মার্কিন ‘গোয়েন্দা’ ড্রোন ভূপাতিত করলো ইরান

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১১:৩৫, জুন ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:০৪, জুন ২০, ২০১৯

হর্মোজগান প্রদেশে একটি মার্কিন ‘গোয়েন্দা’ ড্রোন ভূপাতিত করেছে ইরান। দেশটির সেনাবাহিনী ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড (ইআরজি) দাবি করেছে, সে দেশের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ার কারণে ড্রোনটি ভূপাতিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার কথা স্বীকার করেছে। তবে ইরানের আকাশসীমায় প্রবেশের দাবি নাকচ করে দিয়েছে তারা।  

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে পরমাণু নিয়ন্ত্রণবিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে ইরান। বিনিময়ে দেশটির ওপর থেকে অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। কিন্তু গত বছর ইউরোপীয় মিত্রদের বাধা সত্ত্বেও ওই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পরে ইরানের ওপর তেল রফতানিসহ বিভিন্ন বিষয়ে একের পর এক অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। বর্তমানে এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

ধারাবাহিক উত্তেজনা চলমান থাকা অবস্থায়, ক’দিন আগে মধ্যপ্রাচ্যে আরও ১ হাজার মার্কিন সেনা পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। এরইমধ্যে বৃহস্পতিবার ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের হরমোজগান রাজ্যের কুহমোবারক এলাকায় ‘আরকিউ-৪ গ্লোবাল হক’ নামে একটি ড্রোনকে ভূপাতিত করেছে ইরানের সেনাবাহিনী।

প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে পেন্টাগনের পক্ষ থেকে ড্রোন ভূপাতিত হওয়ার কথা স্বীকার করা হয়েছে। তবে ইরানের আকাশসীমায় প্রবেশের অভিযোগ নাকচ করে তারা দাবি করেছে, আন্তর্জাতিক সীমার মধ্যে অবৈধভাবে ইরান তাদের ড্রোন ভূপাতিত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন অভিযোগ, ওমান উপসাগরে কয়েকটি তেলবাহী ট্যাঙ্কারে মাইন হামলা করেছে ইরান। এরপর গত সোমবার ইউরোপীয় দেশগুলোর সঙ্গে বিদ্যমান পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে নিজেদের ইউরেনিয়াম মজুত ও সমৃদ্ধকরণ মাত্রা বাড়ানোর ঘোষণা দেয় ইরান।

যুক্তরাষ্ট্রের চাপানো অর্থনৈতিক অবরোধ এবং দেশটির সঙ্গে চলমান উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে পরমাণু চুক্তি রক্ষায় ইউরোপীয় দেশগুলোর ওপর নতুন করে চাপ তৈরি করতে ইরান এমন ঘোষণা দেয়। ইরানের ওই ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা পরই যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্যে নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে অতিরিক্ত এক হাজার মার্কিন সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেয়।

/এমএইচ/বিএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ