যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে বেশি বিদ্বেষের শিকার মুসলিমরা

Send
অদিতি খান্না, যুক্তরাজ্য
প্রকাশিত : ২১:৩০, অক্টোবর ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩০, অক্টোবর ১৫, ২০১৯

যুক্তরাজ্যে গত বছর সবচেয়ে বেশি বিদ্বেষ হামলার শিকার হয়েছে মুসলিমরা। মঙ্গলবার সরকার কর্তৃক প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আগের বছর থেকে বিদ্বেষ হামলা বেড়েছে ১০ শতাংশ। ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ সালে নথিভুক্ত বিদ্বেষ অপরাধের সংখ্যা ১ লাখ ৩ হাজার ৩৭৯। আগের বছর তা ছিলো ৯৪ হাজার ১২১। আর ২০১২-১৩ সালে এর পরিমাণ ছিলো ৪২ হাজার ২৫৫টি।


হেটক্রাইম বলতে বুঝায়  এমন কোনও অপরাধ যা আসলে নিপীড়নের শিকার তার নিজের ধর্ম, বর্ণ, অক্ষমতা কিংবা জেন্ডারের কারণে হয়ে থাকেন। তিনি যেকোনও ধরনের শারীরিক, মানসিক কিংবা আর্থিক আক্রমণের শিকার হলেও তাকে  বিদ্বেষ হামলা বা হেটক্রাইম বলা যেতে পারে।

পুলিশ জানায়, বেশিরভাগ বিদ্বেষ অপরাধই বর্ণবাদী ছিলো। তবে ধর্মীয় কারণেও অনেকে বিদ্বেষ হামলার শিকার হয়েছেন। সেই হার সবচেয়ে বেশি মুসলিমদের। তারা অন্তত ৩ হাজার ৫৩০ বার আক্রমণের শিকার হয়েছেন। যা মোট সংখ্যার ৪৭ শতাংশ। আর ইহুদিরা শিকার হয়েছেন ১৮ শতাংশের।

পুলিশের নথিভুক্ত বিদ্বেষ অপরাধের ৫৪ শতাংশই ছিলো জননিরাপত্তা বিঘ্নিত করা অপরাধ। ৩৬ শতাংশ ছিলো ব্যক্তি পর্যায়ের সহিংসতা এবং ৫ শতাংশ ছিলো আর্থিক ক্ষতি।

রুপান্তরকামীদের বিদ্বেষের শিকার হওয়ার হার বেড়েছে ৩৭ শতাংশ। আর লিঙ্গভিত্তিক বিদ্বেষের শিকার বেড়েছে ২৫ শতাংশ। শারীরিক বা মানসিক ভাবে অক্ষমদের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা ১৪ শতাংশ।

স্বরাষ্ট্র দফতর জানায়, ২০১৮-১৯ সালে সংঘটিত বিদ্বেষ অপরাধের প্রায় ১২ শতাংশের ক্ষেত্রে একাধিক কারণ ছিলো। এটি বর্ণ ও ধর্ম দুইক্ষেত্রেই কাজ করেছে।

ধারণা করা হচ্ছে বিগত পাঁচ বছরে এই অপরাধ বাড়ার প্রবণতা বৃদ্ধির হার আসলে পুলিশের নথিভুক্ত করার প্রক্রিয়ার আধুনিকায়নের ফলাফল।  ধর্ম ও বর্ণের কারণে বিদ্বেষমূলক অপরাধগুলো আদালতে তোলা হবে।িএসব বিষয় সরকার খুবই গুরুত্ব সহকারে দেখে।

/এমএইচ/

লাইভ

টপ