্প। এর মাধ্যমে প্রকল্প এলাকা ও এর আশেপাশের প্রায় ১৮ হাজার হেক্টর এলাকায় লবণাক্ত পানি অনুপ্রবেশ রোধসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ক্ষয়ক্ষতি হ্রাস ও সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করা হবে।

একনেক সভায় অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো- নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিবাস নির্মাণ প্রকল্প। প্রস্তাবিত প্রকল্পটিতে ৪টি ভবনে মোট ৫৪৯টি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। প্রতিটি ভবনের নিচ তলা শিশুদের শিক্ষা প্রদানের জন্য স্কুল হিসাবে ব্যবহার করা হবে। এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৯৯ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। এটি স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এলাকা (এনসিসি) কর্তৃক বাস্তবায়িত হবে।

এছাড়াও একনেক সভায় অনুমোদন পেয়েছে- গোপালগঞ্জে বহুতল বিশিষ্ট সমন্বিত সরকারি অফিস ভবন নির্মাণ প্রকল্প, বাংলাদেশের ২৩টি পৌরসভায় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন প্রকল্প, সিলেট বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প, বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন (৩য় পর্যায়) প্রকল্প।

পাশাপাশি আরিচা (বরঙ্গাইল)-ঘিওর-দৌলতপুর-টাঙ্গাইল সড়কের ষষ্ঠ কিলোমিটারে ১০৩.৪৩ মিটার দীর্ঘ পিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ, সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ও ভাষা প্রশিক্ষণ ল্যাব স্থাপন (২য় সংশোধিত) প্রকল্প এবং যমুনা নদীর ভাঙন থেকে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলায় খুদবান্দি, সিংড়াবাড়ী ও শুভগাছা এলাকা সংরক্ষণ প্রকল্পও অনুমোদন করা হয়েছে।

একনেক সভায় বিভিন্ন দফতরের মন্ত্রীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/এসআই/এমও/

লাইভ

টপ