ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখে কবিতা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৫১, নভেম্বর ১০, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৭, নভেম্বর ১০, ২০১৮

‘ওগো নদী, আপন বেগে পাগলপারা, আমি স্তব্ধ চাঁপার তরু গন্ধভরে তন্দ্রাহারা’— রবীন্দ্রনাথের এই কথা দিয়েই শুরু করেন কবি শামীম রেজা। ‘এখনও কেন কবিতা’ শিরোনামের আলাপচারিতায় তাই স্বভাবতই উঠে আসে অমোঘ কিছু প্রশ্ন: কবিতা কী অথবা কেন কবিতা লেখা হয় কিংবা কবিতার প্রয়োজনীয়তা কি এখনও টিকে আছে?
ঢাকা লিট ফেস্টের তৃতীয় ও শেষ দিন শনিবার (১০ নভেম্বর) বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান মিলনায়তন কক্ষে দেশের প্রথিতযশা অগ্রজ কবি আসাদ চৌধুরি, রুবি রহমান, পশ্চিমবঙ্গের সুমন গুণ এবং ড. নিখিলেশ রায় মুখোমুখি বসেন কবিতা নিয়ে কথা বলতে। সেশনটির সঞ্চালনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু ইন্সটিটিউট অব কম্পারেটিভ লিটারেচার অ্যান্ড কালচার-এর পরিচালক ও কবি শামীম রেজা।




‘যে কবিতা শুনতে জানে না, সে ঝড়ের আর্তনাদ শুনবে’— কবি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহর এই দুটি পদ উচ্চারণ শেষে কবি আসাদ চৌধুরীর প্রথম কথাটিই বলেন, কবিতা আমাদের প্রত্যেকের মধ্যেই আছে। তার সাফ কথা, মানবমুক্তির শাশ্বত পথ হলো কবিতা। একমাত্র কবিতাই শেষ পর্যন্ত পথ দেখায়। মানবতার কোনও অবমাননা কবিরা মেনে নেন না। তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ তৈরির পরিস্থিতি যদি হয় কবিতাই তা ঠেকাবে— কবির দৃঢ়মূল বিশ্বাস।
উচ্ছ্বসিত হয়ে কবি বলেন, যতদিন জড়া-ক্লান্তি-ভয় থাকবে, ততদিন টিকে থাকবে কবিতা। ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখে কবিতা, কবি বলেন এ কথাও।
নিখিলেশ রায় মনে করেন, কবিতা একপ্রকার গোপন ভাষা। নিজেকে প্রকাশ করার মাধ্যম— প্রতিবাদী কণ্ঠকে অনুভব করা অথবা চারপাশের জীবন থেকে পালিয়ে থাকা। লিখতে যতটা পছন্দ করি, কবিতা নিয়ে বলতে তেমন সাচ্ছন্দ করি না, তিনি জানান। এখনও কেন কবিতা নয় বা এখন কবিতা না হলে কখন কবিতা হবে— এমন কৌতুকপূর্ণ কথাও ধ্বনিত হয় তার কণ্ঠে।
বেদনাহত বাল্মীকি আমাদের প্রথম কবি। কামমোহিত দুটি কোঁচবকের একটি যখন শিকারির তীরে মৃত্যুবরণ করে, সেই মৃত্যু বেদনার জন্ম দেয় বাল্মীকির মনে। আদিকবি মনে দুঃখ নিয়ে লিখে যান শ্লোক। তাই দুঃখই কবিতার জননী। কিছু রহস্য কিছু প্রহেলিকাই কবিতা, কিন্তু কবিতা কখনও ধাঁধা নয়, বলেন কবি রুবি রহমান। আমরা কি এমন কোনও স্তরে পৌঁছে গিয়েছি যে আমরা দুঃখ পাবো না? এমন জিজ্ঞাসাও রাখেন কবি।
কবিতা আমাদের জীবন থেকে সরিয়ে দিয়ে আবার জীবন ফিরিয়ে দেয়, কেননা পাঠ করার সময় পাঠক নিজেও হয়ে ওঠেন লেখক। কিন্তু প্রকলনের এত প্রতুলতা থাকতে ‘এখনও কেন কবিতা’, মত দেন সুমন গুণ। তিনি বলেন, যদিও কবিতা সিনেমার মতো কিংবা গান বা গল্পের মতো অতটা তাৎক্ষণিকভাবে পরিবর্তন করে ফেলতে পারে না মানুষের জীবন, কিন্তু যার কবিতা লেখার খিদে সে কবিতা লিখবেই এবং যার কবিতা পড়ার খিদে সে তা পড়বেই।
কবিরা মনে করেন, যেকোনও অন্যায়, মিথ্যা, আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কবিরাই সবার আগে এগিয়ে আসেন।
জীবনানন্দ দাসের ‘আট বছর আগের একদিন’ কবিতা নিয়ে বলতে বলতে শেষ হয় সুন্দর এই সেশনটি।

 

/এইচআই/

লাইভ

টপ