‘ভেজালের সঙ্গে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৩২, এপ্রিল ০৩, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৯, এপ্রিল ০৩, ২০১৬

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামখাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, খাদ্য নিরাপত্তা জনগণের সাংবিধানিক অধিকার। বর্তমান সরকার জনগণের এ অধিকারের নিশ্চয়তা দিতে চায়। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ খুব শিগগিরই জনগণের চাহিদা অনুযায়ী সমগ্র বাংলাদেশে এর কার্যক্রম শুরু করার মাধ্যমে নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা প্রদান করবে।
রবিবার রাজধানীর ইস্কাটনের বিয়াম মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শকের কার্যক্রম’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
খাদ্যমন্ত্রী হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, যারা ভেজালের সঙ্গে জড়িত তাদের কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। যারা মান অনুযায়ী খাদ্য পণ্য উৎপাদন করবে না তাদের শাস্তি পেতেই হবে। ‘নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ’ জনগণের সেবা প্রদান করার একটি কার্যকরী সংগঠন হিসেবে গড়ে উঠবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।
মন্ত্রী জানান, এতদিন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কোনও দৃশ্যমান কার্যক্রম ছিলনা। বর্তমানে ২০১ জন খাদ্য পরিদর্শককে প্রথম পর্যায়ে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। মেট্রোপলিটন শহরসহ ৬৪ জেলায় নিরাপদ খাদ্য আদালত গঠন করা হয়েছে। সরকার ১০টি ল্যাবরেটরিকে স্বীকৃতি দিয়েছে, যেখান থেকে খাদ্য দ্রব্য পরীক্ষা করা হবে। খুব দ্রুতই নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের নিজস্ব ল্যাবরেটরি প্রতিষ্ঠা করা হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় ফজলে নূর তাপস এমপি বলেন, খাদ্য হচ্ছে মানুষের প্রধান মৌলিক চাহিদা। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ গঠন করা হয়েছে বিশেষ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে। ভেজালমুক্ত খাবার কিভাবে নিশ্চিত করা যায় তার উপর তিনি গুরুত্ব আরোপ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমরা কি খাচ্ছি জানি না। বাচ্চারা ফল খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। বর্তমানে আমরা কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি। মানুষ এ অবস্থা থেকে মুক্তি চায়। এসময় তিনি ভেজালের সঙ্গে জড়িত সবাইকে শাস্তির আওতায় আনার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জনাব মুশতাক হাসান মুহম্মদ ইফতিখার। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- খাদ্য সচিব এ এম বদরুদ্দোজা, খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ফয়েজ আহমদসহ খাদ্য মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য অধিদপ্তরের বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মকর্তারা।

এসআই/এমও / এপিএইচ

লাইভ

টপ