বিজেপিবিরোধী জোট গড়তে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তেও রাজি কংগ্রেস

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:৪৯, মে ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:০১, মে ১৮, ২০১৯

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণাকে সামনে রেখে বিজেপি বিরোধী জোট গঠন করতে মহাঐক্য গঠনের দিকেই মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করেছে কংগ্রেস। ঐক্য গঠনের স্বার্থে প্রয়োজন হলে প্রধানমন্ত্রী পদে ছাড় দিতেও রাজি আছে দলটি।  বৃহস্পতিবার দলটির সিনিয়র নেতা গুলাম নবি আজাদের এমন ইঙ্গিতের পর শুক্রবারও একই ধরনের মন্তব্য করেছেন দলটির প্রধান মুখপাত্র রন্দিপ সুরজেওয়ালা। ভারতের অন্যতম প্রাচীন দলটির এই সিনিয়র নেতারা বলেছেন, একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হলে প্রধানমন্ত্রী পদ দাবি করবে তবে ঐক্যের প্রয়োজনে তাতেও ছাড় দিতে রাজি আছেন তারা।

কংগ্রেসের এক নির্বচনি জনসভা

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আউটলুক ইন্ডিয়া জানিয়েছে, বিরোধী দলগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করার অংশ হিসেবে ২৩ মে নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরই বৈঠক আয়োজন করতে বিশ্বস্ত নেতাদের আহ্বান জানিয়েছেন ইউনাইটেড প্রগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স প্রধান সোনিয়া গান্ধী। শুক্রবার কংগ্রেসের তরফে বলা হয়েছে, একটি প্রগতিশীল ও ধর্মনিরপেক্ষ সরকার গঠনে তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, আর এজন্য প্রয়োজনে জোটের নেতৃত্ব দিতেও প্রস্তুত রয়েছে তারা।

বৃহস্পতিবার শিমলায় সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা গুলাম নবি আজাদ বলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে আমাদের অবস্থান স্পষ্ট করেছি। যদি কংগ্রেসের পক্ষে আমরা ঐকমত্য তৈরি করতে পারি তাহলে আমরা নেতৃত্ব নেব, তবে সবসময়ই আমাদের লক্ষ্য হলো এনডিএ (বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট) সরকারকে ক্ষমতায় ফিরতে না দেওয়া। আমরা সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের পক্ষেই যাবো। কংগ্রেসকে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব দেওয়া না হলে অন্য কাউকে প্রধানমন্ত্রী বানাবো না এমন অবস্থান দলের নেই বলে জানান আজাদ। তিনি বলেন, আমরা এটাকে ইস্যু বানাবো না।

কংগ্রেসের প্রধান মুখপাত্র রন্দিপ সুরজেওয়ালা বলেন, একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে আবির্ভূত হওয়ার বিষয়ে আশাবাদী কংগ্রেস। তিনি বলেন, স্বাভাবিকভাবে যদি আমাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকে আর সবচেয়ে বেশি সংখ্যক আসন থাকে তাহলে আমরা অবশ্যই পরবর্তী সরকারের নেতৃত্ব দেবো। যাই হোক, ফল আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন, আমাদের বিশ্বাস ফল হবে বিস্ময়কর। তিনি বলেন, কংগ্রেস এবং অন্য রাজনৈতিক দলগুলো এখন থেকে বিরোধী দলে থাকবে না, আর লোকসভা নির্বাচনের পর নরেন্দ্র মোদিকে যাওয়ার দরজা দেখিয়ে দেওয়া হবে।

আজাদের মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে সুরজেওয়ালা বলেন, রাহুল গান্ধী এবং কংগ্রেস নেতাদের বিশ্বাস বিভিন্ন মতের রাজনৈতিক দল ও মানুষকে আমরা আমাদের সাথে নিতে পারবো। দরকার পড়লে তাদের সাথে পাওয়ার স্বার্থে আমরা অনেকদূর পর্যন্ত ছাড় দিতেও রাজি। আমার ধারণা, আমি যা বলছি গোলাম নবি তার থেকে আলাদা কিছু বলেননি। তিনি বলেন, আমি আশ্বস্ত করতে চাই ন্যাশনাল কংগ্রেস দেশে একটি প্রগতিশীল, উদার, গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ সরকার গঠনে প্রতিশ্রুতিশীল। 

/জেজে/বিএ/এমএমজে/

লাইভ

টপ