এবিসি নিউজে অভিযান: সাংবাদিকদের শাস্তি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি পুলিশ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৪৪, জুন ০৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৫০, জুন ০৬, ২০১৯

রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনে বিতর্কিত অভিযান চালানোর পর সাংবাদিকদের শাস্তি ও মামলা নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি পুলিশ। এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার নিল গগাম বলেন, সরকারের অতিগোপনীয় তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। এটি অপরাধ এবং এর বাইরে কেউই নেই। সাংবাদিকদের শাস্তির আওতায় আনা হবে কি না এমন প্রশ্নে তিনি জানান যে এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

২০১৭ সালে এবিসি ‘আফগান ফাইল’ নামে যে ধারাবাহিক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করেছিল তার সূত্র ধরেই পুলিশ এবিসির সদর দফতরে অভিযান চালায়। ওই সম্প্রচারমাধ্যমের সাংবাদিকরা জানিয়েছে, ওই প্রতিবেদনগুলোতে আফগানিস্তানে অস্ট্রেলীয় বিশেষ বাহিনীর বেআইনী হত্যা ও অসদাচরণের অভিযোগ উন্মোচিত হয়েছিল।  অস্ট্রেলীয় পুলিশের বিবৃতিতে বলা হয়েছে “গোপনীয় বিষয় প্রকাশের অভিযোগে এ তল্লাশি চালানো হয়েছে। ২০১৭ সালের ১১ জুলাই প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধান ও তখনকার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষা সচিবের একটি অভিযোগের ভিত্তিতে এ তল্লাশি পরোয়ানা জারি হয়”।

এই অভিযান নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। একে সংবাদমাধ্যমের ওপর স্বাধীনতা হরণ বলে উল্লেখ করছে অনেক। বিবিসিসহ বেশকিছু সংবাদ প্রতিষ্ঠান এর বিরোধিতা করছে। দেশটির শীর্ষস্থানীয় সাংবাদিক ইউনিয়ন জানায় এটা অস্ট্রেলিয়ার সংবাদপত্রের স্বাধীনতার ওপর আঘাত।

প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, এই অভিযানে সরকারের পূর্ণ সমর্থন ছিলো। এবং পূর্ণ স্বাধীনতা নিয়েই এই অভিযান পরিচালনা করে।

/এমএইচ

লাইভ

টপ