X
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

‘সৌদি আরবে নারী শ্রমিক যেতে বাধা দেবে না সরকার’

আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:২৬

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন (ছবি: হারুন উর রশীদ) নির্যাতিত হয়ে এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে লাশ হয়ে সৌদি আরব থেকে ফেরত আসছেন বাংলাদেশের নারী শ্রমিকরা। তবে এরপরও সৌদি আরবে নারী শ্রমিকদের যেতে বাধা দিতে রাজি নয় সরকার। বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সরকারের এ অবস্থানের কথা জানান।

এ কে আব্দুল মোমেন তার দফতরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা নারীদের পেছনে ফেলে রাখতে চাই না। নারীরা যদি যেতে চান, আমরা বাধা দিতে চাই না। আমাদের দেশে নারী-পুরুষ সমান। নারীদের আমরা সেকেন্ড ক্লাস সিটিজেন হিসেবে রাখতে চাই না।’

সৌদি আরবে বাংলাদেশি নারীদের নির্যাতন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এখন আড়াই লাখ থেকে তিন লাখ শ্রমিক আছে। এর মধ্যে কয়জন এ ধরনের শিকার হচ্ছে?’

অনেক লোক গেছে এবং কিছু লোক ওখানে নির্যাতিত হচ্ছে। এজন্য নির্যাতিতদের জন্য বিশেষ অ্যারেঞ্জমেন্ট করা হয়েছে। তাদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং তাদের ফেরত নিয়ে আসা হচ্ছে বলে তিনি জানান।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তারা (নারী শ্রমিক) অন্দরমহলে কাজ করেন এবং সেখানে যে দুর্ঘটনা হয় সে বিষয়ে সরকারকে বললে তারা সঙ্গে সঙ্গে অ্যাকশন নেয়। তবে অনেক সময়ে তারা কোনও অভিযোগ করে না।’
তিনি বলেন, ‘যখনই কোনও দুর্ঘটনা ঘটে, সঙ্গে সঙ্গে আমরা সৌদি সরকারকে তা জানাই। অনেক সময় ওখানে তথ্যগুলো পাওয়া যায় না।’ তারা ফেরত এসে অভিযোগ করে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন...


সৌদি থেকে নারী শ্রমিকদের দেশে ফেরার আকুতি (ভিডিও)

/এসএসজেড/এইচআই/

সম্পর্কিত

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

বাংলাদেশের চামড়াজাত ও সিরামিক পণ্যে আগ্রহ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীদের

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৪১

বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্য এবং সিরামিক পণ্য আমদানি করতে আগ্রহী দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীরা। এছাড়া খাদ্য সামগ্রীর বিষয়ে আগ্রহ রয়েছে ব্যবসায়ীদের।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে আয়োজিত ইমপোর্ট গুড ফেয়ারে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ। সেখানে তৈরি পোশাক, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক পণ্য, হস্তশিল্প যেমন‑ পিতলের পণ্য, ঐতিহ্যবাহী পুতুল ইত্যাদি প্রদর্শন করা হয়।

বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে শনিবার (২৪ জুলাই) পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা ও সম্ভাবনাময় আমদানিকারকরা বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্য এবং সিরামিক পণ্য সম্পর্কে গভীর আগ্রহ দেখান। এছাড়া, অর্গানিক খাদ্য সামগ্রী, যেমন- মিশ্রিত বাদাম, মধু, মরিঙ্গা চা ও ঘি দর্শনার্থীদের আকর্ষণ করে।

মেলার উদ্বোধনের পরে রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম কোরিয়ান ইমপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান, দক্ষিণ কোরিয়ার বাণিজ্য, শিল্প ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক এবং অন্যান্য রাষ্ট্রদূতগণকে বাংলাদেশের স্টল পরিদর্শনের জন্য আমন্ত্রণ জানান এবং তাদেরকে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প পণ্য উপহার প্রদান করেন।

এ রকম মেলায় অংশগ্রহণ দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে বলে মনে করে দূতাবাস।

/এসএসজেড/এমএস/

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৩০

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক জানিয়েছেন , বিভিন্ন উৎস থেকে আমরা যে ভ্যাকসিনের প্রতিশ্রুতি পেয়েছি এবং কিনেছি তার সংখ্যা ২১ কোটি। অর্থাৎ এখন পর্যন্ত ২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করেছি। সময়মতো পেলে বাংলাদেশ কোনও দেশ থেকে ভ্যাকসিনে পিছিয়ে থাকবে না। যথাসময়ে ৮০ শতাংশ জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনা যাবে।

শনিবার (২৪ জুলাই) বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালগুলোর সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, রাশিয়ার ১ কোটি ডোজ স্পুটনিক ভি,  চীনের সিনোফার্মের ৩ কোটি ডোজ, অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৩ কোটি, কোভ্যাক্সের আওতায় ৭ কোটি ও জনসন অ্যান্ড জনসনের ৭ কোটি ডোজ টিকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী ২৬ বা ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে আরও ৩০ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা দেশে আসবে। টিকা সংরক্ষণে ২৬টি কোল্ড ফ্রিজার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে আনা হয়েছে। এগুলোয় মাইনাস ৭০ ডিগ্রিতে রাখার মতো টিকাও সংরক্ষণ করা যাবে। বিভিন্ন দেশ থেকে নতুন করে আরও যে টিকা আসবে, সেগুলো সংরক্ষণ করতে কোনও সমস্যা হবে না।

তিনি আরও বলেন, গ্রামে বয়স্ক লোকজনকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে টিকা দেওয়া হবে। আমরা নির্দেশনা দিয়েছি। শিক্ষক-ছাত্রদেরও অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। সম্মুখসারির যোদ্ধা যারা তাদের পরিবারের ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে সেটি দ্রুত চালু হয়ে যাবে বলে আমি আশা করছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালের তথ্য বলছে যারা ভর্তি হচ্ছে ৯০ শতাংশই ভ্যাকসিন নেয়নি। না নেওয়ার কারণে তারা সংক্রমিত হয়ে অসুস্থ হয়েছে। তাদের মধ্যে গ্রামের মানুষ বেশি। ঢাকায় যারা চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের শতকরা ৭৫ ভাগই প্রত্যন্ত এলাকার। তাদের বেশিরভাগই ভ্যাকসিন নেয়নি এবং বয়স্ক মানুষ। গ্রামের বয়স্ক মানুষদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যদি আমরা ভ্যাকসিন দিতে পারি , তাহলে রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা কমবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এ বি এম খুরশিদ আলম,  বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এম এ মুবিন খান ও সাধারণ সম্পাদক ড. আনোয়ার হোসেন খান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

বয়স ৩০ বছর হলে নেওয়া যাবে টিকা

বয়স ৩০ বছর হলে নেওয়া যাবে টিকা

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৭

চলতি সপ্তাহে ঈদুল আজহার ছুটিতে দেশে করোনাভাইরাস শনাক্তে নমুনা পরীক্ষা কমেছে। আর তাতে কমেছে শনাক্তের সংখ্যাও।

আজ শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা, শনাক্তের সংখ্যা, সুস্থতার সংখ্যা ও মৃত্যু সংখ্যা বিশ্লেষণে এ তথ্য জানিয়েছে।

অধিদফতর জানায়, চলতি সপ্তাহে (১৮ জুলাই থেকে ২৪ জুলাই) দেশে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২ লাখ ২ হাজার ১১৩টি। আর গত সপ্তাহে (১১ জুলাই থেকে ১৭ জুলাই) নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল ২ লাখ ৮৪ হাজার ৪২৯টি। অর্থ্যাৎ গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে নমুনা পরীক্ষার হার কমেছে ২৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

সেই সঙ্গে চলতি সপ্তাহে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৬০ হাজার ৯৩৩ জন আর গত সপ্তাহে রোগী শনাক্ত হয়েছিলেন ৮৩ হাজার ৯৬ জন। গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে রোগী শনাক্তের হার কমেছে ২৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

চলতি সপ্তাহে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে ১ হাজার ৩৭৭ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। গত সপ্তাহে মারা গিয়েছিলেন এক হাজার ৪৮০ জন। চলতি সপ্তাহে গত সপ্তাহের তুলনায় মৃত্যুহার কমেছে ছয় দশমিক ৯৬ শতাংশ।

তবে নমুনা পরীক্ষার হার, শনাক্তের হার এবং মৃত্যুহার কমলেও গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে রোগী সুস্থ হয়েছেন বেশি। চলতি সপ্তাহে ৬৫ হাজার ১৭৬ জন সুস্থ হয়েছেন আর গত সপ্তাহে সুস্থ হয়েছিলেন ৫৫ হাজার ২৪ জন। অর্থ্যাৎ, গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে সুস্থতার হার বেড়েছে ১৮ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

/জেএ/ ইউএস/

সম্পর্কিত

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে কাল

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে কাল

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে কাল

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:০৭

ভারত থেকে ২০০ টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে। শনিবার ভারতীয় দূতাবাসের ফেসবুক পেজে এক পোস্টে এ কথা জানানো হয়।

পোস্টে বলা হয়, কোভিড-১৯ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রচেষ্টায় সহায়তা হিসেবে ভারত সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের প্রথম আন্তঃসীমান্ত অক্সিজেন এক্সপ্রেসের মাধ্যমে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন ভারত থেকে আগামীকাল (২৫ জুলাই) বেনাপোল পৌঁছাবে।

এর আগে ঈদের দিন বুধবার ভারত থেকে ১৮০ টন তরলীকৃত অক্সিজেন বেনাপোল বর্ডার দিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। করোনা পরিস্থিতিতে একটি গ্রিন করিডোর ব্যবহার করা হয়েছে এই আমদানির জন্য। দুই স্থলবন্দরের কর্মকর্তাদের সহায়তায় ঈদের দিন এই অক্সিজেন বাংলাদেশে এসেছিল।

/এসএসজেড/এফএ/

সম্পর্কিত

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

সরকারি হাসপাতালে ফাঁকা আইসিইউ বেড কমে ৪৫

সরকারি হাসপাতালে ফাঁকা আইসিইউ বেড কমে ৪৫

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৭

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে আরও ১৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আর এতে দেশে করোনা মহামারিকালে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১৯ হাজার ছাড়ালো। এ নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে ভাইরাসটিতে মোট ১৯ হাজার ৪৬ জনের মৃত্যু হলো।

আজ শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে গত ১৯ জুলাই মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ছাড়ায়। এর মাত্র পাঁচদিনের মাথায় পরবর্তী এক হাজার মৃত্যু দেখলো বাংলাদেশ; যেসময় দেশে ঈদুল আজহার ছুটি চলছিল।

টানা কয়েকদিন সংক্রমণ শনাক্ত ও মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতির পর গত ২১ জুলাই ঈদের পর থেকে নমুনা পরীক্ষা কিছুটা কমায় শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যাও কিছুটা কমে। গতকাল শুক্রবারও (২৩ জুলাই) ১৬৬ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছিল। আজ তা বেড়ে ১৯৫ এ দাঁড়িয়েছে। 

মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি শনাক্তও বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৬ হাজার ৭৮০ জনের শরীরে ভাইরাসটির উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। গতকাল এই সংখ্যা ছিল ৬ হাজার ৩৬৪ জন। এ নিয়ে দেশে করোনারোগী শনাক্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল সাড়ে ১১ লাখ। সরকারি হিসেবে দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে শনাক্ত রোগী হলেন ১১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৪৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৭২৩ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা থেকে সুস্থ হলেন ৯ লাখ ৮৮ হাজার ৩৩৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ২০ হাজার ৫৩৬টি আর পরীক্ষা হয়েছে ২০ হাজার ৮২৭টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৭৪ লাখ ১৭ হাজার ৬৯৪টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৫৪ লাখ ৪৯ হাজার ৮৬৭ টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ৮২৭টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা বিবেচনায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৫৫ শতাংশ। আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ আর মৃত্যুহার এক দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ১৯৫ জনের মধ্যে পুরুষ ১০৩ জন আর নারী ৯২ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাতে আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মোট মারা গেলেন ১৩ হাজার ৭৪ জন আর নারী মারা গেলেন ৫ হাজার ৯৭২ জন।

মৃতদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গেল ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে তিনজন শিশু এবং এক শতবর্ষী বৃদ্ধ রয়েছেন। শিশুদের মধ্যে একজনের বয়স ১০ এর নিচে এবং দুজনের বয়স ১০ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। আর শতবর্ষী ওই বৃদ্ধের বয়স ১০০-রও বেশি। এ ছাড়া ৯১ থেকে ১০০ বছর বয়সসীমার মারা গেছেন দুজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৩৪ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৪৭ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৪৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩১ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সসীমার ১৬ জন রোগী মারা গেছেন।

তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা রয়েছেন ৬৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৩৬ জন, রাজশাহী বিভাগের ১৮ জন, খুলনা বিভাগের ৪১ জন, বরিশাল বিভাগের পাঁচজন, সিলেট বিভাগের একজন, রংপুর বিভাগের ১৬ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের মারা গেছেন ১০ জন।

আর ১৯৫ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১৫৯ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৩১ জন আর বাড়িতে থেকে মারা গেছেন পাঁচজন।

/জেএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে কাল

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে কাল

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

সর্বশেষ

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনকে মাথায় রেখে ভারত আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পদ্মা সেতু এড়িয়ে ফেরি চলার কোনও সুযোগ নেই

পদ্মা সেতু এড়িয়ে ফেরি চলার কোনও সুযোগ নেই

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

আইসিইউ ফাঁকা আছে মাত্র ৩৮টি

করোনাভাইরাসআইসিইউ ফাঁকা আছে মাত্র ৩৮টি

বাংলাদেশের চামড়াজাত ও সিরামিক পণ্যে আগ্রহ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীদের

বাংলাদেশের চামড়াজাত ও সিরামিক পণ্যে আগ্রহ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীদের

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

শীতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট আসবে! আশঙ্কা ফরাসি বিশেষজ্ঞের

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

ফতুল্লায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

ফতুল্লায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

‘অন্য দেশে স্বাস্থ্যকর্মীদের স্যালুট দেয়, আর আমাদের দেশে অপমান’

‘অন্য দেশে স্বাস্থ্যকর্মীদের স্যালুট দেয়, আর আমাদের দেশে অপমান’

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

‘কঠোরতম’ লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে

গণসংগীতের জন্য ফকির আলমগীর স্মরণীয় হয়ে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

গণসংগীতের জন্য ফকির আলমগীর স্মরণীয় হয়ে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টিন বাতিল, আর কত হারাবেন তারা?

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

‘ফলাফল দেখা যাবে পরের সপ্তাহে, পরিস্থিতি সামলানো যাবে না’

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

কঠোর বিধিনিষেধ শুরু

© 2021 Bangla Tribune