উত্তর প্রদেশে বিজেপির বিরুদ্ধে ভোট কেনার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গে বোমাবাজি

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:২২, মে ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:০৪, মে ১৯, ২০১৯

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের শেষ ধাপে পশ্চিমবঙ্গে ভোটগ্রহণের দিনেও সহিংসতা হয়েছে। শনিবার রাতে রাজ্যের ভাটপাড়ায় বোমা বিস্ফোরণ ও অগ্নিসংযোগের পর রবিবার সকালেও কয়েকটি স্থানে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। আটক করা হয়েছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেতাকে। এদিকে উত্তর প্রদেশে বিজেপির বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে ভোট কেনার অভিযোগ উঠেছে। 

ভোটের দিনেও পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতা

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছিল ১১ এপ্রিল। ইতোমধ্যেই ছয় ধাপে অধিকাংশ আসনের নির্বাচন শেষ হয়েছে। রবিবার শেষ ধাপে সকাল থেকে আটটি রাজ্যের ৫৯টি আসনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। কেন্দ্রের ক্ষমতার পালাবদল প্রশ্নে এবারে সবক’টি প্রতিদ্বন্দ্বী দলের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে এই ধাপে অনুষ্ঠিত হওয়া পশ্চিমবঙ্গের আসনগুলো। গত বছর বিধানসভা নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রাজ্যে পরাজয়ের পর পশ্চিমবঙ্গসহ পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে জয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করে বিজেপি। আর তিন দশকের বাম শাসন হটিয়ে ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গের শাসনে আসা তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে লোকসভা নির্বাচন হয়ে উঠেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতার মর্যাদার লড়াই।

ভোটগ্রহণের আগের দিন রাতে রাজ্যের ভাটপাড়ায় সহিংসতার পর রাইদিঘি এলাকার মথুরাপুরে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এই সহিংসতার জন্য গ্রামবাসী ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসকে দায়ী করেছে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। এছাড়া কদমপুর নিউটাউন এলাকায় ২০১ নাম্বার বুথের কাছে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) অফিস ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার জন্যও তৃণমূল কংগ্রেসকে দায়ী করেছে দলটি।

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সুভাস বোসকে আটক করা হয়েছে। বিধাননগর করপোরেশনের ৬ নাম্বার ওয়ার্ডের এই কমিশনারকে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে আটক করা হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, আলোচনার কথা বলে পুলিশ তাকে বিমানবন্দরে ডেকে নিয়ে পরে আটক করে। সুভাস দাবি করেছেন, ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে বিজেপির ইন্ধনে তাকে আটক করা হয়েছে। এদিকে গৃহবন্দি রাখা হয়েছে বিধাননগর এলাকার বিজেপি নেতা অনুপম দত্তকে। সেখানকার পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে ১৮ মে বিকেল ৫টা থেকে ১৯ মে ৬টা পর্যন্ত বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। তবে কেন তাকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে তা জানায়নি পুলিশ।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যয়ের ভাইপো ও দলীয় প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যয় বিজেপিকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, স্বয়ং ঈশ্বরও তাদের পরাজয় ঠেকাতে পারবে না। ভোট প্রদানের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যয়ের ভাইপো ও তৃণমূল প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যয় বলেছেন, স্বয়ং ঈশ্বরও মোদির পরাজয় ঠেকাতে পারবেন না। তাকে ধ্যান করতে দাও। পশ্চিমবঙ্গে ৪২টি আসনে জয়ের বিষয়ে আমরা আশাবাদী। বিজেপি একটি সাম্প্রদায়িক দল ও সরকার। মানুষ তাদের উৎখাতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

উত্তর প্রদেশে বিজেপির বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে ভোট কেনার অভিযোগ

উত্তরপ্রদেশের চান্দৌলিতে বিজেপির বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে ভোট কেনার অভিযোগ উঠেছে। ওই এলাকার জীবনপুর গ্রামের বাসিন্দাদের দাবি, গ্রামের তিনজন লোক জোর করে তাদের আঙুলে ভোটের কালি লাগিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি তাদের প্রত্যেকের হাতে ৫০০ টাকাও গুঁজে দিয়ে গেছে। গ্রামবাসীর কথায়: “ওই তিনজনই বিজেপি’র লোক। ওরা আমাদের কাছে জানতে চাইল, আমরা তাদের পার্টির হয়ে ভোট দেবো কিনা? ওরা বলল, এখন তোমরা ভোট দিতে পারবে না। এ কথা কাউকে বলো না।”

/জেজে/বিএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ