পপিকে নিয়ে আরও ছবি বানাতে চাই: কামু

Send
সুধাময় সরকার
প্রকাশিত : ১৭:৪৯, জুন ০৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৪৭, জুন ০৮, ২০১৯

ছবির পোস্টারে মারজুক ও পপি, ডানে কামরুজ্জামান কামুটানা ১২ বছর নানা কারণে আটকে থাকার পর এই ঈদ উৎসবে (৫ জুন) মুক্তি পেয়েছে পপি-মারজুক রাসেল অভিনীত সিনেমা ‘দি ডিরেক্টর’। তাও আবার প্রেক্ষাগৃহে নয়, এটি সরাসরি মুক্তি দেওয়া হলো সান বিডিটিউব নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে!
এমন ঘটনা দেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে প্রথম।
তবে ছবিটি শেষ পর্যন্ত মুক্তির খবর পেয়ে খুশির বদলে বেজায় চটেছেন এর নায়িকা পপি। তিনি এটাকে সিনেমা বলতেই নারাজ! তার দাবি, ‘এটি একটি নাটক!’
তিনি বলেন, ‘এটা তো কোনও সিনেমা না। টিভির জন্য একটা নাটক ছিল মাত্র। ১২ বছর আগে এর শুটিং করেছিলাম। ঠিক মনেও নেই। এত বছর পর একটা নাটক কীভাবে সিনেমা হয়? একজন শিল্পীকে মেরে ফেলার জন্য এটা একটা ক্রাইম। এগুলো হলো প্রতারণা।’
এদিকে এমন প্রতিক্রিয়ার মাঝেও ছবিটি ইউটিউবে দেখছেন দর্শক-সমালোচকরা। মুক্তির তিন দিনে এটির ভিউ অতিক্রম করেছে সাড়ে ১১ হাজার। ইউটিউবে ও ফেসবুকে ছবিটি নিয়ে চলছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। ছবিটির নির্মাণ-মান নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বেশিরভাগ দর্শক। তবে ১২ বছর লেগে থেকে নানা বাধা অতিক্রম করে ছবিটি যে শেষ পর্যন্ত দর্শকদের কাছে পৌঁছালো, সে জন্য এর নির্মাতা ও অভিনেতা কামরুজ্জামান কামুকে ‘বিপ্লবী’ হিসেবেই আখ্যা দিচ্ছেন অনেকেই।
এদিকে ছবিটি মুক্তির পর নায়িকা পপির নতুন কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া না গেলেও নির্মাতা কামু বাংলা ট্রিবিউনকে জানালেন আশাবাদের কথা।
তিনি বলেন, ‘ছবিটি মানুষ দেখতে পারছে, এটাই আমার কাছে বড় আনন্দ। আলোচনা-সমালোচনা প্রতিটি কাজের ক্ষেত্রেই থাকবে। এটা একটা ডিজিটাল ছবি। নাচে-গানে ভরপুর! ১২ বছর ধরে সংগ্রাম করে হলে বা টিভিতে চালাতে না পেরে এখন এটাকে ইউটিউবে মুক্তি দিয়েছি। আপাতত এটাই বড় জয়।’
এদিকে পপির বক্তব্যের জবাবে কামু বলেন, ‘এতে অভিনয় করার মধ্য দিয়ে আমি মনে করি পপি শিল্পী হিসেবে আরও জীবন্ত ও দীর্ঘস্থায়ী হলেন। আমি তার শান্তি কামনা করি। আমি নায়িকা পপিকে নিয়ে আরও বেশ কিছু ছবি বানাতে চাই। মনে করি, মারজুক-পপিকে জুটি করে এখনও জনপ্রিয় ছবি বানানো সম্ভব। আমি সেই চেষ্টা অব্যাহত রাখবো।’
কবি ও নির্মাতা কামরুজ্জামান কামুর ‘দি ডিরেক্টর’ নানা কারণে গত প্রায় ১২ বছর ধরেই আলোচনায়। ২০০৭ সালে ছবিটির শুটিং শুরু হয়। ২০১৩ সালে সেন্সরে জমা পড়ে। ২০১৫ সালে ছাড়পত্র পায়। অবশেষে ২০১৯ সালের এই ঈদে মুক্তির আলো দেখতে পেলো ছবিটি।
নির্মাতা জানান, ‘দি ডিরেক্টর’-এর অনলাইন পরিবেশক হিসেবে যুক্ত হয়েছে ‘উই আওয়ার্স ক্রিয়েটিভ ফান্ডিং’ ইনিশিয়েটিভ প্ল্যাটফর্ম (www.whc.fund)। যার মাধ্যমে চলচ্চিত্রটি অনলাইনে দেখার পর দর্শক যদি মনে করেন, এটি তাকে বিনোদিত করেছে, তাহলে এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে যেকোনও পরিমাণ অর্থ, যেকোনও দেশ থেকে ডোনেট করতে পারবেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই পদ্ধতিতে এখন শিল্পকর্মের বিনিয়োগ তোলা হচ্ছে। একই ধারায় এবার যুক্ত হলো বাংলাদেশের ছবি ‘দি ডিরেক্টর’।
‘দি ডিরেক্টর’-এ পপির নায়ক হিসেবে দেখা যাবে মারজুক রাসেলকে। তারা ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, নাফা, কচি খন্দকার, তারেক মাহমুদ, তানভীন সুইটি, নাফিজা জাহান, বাপ্পি আশরাফ, কামরুজ্জামান কামু প্রমুখ।
ছবিটির গল্প এগিয়েছে একজন চলচ্চিত্র নির্মাতার শুটিং আর সংসার জীবনের নানা টানাপড়েন নিয়ে।
এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংযুক্ত রয়েছে ছবিটির ইউটিউব লিংকে।
পুরো ছবিটি দেখা যাবে এখানেই:

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ