‘নুসরাত হত্যায় জড়িত কেউ ছাড় পাবে না’

Send
ফেনী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১২:২১, এপ্রিল ২৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:২১, এপ্রিল ২৪, ২০১৯





সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন এমপি মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীনুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কেউ ছাড় পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন ফেনী-৩ (সোনাগাজী-দাগনভূঞা) আসনের সংসদ সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘নুসরাত হত্যা মামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। কারও যদি কোনও রাজনৈতিক বা প্রশাসনিক পরিচয়ও থাকে, তদন্তে অপরাধ প্রমাণ হলে ছাড় পাওয়ার কোনও সুযোগ নেই। রাজনৈতিক কারণে এ ঘটনা অন্য খাতে প্রবাহিত হবে, এমনটি আমি বিশ্বাস করি না।’

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সোনাগাজী পৌর শহরের উত্তর চরচান্দিয়ায় নুসরাতের বাড়িতে স্বজনদের সমবেদনা জানাতে গিয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদ সদস্য মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘নুসরাত হত্যার অন্যতম হোতা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার আগের অপকর্মগুলোর বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মাদ্রাসা কমিটির এ বিষয়ে কোনও অবহেলা আছে কিনা সেগুলো সুচারুভাবে তদন্ত করা হবে।’

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি আগামীতে ঢেলে সাজানো হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মাসুদ চৌধুরী বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানে যে লেভেলের শিক্ষা আছে, কমিটিতে যারা থাকবেন, তাদের সে পর্যন্ত শিক্ষিত হতে হবে। কোনও হাইস্কুল কিংবা মাদ্রাসাতে প্রাইমারি পার না হওয়া কেউ কমিটিতে আসবে এমনটা হবে না। হাইস্কুল-কলেজের কমিটিতে থাকতে হলে তাকেও হাইস্কুল-কলেজ পাস হতে হবে।’

নুসরাতের পরিবারের নিরাপত্তার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘মামলাটির রায় না হওয়া পর্যন্ত পরিবারটিকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে। এ ব্যাপারে আমি ফেনী জেলা পুলিশ এবং ডিআইজির সঙ্গে কথা বলবো।’

মামলার অগ্রগতির ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এখনও পর্যন্ত পিবিআই’র তদন্ত কর্মকাণ্ডে আমি সন্তুষ্ট। তাদের কর্মকাণ্ডে কোনও অবহেলা চোখে পড়েনি। তাদের গাফিলতি বোঝা গেলে, আমরা অন্য লেভেলে চেষ্টা করতাম।’

মামলাটি দ্রুত বিচার আইনে নেওয়ার ব্যাপারে এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করবো তদন্ত শেষ করে আদালতের কাছে তুলে দিতে। এ ছাড়া আইনমন্ত্রী বলেছেন, এ মামলা দ্রুত বিচার আইনে স্থানান্তর করা হবে।’

সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘তাকে সোনাগাজী থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আমার কাছে তথ্য আছে, আজ পিবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছে। এখানে ইনফ্লুয়েন্স করার কোনও সুযোগ নেই।’

এর আগে দুপুর আড়াইটাই তিনি নুসরাতের কবর জিয়ারত করেন ও পরিবারের জন্য সমবেদনা জানান। নুসরাতের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন— তার স্ত্রী জেসমিন মাসুদ, সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হাজী মো. আবু সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক মজিবুল হক মানিক, পৌর কাউন্সিলর নুর নবী লিটন, নুসরাতের বাবা মাওলানা এ কে এম মুসা মানিক, বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান, ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান প্রমুখ।

 

/আইএ/

লাইভ

টপ