ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ করতে যাচ্ছে মার্কিন নৌবাহিনী!

ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ করতে যাচ্ছে মার্কিন নৌবাহিনী!

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৮:৫৮, জুলাই ২৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:১০, জুলাই ২৮, ২০১৯

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ করতে যাচ্ছে মার্কিন নৌবাহিনী। এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ভেনেজুয়েলান সোশ্যালিস্ট পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট দিওসদাদো ক্যাবেলো। শনিবার এক অনুষ্ঠানে নিজের এমন আশঙ্কার কথা জানান তিনি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।
এমন সময়ে দিওসদাদো ক্যাবেলো এ আশঙ্কার কথা জানালেন যার মাত্র এক সপ্তাহ আগেই মার্কিন নৌবাহিনীর একটি যুদ্ধবিমান ধাওয়া করে ভেনেজুয়েলার একটি যুদ্ধবিমান। গত ১৯ জুলাই ভেনেজুয়েলার কাছে আন্তর্জাতিক আকশসীমায় এ ঘটনা ঘটে। টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে ওই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী।

সেদিন রাশিয়ার তৈরি সুখোই-৩০ ফ্ল্যাঙ্কার দিয়ে মার্কিন বিমানকে ধাওয়া করে ভেনেজুয়েলা। এর আগে গত মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে ভেনেজুয়েলার সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্যিক ও কার্গো ফ্লাইট স্থগিতের ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র।

ভেনেজুয়েলান সোশ্যালিস্ট পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট দিওসদাদো ক্যাবেলো বলেন, আমরা একটি  ছোট দেশ। আমরা খুবই বিনয়ী। মার্কিন নৌবাহিনী হয়তো এখানে প্রবেশ করতে পারে। শনিবার সাও পাওলো ফোরামে তিনি এমন মন্তব্য করেন। ল্যাটিন আমেরিকা অঞ্চলের বাম রাজনীতিক ও অ্যাক্টিভিস্টদের অংশগ্রহণে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তবে সম্মেলনে দেওয়া নিজের বক্তব্যের সমর্থনে কোনও প্রমাণ তুলে ধরেননি তিনি।

এদিকে রাশিয়ার শরণাপন্ন হয়েছেন ভেনেজুয়েলার যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদো। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমন তথ্য জানিয়েছেন খোদ রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হুয়ান গুইদোর লোকজন মস্কোর সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইছেন। আমরা তাদের বলেছি যে বাইরের হস্তক্ষেপের জন্য উসকানি দিয়ে অভ্যন্তরীণ সমস্যার সমাধানের প্রচেষ্টা গ্রহণযোগ্য নয়। যুক্তরাষ্ট্রের যে নিয়মিত হুমকি আমরা দেখছি, সেটি অগ্রহণযোগ্য।

তিনি বলেন, ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি ইতিবাচক পরিবর্তনের দিকে যাচ্ছে। এর আগে এ মাসের গোড়ার দিকে রাজনৈতিক সংকটে থাকা ভেনেজুয়েলার সশস্ত্র বাহিনীকে শক্তিশালী করার ঘোষণা দেয় রাশিয়া। মস্কোয় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ জানান, চলমান চুক্তির অধীনেই ভেনেজুয়েলার সশস্ত্র বাহিনীকে শক্তিশালী করা হবে। প্রাথমিকভাবে রাশিয়া থেকে পাঠানো সামরিক সরঞ্জাম রক্ষণাবেক্ষণ প্রাধান্য পাবে। তিনি বলেন, আমরা অবশ্যই চলমান কাঠামোর মধ্যেই ভেনেজুয়েলার সশস্ত্র বাহিনীকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেবো।

রুশ উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভেনেজুয়েলার বৈধ সরকারকে উৎখাত করতে মার্কিন উদ্যোগ ব্যর্থ হয়েছে। তবে দেশটির রাজনৈতিক পক্ষগুলোর সঙ্গে রাশিয়া যোগাযোগ রাখছে।

উল্লেখ্য, নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে এ বছরের শুরুতে ভেনেজুয়েলায় বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর সরকারকে অবৈধ দাবি করে নিজেকে বৈধ অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করে অভ্যুত্থানের ডাক দেন তিনি। এতে সমর্থন ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। পরে কথিত ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাতের ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

/এমপি/

লাইভ

টপ