পানির নিচে খুঁটিতে বাঁধা অবস্থায় মিলল ব্যবসায়ীর লাশ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৪৫, অক্টোবর ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫০, অক্টোবর ২১, ২০১৯

জাকির হোসেননিখোঁজের আট দিন পর রাজধানীর খিলগাঁওয়ের নগদারপার ঝিল থেকে পানির নিচে খুঁটির সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের (৪৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২১ অক্টোবর) বিকালে তার গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়। আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য রাতে লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

জাকির হোসেন খিলগাঁও নন্দিপাড়া দক্ষিণগাঁওয়েও মো. নাজিম উদ্দিনের ছেলে।

জাকির হোসেনের স্ত্রী কুলসুম বেগম বলেন, আমার স্বামী মাল্টিপারপাস ব্যবসা করতেন। গত সোমবার বিকালে বাসা থেকে বের হয়ে আর বাসায় ফেরেননি। বিকালে নগদারপাড় ঝিলে মৃতদেহের কিছু অংশ ভাসমান অবস্থায় দেখতে পেয়ে, লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আমাদের জানায়। পরে সেখানে গিয়ে স্বামীর মৃতদেহ দেখতে পাই।

তিনি অভিযোগ করেন, নিখোঁজের দিন দুই থানায় অভিযোগ দিতে গেলেও তারা তা নেননি। নিখোঁজের পরদিন, আমরা ঘটনাস্থলের পাশ থেকে তার মোবাইল ও স্পঞ্জ স্যান্ডেল পাই। পরে আশপাশে খোঁজ করেও তার সন্ধান পাইনি।

কুলসুম বেগম আরও বলেন, জাকির সম্প্রতি ব্যবসা বন্ধ করে দেন। তার বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরুর কথা ছিল। তিনি অনেকের কাছে টাকা পেতেন। প্রতিবেশীদের সঙ্গেও তার বিরোধ ছিল। প্রতিবেশীরা হুমকি দিয়েছিল কিভাবে তিনি (জাকির হোসেন) বাড়ি নির্মাণ করবেন তা দেখে নেবে। গত ৩ মাস আগে স্থানীয় লোকের সঙ্গেও আমার স্বামীর বিরোধ হয়। তারা তাকে গলায় ছুরিকাঘাত করে আহতও করেছিল।

তিনি দাবি করেন, জাকির হোসেনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

খিলগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মশিউর রহমান জানান, লাশ উদ্ধারের পর আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহটি ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, ওই পরিবারের সদস্যরা আমাদের কাছে নিখোঁজের পরদিন এসেছিল। আমরা জিডি নিয়েছি, তার তদন্ত চলছিল। তারা প্রথম দিন গিয়েছিল সবুজবাগ থানায়।

তিনি বলেন, পরিবারের লোকজন মর্গ থেকে ফিরলেই মামলা নেওয়া হবে।

 

/এআইবি/এআরআর/টিটি/

লাইভ

টপ