ওয়ানডেতে মাশরাফির প্রেরণা ‘লঙ্কা জয়’

Send
রবিউল ইসলাম, শ্রীলঙ্কা (কলম্বো) থেকে২১:৩০, মার্চ ২০, ২০১৭

কলম্বোতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন মাশরাফিতিন ফরম্যাটের মধ্যে বাংলাদেশ অনেকখানি এগিয়ে ওয়ানডেতে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এ ফরম্যাটে আগামী ২৫ মার্চ ডাম্বুলাতে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। নেতৃত্বে মুশফিকুর রহিমের দায়িত্ব আপাতত শেষ, এবার দায়িত্বটা মাশরাফি মর্তুজার। কলম্বোতে ‘লঙ্কা জয়ে’ উজ্জীবিত দলটি নিয়ে ওয়ানডেতে আশাবাদী অধিনায়ক।

মাশরাফির বিশ্বাস শততম টেস্টে সফলতার প্রভাব ইতিবাচকভাবে ওয়ানডে সিরিজে পড়বে, ‘অবশ্যই প্রভাব পড়া উচিত। ওয়ানডে স্কোয়াডের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই টেস্ট স্কোয়াডে ছিল। সুতরাং এমন একটি ম্যাচ জেতার পর মানসিকভাবে অনেকখানি এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ।’

শততম টেস্টে জয়ের পর দেশবাসীর মধ্যে প্রত্যাশা বেড়ে গেলেও সেটাকে চাপ হিসেবে নিচ্ছেন না মাশরাফি, ‘টেস্টের চেয়ে ওয়ানডেতে অবশ্যই প্রত্যাশা বেশি। আমাদের মতো সমর্থকদেরও তাই। লাল বল থেকে সাদা বলে আসা সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, মানসিকভাবে তৈরি হওয়াও। প্রত্যাশা তো অবশ্যই আছে। এজন্য ভালো খেলতে হবে। টেস্টেও আমরা শুরু থেকে ভালো খেলেছি, ফলাফল ভালো হয়েছে। ওয়ানডেতেও সেটার পুনরাবৃত্তি করার চেষ্টা করব।’

তামিম শেষ ইনিংসে অসাধারণ ব্যাটিং করেছেন। সৌম্য ফর্মে ফিরেছেন। মুশফিক ও সাকিব ফর্মে আছেন। ইমরুলের অফ ফর্ম থাকলে দলের বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানই ফর্মে আছেন। তবু মাশরাফির ভাবনা এই ব্যাটিং নিয়ে, ‘আমার মনে হয় ব্যাটিংটা একটু চিন্তা থাকতে পারে। কারণ ওদের কয়েকজন ভালো বোলার আছে। আর আমরা পাঁচটা টেস্ট খেলার পর সাদা বলে খেলব। এখন যেটা হবে, আমাদের রান বের করতে হবে। ওদের কিছু কঠিন বোলার আছে, তাদের কাছ থেকে রান বের করাটা কঠিন হবে। মানসিকভাবে স্বস্তিতে থাকতে পারলে এবং শুরুটা ভালো হলে সিরিজ জয় কঠিন হবে না।’

ক্রাইস্টচার্চ হয়ে কলম্বো, এর মধ্যে বাংলাদেশ পাঁচটি টেস্ট খেলেছে। যার মাঝে কোনও সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলেনি। আগামী শনিবার থেকে শুরু হওয়ার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এর প্রভাব কিছুটা হলে পড়তে পারে। মাশরাফি অবশ্য মনে করেন, ‘সেটা বড় কোনও সমস্যা নয়। মাঠে নিজেদের ক্ষমতা ঠিকমতো প্রয়োগ করতে হবে। আগেই বললাম, ওদের বোলারদের বিপক্ষে রান করতে হলে ভালো ক্রিকেটই খেলতে হবে।’

লঙ্কান চায়নাম্যান বোলার লাকশান সান্দাকান টেস্টেও বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নিয়েছেন। এছাড়া এই দলে লাহিরু কুমারার মতো বেশ কয়েকজন বোলারও আছে। লঙ্কান বোলারদের হুমকি হিসেবে দেখছেন মাশরাফি, ‘সান্দাকান আছে। প্রথম টেস্টে খেলেছে লাহিরু কুমারা। এ রকম আরও কয়েকজন আছে, যারা দারুণ কিছু করতে পারে।’

২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ ওয়ানডে সিরিজ ড্র করেছিল ১-১ ব্যবধানে। বাকি একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল। এবার আগের সুখস্মৃতি কতটা অনুপ্রাণিত করছে জানতে চাইলে মাশরাফি বলেছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে পেছনে কী হয়েছে সেটা থেকে সুবিধা পাই না। তবে কোনও খেলোয়াড় এসব থেকে অনুপ্রাণিত হলে অন্য কথা। আমার অতীত থেকে কোনও কিছু হয় না। আমি আগে অনেক অনেক ম্যাচ হেরে এসেছি। এর মানে এটা নয় যে আমি জিততে পারব না।’

/আরআই/এফএইচএম/

লাইভ

টপ