ইতিহাস গড়তে অ্যাতলেতিকোর সামনে মার্শেই

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:৩০, মে ১৬, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:১৪, মে ১৬, ২০১৮

মার্শেইর বিপক্ষে মাঠে নামবে অ্যাতলেতিকো

২০০৫ সালের পর ইউরোপিয়ান কোনও টুর্নামেন্টের ফাইনালে ফরাসি দল মার্শেই। এতদিন পর ফাইনালের টিকিট কেটে ইতিহাস গড়তে চান মার্শেই অধিনায়ক দিমিত্রি পায়েত।  ইতিহাসের খবর শুনে চমকে যাওয়ারই কথা! কারণ এখনও যে ফরাসি কোনও ক্লাবের জেতা হয়নি ইউরোপা লিগ।  অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচটি শুরু হবে বুধবার দিবাগত রাত পৌনে একটায়।

২০০৫ সালের উয়েফা কাপেও হতাশার গল্প লিখতে হয়েছিল মার্শেইকে। সেবার ভ্যালেন্সিয়ার কাছে হেরে যেতে হয়েছিল। তাই এতদিন পর পুনরায় শিরোপা জেতার সুযোগ পেয়ে দিনটাকে স্মরণীয় করে রাখতে চান মার্শেই অধিনায়ক, ‘আমরা বিশ্বাস করি এই মৌসুমে নিজেদের সত্যিকারের দল হিসেবেই চেনাতে পেরেছি।’

ফাইনালে অবশ্য প্রেরণার নুড়ি খুঁজতে ১৯৯৩ সালে ফিরে গেছেন পায়েত। সেবার দুর্দান্তভাবে খেলে মিলানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছিল মার্শেই। সেই ম্যাচের মতোই এমন কিছু করে ইতিহাস গড়তে প্রত্যয়ী পায়েত, ‘যারা ১৯৯৩ সালে চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছিল তারা সবাই নায়ক। কারণ তাদের মতো এমন কেউ করতে পারেনি। আমরা জানি এবার বিষয়টা কতটা কঠিন। তাই সেখান থেকেই বাড়তি প্রেরণা নিচ্ছি।  ফাইনালে জিততে পারলে ক্লাবের ইতিহাসে আমাদের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।’

অ্যাতলেতিকোকে কাগজে কলমে বলা হচ্ছে ফেভারিট। এই টুর্নামেন্টেও জেতার রেকর্ডটা আছে ২০১০ ও ২০১২ সালে। একই সঙ্গে আন্তোয়ান গ্রিয়েজমানের দিকেও তাকিয়ে থাকবে অ্যাতলেতিকো। এবারই হয়তো মৌসুম শেষে ক্লাবকে বিদায় বলে দেবেন।

হতাশার খবর হলো আর্সেনালের বিপক্ষে রেফারির সঙ্গে অশোভন আচরণের দায়ে ফাইনালে কোচকে ছাড়া নামতে হবে তাদের। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে  এমন কাণ্ড করে চার ম্যাচের নিষেধাজ্ঞায় রয়েছেন কোচ ডিয়েগো সিমিওনে। তাই সহকারী কোচকে নিয়েই রণ কৌশলে সাজাবে অ্যাতলেতিকো।

/এফআইআর/

লাইভ

টপ