Vision  ad on bangla Tribune

যেমন ছিল সেকালের ফেসবুক!

আশিকুর রহমান চৌধুরী।১৭:৩৬, মার্চ ১১, ২০১৬

সেকালের ফেসবুক-১

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন ছেলের হাতের মোয়া। এক বাক্যে সবাই চেনে ফেসবুক, টুইটার, ভাইবার, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ। কিন্তু এর আগে কী ছিল? ছিল অনেক কিছুই। তবে সেগুলোর গণ্ডি ছিল সীমিত। সেকালের ছোটখাটো সেসব সামাজিক মাধ্যমগুলোর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো 

লাইন ফর হ্যাভেন

শুধু খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের জন্য এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। যার বেশি পয়েন্ট তিনি এগিয়ে থাকবেন এই প্রতিযোগিতায়। পয়েন্ট নির্ধারণ হয় তার কাজ, খেলা, প্রার্থনার ওপর।

নেক্সটডোর

যদিও বেশিরভাগ সামাজিক নেটওয়ার্কস মানুষ ব্যবহার করে সারা বিশ্বের সাথে যোগাযোগ ও বিজ্ঞাপনের মাধ্যম হিসেবে। কিন্তু নেক্সটডোর ওয়েব সাইটটি তৈরি করা হয় শুধু ব্যবহারকারীর প্রতিবেশি এবং পাশের এলাকায় যারা আছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য। তাদের উদ্দেশ্য হলো স্থানীয় ব্যবসা, প্রয়োজনীয় পণ্য এবং অপরাধ সম্পর্কিত তথ্য প্রদান। তাদের মতে সীমাবদ্ধ নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা রক্ষা করতে সাহায্য করে।

জিট্রেন্ড

এটিও একটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম কিন্তু মজার। এখানে করা হয় ভবিষ্যৎ বাণী। মানে হচ্ছে, যারা এর সদস্য তারা দৈনন্দিন জীবন থেকে শুরু করে অর্থনীতি সব বিষয়ের ওপর ভবিষ্যৎ বাণী দেয়। এরপর প্রতিটি ভবিষ্যৎ বাণীর ওপর ভোট আহবান করা হয়। তারপর অ্যালগোরিদম প্রোগ্রামিং ব্যবহার করে সবচেয়ে বেশি ভোটপ্রাপ্ত ভবিষ্যৎ বাণীগুলোকে আলাদা করা হয় এবং সম্ভাব্য ফল দেওয়া হয়।

সেকালের ফেসবুক-২

ধনীদের জন্য অফফ্লুয়েন্স

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে ‘অফফ্লুয়েন্স’ কিছুটা ভিন্ন। অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমগুলোতে যেমনি চাইলেই যে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায় তেমনি এখানেও খুঁজে পাবেন বিশেষ কাউকে, তবে শর্ত সাপেক্ষে। প্রথমত আপনাকে হতে হবে সদস্য। যেকেউ চাইলে সদস্য হতে পারবে। কিন্তু তার আগে দিতে হবে ব্যক্তিগত সম্পত্তির বিবরণ। থাকতে হবে ২ লাখ ডলার বার্ষিক আয় অথবা ১ মিলিয়ন ডলার মোট সম্পত্তি। তবে যদি টাকা না-ও থাকে চিন্তা করবেন না সদস্য হওয়ার অন্য উপায় আছে। যদি এখানকার ৫ সদস্য আপনাকে ভোট দেয়।

আ স্মল ওয়ার্ল্ড

অফফ্লুয়েন্স থেকেও এগিয়ে আ স্মল ওয়ার্ল্ড। এখানে সদস্য হতে শুধু টাকাই নয়, সঙ্গে লাগবে কলেজ ডিগ্রি ও বর্তমান কোনও সদস্যের আমন্ত্রণপত্র। আ স্মল ওয়ার্ল্ড নেটওয়ার্কটি আসলে আভিজাত্যের সাইবার প্রতীক। এখানের সদস্যরা বিভিন্ন অফার পেয়ে থাকে যেমন বিলাসবহুল হোটেল, রেস্টুরেন্ট, ভ্রমণের সুযোগ। সঙ্গে রয়েছে এক্সক্লুসিভ নাইটক্লাবে প্রবেশ ও প্রধান শহরগুলোতে বিভিন্ন সেবা ফ্রি। তবে সদস্যদের গুনতে হয় বার্ষিক ১১০ ডলার ফিস।

/এইচএএইচ/

samsung ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ