রাবি শিক্ষক রেজাউল হত্যা মামলা জড়িত সন্দেহে যুবক আটক, মামলা ডিবিতে

Send
রাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১২:২৮, এপ্রিল ২৪, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩৪, এপ্রিল ২৪, ২০১৬

অধ্যাপক এএফএম রেজাউল করিমরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার তমিজউদ্দিন সরদার এ তথ্য জানান।

শনিবার রাতে নগরীতে অভিযান চালিয়ে ওই যুবককে আটক করা হয়। মহানগর ডিবি কার্যালয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে তদন্তের স্বার্থে আটক যুবকের নাম পরিচয় জানাননি তিনি। এছাড়া অধ্যাপক রেজাউল হত্যা মামলা তদন্তের দায়িত্ব মহানগর ডিবি পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: খুন ফরিদপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আ’লীগ প্রার্থীর ভাই নিহত

তমিজউদ্দিন সরদার বলেন, ‘চাঞ্চল্যকর এ হত্যার ঘটনাকে পুলিশ সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এরই মধ্যে হত্যায় জড়িত সন্দেহে নগরীতে অভিযান চালিয়ে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। তবে তদন্তের স্বার্থে তার নাম পরিচয় এখনও প্রকাশ কার সম্ভব নয়।’

আরএমপি’র এ পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, ‘সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্তের জন্য  এরই মধ্যে মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুতই পুলিশ হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারবে।’

রবিবার সকাল ৯টায় হত্যা ঘটনার সার্বিক বিষয় তদারকির জন্য গঠিত ‘মনিটরিং টিম’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে ওই বৈঠক শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন আরএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার ও হত্যা ঘটনার মনিটরিং টিমের প্রধান তমিজউদ্দিন সরদার।

আরও পড়ুন: লাশ উদ্ধার রাজধানীতে নারীর দ্বিখণ্ডিত লাশ উদ্ধার

তবে মহানগর ডিবি পুলিশের ওসি খন্দকার জাহিদুল হাসানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি।

শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজশাহীর শালাবাগান এলাকায় নিজ বাসা থেকে একটু দূরে অধ্যাপক রেজাউলকে কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। এতে তার ঘাড়ে তিনটি বড় ধরনের কোপের আঘাত দেখা যায়। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এর প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক সমাবেশ করে রবিবার ধর্মঘটের ডাক দেয় রাবি শিক্ষক সমিতি ও ইংরেজি বিভাগ। পরে রাতে শিক্ষক সমিতির জরুরি সভায় টানা দুই দিনের ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এপিএইচ/

 

 

লাইভ

টপ