দৃষ্টি প্রতিবন্ধীকে ‘লাথি’, প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:২৩, মার্চ ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪৩, মার্চ ২০, ২০১৯

রাজু ভাস্কর্যের সামনে দুই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী (ছবি– প্রতিনিধি)ডাকসুর পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশন করায় রবিউল ইসলাম রুবেল নামের এক দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে লাথি মারার প্রতিবাদে আরও দুই দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নিয়েছেন। বুধবার (২০ মার্চ) দুপুরে সেখানে অবস্থান নেন তারা।

প্রতিবাদী এই দুই শিক্ষার্থী হলেন আমজাদ হোসেন ও বিএম রেজাউল হামিদ সিয়ায়। এ দুই শিক্ষার্থীর দাবি, চোখে আলো না থাকায় হামলাকারীকে চিনতে পারেননি রুবেল। তবে হামলাকারীকে শনাক্ত করে বিচারের আওতায় আনতে হবে।
প্রতিবাদী দুই শিক্ষার্থীর অভিযোগ, মঙ্গলবার দুপুরে সূর্যসেন হলের নিজ রুম থেকে সহপাঠীর রুমে যাওয়ার পথে রুবেলকে কেউ একজন পথরোধ করে জিজ্ঞাসা করেন তিনি পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশন করেছেন কিনা। জবাবে সম্মতিসূচক উত্তর দিলে রুবেলকে মারধর করেন ওই ব্যক্তি। হামলাকারীর নাম জিজ্ঞাসা করলে সে তা না বলে পালিয়ে যায়।

ঢাবির বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী আমজাদ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ডাকসুর পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অন্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী রবিউল অনশন করেন। এরপর তিনি হলে ফিরেন। কিন্তু অনশন করায় গতকাল দুপুরে তাকে একজন প্রথমে গালিগালাজ ও পরে পেছন থেকে লাথি মারে। এর প্রতিবাদে আমরা এখানে (রাজু ভাস্কর্যের সামনে) অবস্থান নিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ক্ষমতালোভীরা সবকিছু গায়ের জোরে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়। তারা একজন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর ওপরও আক্রমণ করে। আসলে কে প্রতিবন্ধী? যাদের মূল্যবোধ নেই, তারাই তো আসল প্রতিবন্ধী। এই মানুষগুলোর বিচারের দাবি জানাচ্ছি।’

এ ব্যাপারে মাস্টার দা সূর্যসেন হলের প্রাধ্যক্ষ এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ‘আমি ভুক্তভোগীকে অভিযোগ দিতে বলেছি। যেহেতু সে চোখে দেখতে পায় না, তাই হামলাকারীকে চিনতে পারেনি। অভিযোগ পেলে হামলাকারীকে শনাক্ত করে ব্যবস্থা নেবো।’

/এমএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ