মশাল পাবে কারা: সিদ্ধান্ত নিতে ইসিতে বুধবার শুনানি

বাংলা ট্রিবিউন ‍রিপোর্ট১৯:৪৩, এপ্রিল ০৪, ২০১৬

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের প্রতীক মশালদলীয় প্রতীক ‘মশাল’ কাদের নামে বরাদ্দ হবে তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সদ্য বিভক্ত জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) দুই অংশকে ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সোমবার অনুষ্ঠিত কমিশন বৈঠকে আগামী ৬ এপ্রিল বুধবার তাদের ডেকে শুনানির সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন।
নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন,বুধবার সকাল ১১টায় জাসদের একটি অংশের সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতারের এবং বিকাল ৩টায় অপর অংশের কার্যকরী সভাপতি মইন উদ্দিন খান বাদল ও সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধানের বক্তব্য শুনবে ইসি। তাদের কাছে চিঠি পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে বলে কমিশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
শুনানির বিষয়টি নিশ্চিত করে কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আমরা দুই অংশের পক্ষ থেকে আলাদা চিঠি পেয়েছি। যার কারণে বিষয়টি নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনের জন্য শুনানির সিদ্ধান্ত হয়েছে। ৬ এপ্রিল দুই পক্ষকে ডাকা হয়েছে।
কমিটি নিয়ে ইসির সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত জাসদের তৃতীয় ধাপের মনোনীতদের মনোনয়নপত্র স্থগিত হতে পারে বলেও জানা গেছে।
কমিশনের কর্মকর্তারা জানান, শুনানি নিয়ে ইসি সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করলে একটি অংশ মশাল প্রতীক নিয়ে নিবন্ধন টিকিয়ে রাখবে। অন্য অংশকে নতুন করে নিবন্ধন নিতে হবে, সেক্ষেত্রে নতুন নির্বাচনী প্রতীকও বেছে নিতে হবে তাদের।
এর আগে দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরিফ ‍নুরুল আম্বিয়ার স্বাক্ষরে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু গত ১২ মার্চ জাসদ জাতীয় সম্মেলনে দলটি বিভক্ত হয়ে যায়। পৃথক দুটি কমিটি গঠিত হয়।দুই অংশই নিজেদের মূল অংশ দাবি করে দলীয় প্রতীক চায় ইসির কাছে।

ইতোমধ্যে দুই অংশই তাদের নতুন কমিটির বিষয় অবহিত করে কমিশনকে আলাদা চিঠি দিয়েছে। তারা নির্বাচনে মনোনয়নে প্রত্যয়নকারীর নাম দিয়েও পৃথক চিঠি দেওয়ার পাশাপাশি তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে পৃথক স্বাক্ষরে মনোনয়ন দিতে শুরু করে। যার কারণে কমিশন জটিলতায় পড়ে।

ইএইচএস/এমএসএম

লাইভ

টপ