ইন্টারপোল নয়, মালয়েশিয়াই জাকির নায়েকের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে: মাহাথির

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৩৮, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৪৫, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দুর সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাকির নায়েককে দেশে ফেরাতে ইন্টারপোলকে আবারও বিতর্কিত ওই ইসলামী বক্তার বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারির আহ্বান জানাবে দিল্লি। এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন,  ইন্টারপোল নয়, জাকিরকে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্তের এখতিয়ার মালোয়েশিয়ার। উল্লেখ্য, ভারতীয় তদন্ত সংস্থা ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এনআইএ) এর আগে একবার জাকিরের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারির অনুরোধ জানালেও ইন্টারপোল তা প্রত্যাখ্যান করেছিল।

ভারতের আদালতে অর্থপাচার ও ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর মধ্য দিয়ে জিহাদি কার্যক্রম উদ্বুদ্ধ করার অভিযোগ রয়েছে জাকিরের বিরুদ্ধে। দিল্লির পক্ষ থেকে তাকে ফেরত পাঠানোর আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হলে ২০১৮ সালে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ এ ব্যাপারে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। তবে সম্প্রতি জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশি তদন্ত চলছে। সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের এক খবর অনুযায়ী,  এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে জাকির নায়েককে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে দিল্লি। গত তিন বছর ধরে মালয়েশিয়ায় বসবাস করছেন জাকির।

সোমবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু জানিয়েছে, জাকিরের গ্রেফতারে সহায়তা করতে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলকে রেড নোটিশ ইস্যু করতে শিগগিরই অনুরোধ করতে যাচ্ছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। তবে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরকে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘বিতর্কিত ইসলামি ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েকের বহিঃসমর্পণ বিষয়ে ভারতের পক্ষ থেকে আবেদন করা হলে ওই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার মালয়েশিয়ার।’

উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে মালয়েশিয়ার একটি বন্দিবিনিময় চুক্তি রয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী জাতি, ধর্ম ও রাজনৈতিক মতামতের ভিত্তিতে বিচার কিংবা শাস্তির আশঙ্কা না থাকলে পলাতকদের ফেরত পাঠানোর কথা বলা রয়েছে ওই চুক্তিতে। গত বছর মালয়েশিয়ার কাছে জাকিরকে ফেরত চেয়ে আনুষ্ঠানিক আবেদন করে ভারত। তখনই মাহাথির এ ব্যাপারে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। এ বছর জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহেও মাহাথির বলেছিলেন, ন্যায়বিচার ক্ষুণ্ন হওয়ার আশঙ্কা থাকলে জাকির নায়েককে ভারতে ফেরত পাঠানো হবে না।  তবে সম্প্রতি জাকিরের এক বর্ণবাদী মন্তব্যের পর মাহাথির তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হন।

মালয়েশিয়ায় ধর্ম ও জাতিগত ইস্যুকে স্পর্শকাতর বিবেচনা করা হয়। দেশটির ৬০ শতাংশ মানুষ মুসলমান আর বাকিরা চীন ও ভারতের নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী। এদের বেশিরভাগই সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষ। সম্প্রতি জাকির নায়েক মন্তব্য করেছেন, ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের চেয়ে মালয়েশিয়ায় থাকা সংখ্যালঘু হিন্দুরা শতগুণ বেশি অধিকার ভোগ করছেন। মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী হিন্দুরা দেশটির চেয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে সমর্থন করেন বেশি। জাকিরের এমন বক্তব্যের পর মাহথির টিআরটি ওয়ার্ল্ডকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, জাকির নায়েক তাদের কাছে ‘অনাহূত’ হলেও তাকে অন্য কোথাও পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। ভারতের বিতর্কিত ওই ধর্ম প্রচারক মনে করেন, দেশে ফিরলে তিনি সুবিচার থেকে বঞ্চিত হতে পারেন। মাহাথির ওই সাক্ষাৎকারে বলেন, জাকিরের কট্টরপন্থী মতবাদ মালয়েশিয়ার ধর্মীয় সম্প্রীতির জন্য হুমকি হলেও অন্য কোনও দেশ তাকে রাখতে চায় না বলেই মালয়েশিয়া তাকে বের করে দিতে পারছে না।

 

/এইচকে/বিএ/

লাইভ

টপ