বঙ্গবন্ধু বিপিএলে স্থানীয় কোচদের জায়গা নেই!

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৫৬, অক্টোবর ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৫৬, অক্টোবর ১০, ২০১৯

স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বৈঠক শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি মাহবুব আনাম (মাঝে)মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের হাত ধরে দুইবার বিপিএলের শিরোপা জিতেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। সাফল্য পাওয়া এই কোচের জায়গা হচ্ছে না বঙ্গবন্ধুর নামে ‘বিশেষ’ বিপিএলে! শুধু তিনি নন, স্থানীয় কোনও কোচই  থাকছেন না সংশয়ের বাতাসে দুলতে থাকা কুড়ি ওভারের টুর্নামেন্টে।

বৃহস্পতিবার আগ্রহী স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বৈঠক শেষে এমনটাই জানিয়েছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের মুখপাত্র মাহবুব আনাম। বিপিএলের সপ্তম আসরে ‘আন্তর্জাতিক কোচ’ নিয়োগের কথা শুনিয়েছেন তিনি, ‘আমরা প্রতিটি দলে আন্তর্জাতিক কোচ নিয়োগ দেবো। যে সব কোচ বিপিএলে অন্তর্ভুক্ত হতে চেয়েছে, তারা নাম পাঠিয়েছে। আশা করি খুব দ্রুত কোচের পাশাপাশি ফিজিও, ট্রেনার এবং আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়দের অন্তর্ভুক্ত করতে পারব।’

সালাউদ্দিন ছাড়াও বিপিএলে দায়িত্ব পালন করেছেন সারোয়ার ইমরান। রাজশাহী কিংসের কোচের দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। বিদেশি কোচের প্রতি বিসিবির আগ্রহে কপাল পুড়তে যাচ্ছে তাদের।

বঙ্গবন্ধুর নামে হতে যাওয়া বিপিএলে আরও নতুন নিয়ম যোগ করছে বিসিবি। যার মধ্যে রয়েছে প্রত্যেক দলে স্থানীয় একজন লেগ স্পিনার খেলানোর বাধ্যবাধকতা। এই নিয়ম চালু করলে সাত দলে সাত লেগ স্পিনারের প্রয়োজন পড়বে। এখন প্রশ্ন হলো, স্থানীয় এত লেগ স্পিনার মিলবে কোথায়?

শুধু তা-ই নয়, লেগ স্পিনার যেন বোলিং ঠিকমতো করতে পারে, সেটাও পর্যবেক্ষণ করবে বিসিবি। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান শেখ সোহেল জানিয়েছেন তেমনটাই, ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএলে আমরা কিছু বাধ্যবাধকতা দিয়ে দেবো। বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা যদি পজিশন মতো ব্যাটিং ও ঠিকমতো বোলিং করতে না পারে, তাহলে তো এই টুর্নামেন্টের সার্থকতা কমে যাবে। আমরা লেগ স্পিনার খুঁজছি। প্রতিটি দলকে একজন লেগ স্পিনার খেলাতেই হবে এবং তাকে বাধ্যতামূলক ৪ ওভার বোলিং করাতে হবে।’

নতুন পদ্ধতির বিপিএলে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে যাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। এবারের আসর লক্ষ্য করেই সাকিব আল হাসানকে চড়া দামে দলে ভিড়িয়েছিল রংপুর রাইর্ডাস। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে নতুন মেয়াদে চুক্তি না হওয়ায় সাকিব-রংপুরের চুক্তি বৈধতা পায়নি। তার মতো অনেক ক্রিকেটারই পড়তে যাচ্ছেন আর্থিক ক্ষতির মুখে।

যদিও মাহবুব আনাম টাকা নিয়ে ‘ভয়’ না পাওয়ার কথা শুনিয়েছেন, ‘ভালো খেললে টাকা তাদের (ক্রিকেটার) পেছনেই দৌড়াবে। খেলোয়াড়দের ভয়ের কিছু নেই। সবকিছু দেশের ও তাদের কথা ভেবেই করছি। সম্মানজনক তো অবশ্যই থাকবে।’

/আরআই/কেআর/

লাইভ

টপ