পুরোপুরি তারেক-নির্ভর বিএনপি, খালেদা জিয়ার মুক্তির অপেক্ষায় নেতারা

Send
সালমান তারেক শাকিল ও আদিত্য রিমন
প্রকাশিত : ২২:০০, মে ০১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:১২, মে ০২, ২০১৯





ছেলে তারেক রহমানের সঙ্গে খালেদা জিয়া (ফাইল ছবি)একাদশ জাতীয় নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান সত্ত্বেও সংসদে যোগ দেওয়ার পর এলোমেলো অবস্থায় পড়েছে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ না নেওয়ায় জ্যেষ্ঠ নেতারা পড়েছেন দোলাচলে। তারা বলছেন, দলের নির্বাচিত পাঁচজনের শপথগ্রহণ প্রক্রিয়া এবং মির্জা ফখরুলের শপথ না নেওয়ার বিষয়টি কেবল ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান জানেন। ফলে পরবর্তী বৈঠক না হওয়া পর্যন্ত এ ব্যাপারে তারা পুরোপুরি অন্ধকারেই থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে। এর মধ্যে খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে আলোচনা শুরু হওয়ায় পুরো পরিস্থিতি নিয়ে তৈরি হয়েছে আরও ধোঁয়াশা। তবে দলটির নেতারা তাদের নেত্রীর মুক্তির অপেক্ষায় আছেন।


বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দলের নিয়ন্ত্রণ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া পুরোপুরি তারেক রহমানের হাতে। এ কারণে কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির আগে বিএনপির ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক কৌশল নির্ধারণ প্রক্রিয়া নিয়ে কিছু বলতে পারছেন না তারা।
স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মির্জা ফখরুল শপথ গ্রহণ করেননি। তিনি করেননি কেন, সেটা তিনি জানবেন। আর আমাদের এখনও কোনও বৈঠক হয়নি, ফলে দলের নীতিনির্ধারণ বিষয়ে কিছু বলতে পারবো না।’
বিএনপির স্থায়ী কমিটির একটি সূত্র জানায়, আগামীতে বিএনপির যে কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে দলের স্থায়ী কমিটির সামনে দুই ধরনের পরিস্থিতি আসতে পারে। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যদি স্থায়ী কমিটির নেতাদের কাছে কোনও বিষয়ে মতামত চান, তাহলে সবাই ভালো-মন্দ যা-ই হোক খোলাখুলি মত দেওয়া হবে। আর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কোনও বিষয়ে মত চাইলে সেক্ষেত্রে ‘হালকা মতামত’ দিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার তার ওপরই ছেড়ে দেওয়া হবে।
শিগগিরই উপনির্বাচনের গেজেট, কে হবেন বিএনপি প্রার্থী?
গতকাল মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদে জানিয়েছেন, ৯০ দিনের মধ্যে শপথ না নেওয়ায় মির্জা ফখরুলের আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হলো।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্যের মন্তব্য, ‘মির্জা ফখরুলের শপথ না নেওয়াটা প্রমাণ করে সমঝোতায় সমস্যা হয়েছে। একই সঙ্গে স্পিকার দ্রুতগতিতে শূন্য ঘোষণা করার মধ্য দিয়ে সরকারের হার্ডলাইনের বিষয়টিও প্রমাণিত হয়। সেক্ষেত্রে পুরো বিষয়টি পরিষ্কার হতে আরও সময় লাগতে পারে।’
নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা আজ-কালের মধ্যেই সংশ্লিষ্ট আসনটিকে শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করবো। এই গেজেট প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন হবে।’
এক প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব জানান, ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রত্যেক প্রার্থীই নতুন প্রার্থীদের সঙ্গে উপনির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন।
বগুড়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন বলেন, ‘দল উপনির্বাচনে অংশ নেবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে আগে। তারপর কাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, যদি আমার কাছে জানতে চায়, তখন স্থানীয় নেতাকর্মীরা আলোচনা করে ঠিক করবো।’
স্থানীয় বিএনপির সূত্রে জানা গেছে, উপনির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে অনেকেই প্রার্থী হতে চাইবেন। এর মধ্যে আলোচনায় আছেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এ কে এম মাহবুবুর রহমান, বগুড়া জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশাহ এবং জেলার বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন।
তবে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ এর সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন। তিনি বলেন, ‘উপনির্বাচনে অংশ নেওয়ার কোনও প্রশ্নই আসে না। যদি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সম্ভাবনা থাকতো, তাহলে তো মির্জা ফখরুল শপথ নিতেন।’
সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী নিয়ে আলোচনা
নিয়ম অনুযায়ী সংসদে একটি সংরক্ষিত আসন পাবে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা। এই একটি আসনকে কেন্দ্র করে বিএনপিতেও যেমন আগ্রহ তৈরি হয়েছে, তেমনি ঐক্যফ্রন্টের কয়েকটি শরিক দলের নেতারা চান তাদের দল থেকে প্রতিনিধি দিতে।
বিএনপি থেকে ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা এবং সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়ার নাম আলোচনায় এসেছে। এ ছাড়া ঐক্যফ্রন্টের জেএসডি নেতা তানিয়া রবের নামও উচ্চারণ করেছেন একজন নেতা।
বিএনপির দায়িত্বশীল একটি সূত্র বলছে, খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার আগে উপনির্বাচন এবং সংরক্ষিত আসনের আলোচনা টেবিলেই উঠবে না।
বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন বাংলা ট্রিবিউনতে বলেন, ‘আমাদের কাছে এই মুহূর্তে জরুরি হচ্ছে ম্যাডাম খালেদা জিয়ার মুক্তি। এরপরই আমরা দলের কৌশল নিয়ে ভাববো।’ 

/এইচআই/

লাইভ

টপ