Vision  ad on bangla Tribune

সিলেটে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে আসামি করে দুদকের মামলা!

সিলেট প্রতিনিধি০৪:৫৮, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৭

দুদক

সিলেট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে দুদকের কর্মকর্তাদের ওপর হামলা ঘটনায় মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট মুখ্য মহানগর বিচারিক হাকিম সাইফুজ্জামান হিরু সাধারণ ডায়রিকে নিয়মিত মামলা হিসেবে গ্রহণের আদেশ দেওয়ার পর রাত সাড়ে ৯টায় মামলাটি (নং-১৯) রুজু করা হয়।

সিলেট মহানগরীর কোতোয়ালি থানার থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) সোহেল আহাম্মদ বাংলা ট্রিবিউন’কে আদালতের নির্দেশে  মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, জিডিতে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের বাণিজ্য উচ্চমান সহকারী আজিজুর রহমান ছাড়া আর কারেও নাম উল্লেখ ছিল না। তাই অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম)ও তাঁর অধীনস্থ একজন ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মচারীদেরকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তবে মামলায় কারও নাম উল্লেখ করা হয়নি।

জানা যায়, সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মকর্তা ও একজন পুলিশ কনস্টেবলের ওপর হামলার ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে মহানগর কোতোয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন দুদক সিলেটের আঞ্চলিক পরিচালক শিরিন পারভীন। আর পরবর্তীতে গত মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুদকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরামর্শে কোতোয়ালী থানায় সিলেট জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের ব্যবসা ও বাণিজ্য শাখার কর্মচারী আজিজুর রহমানকে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেন দুদক সিলেটের সহকারী পরিচালক মঞ্জুর মুর্শেদ সোহেল। গত বুধবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সিলেট মহানগর মুখ্য মহানগর বিচারিক হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো দুদক সিলেটের আঞ্চলিক পরিচালক শিরিন পারভীনের দায়েরকৃত সাধারণ ডায়রিটি এজহার হিসেবে গণ্য করে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৫৬(৩) ধারা অনুযায়ী অতি দ্রুত আইনগত প্রক্রিয়া গ্রহণে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেন। 

তবে সিলেট মহানগরীর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহাম্মদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার (১৬ ফ্রেবুয়ারি) সন্ধ্যায় যোগাযোগ করা হলে তিনি আদালত থেকে কোনও আদেশ পাননি বলে জানান।

আদালত সূত্রে জানা যায়, জেলা প্রশাসনের কর্মচারী আজিজুর রহমান ও তার কাছ থেকে উদ্ধার করা টাকা (আলামত) দুদকের টিমের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী। এছাড়াও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কর্মরত কর্মচারীরা দুদকের একজন কর্মকর্তা ও একজন কনস্টেবলকে মারধর করে। এসময় ওই কনস্টেবলকে মাথায় রড় দিয়ে আঘাতও করা হয়।  দুদক সিলেটের আঞ্চলিক পরিচালক শিরিন পারভীনের দাখিল করা সাধারণ ডায়রিটি গুরুতর আমলযোগ্য অপরাধ হিসেবে আদালতে প্রতীয়মান হয়।

উল্লেখ্য, গত ৯ ফেব্রুয়ারি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মচারী আজিজুর রহমানকে গ্রেফতার করতে গিয়ে হামলার শিকার হন দুদক কর্মকর্তারা। এতে দুদকের কয়েকজন সদস্য আহত হন। এসময় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অন্য কর্মচারীদের বাধার মুখে আজিজুরকে আটক করেও  নিয়ে যেতে পারেনি দুদক। পরে সোমবার ঢাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে দুদক। ওইদিনই তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। হামলার ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারকে প্রধান করে একটি কমিটিও গঠন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

/টিএন/

samsung ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ