জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দি তিন লাখ মানুষ

Send
জামালপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:২৯, জুলাই ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪০, জুলাই ১৭, ২০১৯

পানিতে দেওয়ানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন তলিয়েছে (ছবি– প্রতিনিধি)

ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে জামালপুরে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ায় এ জেলায় পানিবন্দি মানুষের সংখ্যা তিন লাখ ছাড়িয়েছে। স্কুল-কলেজে পানি ওঠায় জেলার ৩৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে, দেওয়ানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন ইয়ার্ড পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বর্তমানে ইসলামপুর পর্যন্ত ট্রেন চলছে।

বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া এলাকাগুলোর মধ্যে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী, চিকাজানী, বাহাদুনাবাদ ও চর আমখাওয়া ইউনিয়ন, ইসলামপুর উপজেলার পার্থর্শী কুলকান্দি, বেলগাছা, চিনাডুলী, নোয়ারপাড়া, ইসলামপুর সদর, পলবান্দা, ইসলামপুর পৌরসভা, গোয়ালের চর, গাইবান্দা, চরগোয়ালীনী ও চরপুটিমারী ইউনিয়ন, মেলান্দহ উপজেলার মাহমুদপুর, শ্যামপুর, মেলান্দহ পৌরসভা, নাংলা, আদ্রা, ফুলকোচা, ঝাউগড়া ও ঘোষেরপাড়া ইউনিয়ন, মাদারগঞ্জ উপজেলার গুনারীতলা জোড়খালী, বালিজুড়ি ও চর পাকেরদহ ইউনিয়ন, সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা, আওনা, পোগলদিঘা, সাত পোয়া ও কামরাবাদ ইউনিয়ন, বকশিগঞ্জ উপজেলার সাদুরপাড়া, মেরুরচর ও বগারচর ইউনিয়ন এবং সদর উপজেলার লক্ষীরচর ও তুলশিরচর ইউনিয়ন উল্লেখযোগ্য।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস সূত্র জানায়, সাত উপজেলার ৬৮ ইউনিয়নের মধ্যে ৪৭টি ইউনিয়নসহ ৩টি পৌরসভা প্লাবিত হয়েছে। এতে প্রায় তিন লাখের বেশি মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ৪৭৫টি বাড়ি সম্পূর্ণ ও এক হাজার ৫৯০টি বাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া, প্রায় ১০ কিলোমিটার পাকা রাস্তা ও ২০ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা সম্পূর্ণ বিলীন হয়েছে।

পানিতে তলিয়ে যাওয়া এলাকা (ছবি– প্রতিনিধি)

সূত্র আরও জানায়, বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ উচু বাঁধ, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে। আবার অনেকেই খোলা আকাশের নিচে বৃষ্টিতে ভিজে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

ইসলামপুর উপজেলার সাপধুরী, বেলগাছা, চিনাডুলী, কুলকান্দি ইউনিয়নের যমুনার দ্বীপ সংলগ্ন চরের লোকজন নৌকার অভাবে ঘরের ধান-চাল, গৃহপালিত পশু নিরাপদ স্থানে নিতে পারছে না বলে বেলগাছা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক জানিয়েছেন। তিনি জানান, বানভাসীদের মধ্যে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির চরম সংকট দেখা দিয়েছে।

জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী নবকুমার চৌধুরী ও পানি মাপক গেজ রিডার আব্দুল মান্নান জানান, আজ (বুধবার) সকাল ১০টায় যমুনা ও ব্রহ্মপুত্রের পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। ১৯৮৮ সালে ১২২ সেন্টিমিটার ও ২০১৭ সালে ১৩৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছিল। এবার ১১ সেন্টিমিটার বেশি ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। অর্থাৎ গত ১০০ বছরের মধ্যে এবারই পানি সর্বোচ্চ বিপদসীমা অতিক্রম করছে।

পানিতে তলিয়ে যাওয়া এক এলাকা (ছবি– প্রতিনিধি)

ইসলামপুর স্টেশন মাস্টার মো. মিজানুর রহমান জানান, দেওয়ানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন ইয়ার্ড পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় আন্তঃনগর তিস্তাসহ সব ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে ইসলামপুর পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করছে। তবে যেকোনও মুহূর্তে তাও বন্ধ হয়ে জামালপুর সদরের সঙ্গে ট্রেন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম জানান, জেলায় ২৯৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ প্রায় ৩৫০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. নায়েব আলী জানান, বন্যায় দুর্গতদের জন্য ইসলামপুর উপজেলায় ৭০ মেট্রিক টন, দেওয়ানগঞ্জে ৭০ মেট্রিক টন, মাদারগঞ্জে ৩০ মেট্রিক টন ও সরিষবাড়ীতে ৩০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর আগে সারাজেলায় আরও ৯০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল।

 

/এমএ/

লাইভ

টপ