ট্রাম্পের পালাবদলে নেতৃত্ব দেবেন পেন্স

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১১:২২, নভেম্বর ১২, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৮, নভেম্বর ১২, ২০১৬

ক্ষমতাগ্রহণের পূর্বে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্পের অন্তর্বর্তীকালীন প্রশাসনে নেতৃত্ব দেবেন ভাইস-প্রেসিডেন্ট মনোনীত মাইক পেন্স। এর আগে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল নিউ জার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টিকে।

ট্রাম্প-পেন্স

ট্রাম্প নির্বাচনে জয়ী হওয়ার কয়েক মাস আগে থেকেই অন্তর্বর্তীকালীন কমিটির নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন ক্রিস্টি। এখন তিনি অ্যালাবামার সিনেটর জেফ সেশন, সাবেক লেফটেন্যান্ট জেনারেল মাইক ফ্লিন, নিউ ইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি জিউলিয়ানি, ড. বেন কারসন এবং সাবেক হাউস স্পিকার নিউট গিংরিচের সঙ্গে যৌথভাবে ওই ট্রানজিশন কমিটির ভাইস-চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। আর চেয়ারম্যান হিসেবে থাকছেন হবু মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। এই কমিটিই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের দায়িত্ব নেওয়ার আগপর্যন্ত রিপাবলিকান পার্টিকে নেতৃত্ব দেবে।

এক বিবৃতিতে ক্রিস্টি বলেছেন, ‘নির্বাচন পূর্ববর্তী পর্যায়ে পেশাদার ও নিবেদিতপ্রাণ একটি দল নিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন প্রচেষ্টা চালাতে পেরে আমি গর্বিত।’

অন্তর্বর্তীকালীন প্রচেষ্টায় পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করার জন্য ১৬ সদস্যের একটি নির্বাহী কমিটি গঠন করেছেন ট্রাম্প। এই অন্তর্বর্তীকালীন উপদেষ্টা কমিটিতে ট্রাম্প পরিবারের সদস্যদের রাখা হয়েছে। ট্রাম্পের তিন সন্তানের মধ্যে রয়েছে ডোনাল্ড জুনিয়র, এরিক এবং ইভানকা ট্রাম্প। ইভানকার স্বামী জেরাড কুশনারও অন্তর্বর্তীকালীন ট্রাম্প প্রশাসনে থাকছেন।

ট্রাম্প বলেছেন, ‘পরবর্তী সরকার যেন প্রথম দিন থেকেই কাজ করতে পারে, তার জন্য ক্রিস্টি যে কাজ করেছেন, তার ভিত্তিতেই কাজ করবেন পেন্স। তিনি আরও বলেন, আমাদের কমিটির লক্ষ্য পরিষ্কার: ওয়াশিংটনে আমাদের পরিবর্তিত অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম এমন উচ্চমানসম্পন্ন সফল নেতাদের একত্র করা। বিশেষ করে কর্মসংস্থান, নিরাপত্তা ও সুযোগ সৃষ্টির মতো জরুরি বিষয়ে আমরা দ্রুত কাজ শুরু করতে চাই।’

ক্রিস্টি-ট্রাম্প

ক্রিস ক্রিস্টিকে সরিয়ে দেয়ার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, তিনি ব্রিজগেট কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত। এজন্য তাকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। ক্রিস্টির বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি গত নির্বাচনের আগে নিজের পুনর্নির্বাচনের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন। নিজ অঙ্গরাজ্যের সব মেয়রের সমর্থন আদায়ে তিনি নানাভাবে চাপ সৃষ্টি করেন। নিউইয়র্ক-নিউজার্সির মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ স্থাপনা ওয়াশিংটন ব্রিজ। ব্রিজ-সংলগ্ন শহর ফোর্ট লির মেয়র মার্ক সোকোলিচকেও চাপ দেওয়া হয়। তবে ডেমোক্রেটিক দলের সমর্থক সোকোলিচ রিপাবলিকান গভর্নর ক্রিস্টিকে সমর্থন দেননি। এ কারণে তাঁকে ‘উচিত শিক্ষা’ দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়। গভর্নর অফিস থেকে প্রভাব খাটিয়ে নির্মাণকাজের অজুহাতে ওয়াশিংটন ব্রিজের কয়েকটি লেন বন্ধ রাখা হয় ব্যস্ত কর্মদিবসেও। এতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয় সেখানে। ভোগান্তিতে পড়ে জরুরি বিভাগের গাড়িগুলোও।

অন্তবর্তীকালীন প্রশাসনে চিফ অব স্টাফ পদে রিক ডিয়ারবনকে ও সিনেটর জেফ সেশনকে অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি দায়িত্বে রয়েছেন কৃষাঙ্গ নেতা বেন কারসন। যিনি দলীয় প্রার্থিতা বাছাইয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

সূত্র: সিএনএন।

/এসএ/

লাইভ

টপ