সেকশনস

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ

টাকা ছাড়া মিলছে না প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৪৯

সূর্য তখন ঠিক মাথার ওপরে। জরাজীর্ণ ঝুপড়ি ঘরের সামনে বসে চকচকে টিনশেড সেমিপাকা ঘরের দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে দীর্ঘশ্বাস নিচ্ছিলেন জাহেদা বেগম। ভেবেছিলেন প্রধানমন্ত্রী উপহার হিসেবে সারি সারি দাঁড়িয়ে থাকা ঘরগুলোর একটা দেওয়া হবে তাকেও। কিন্তু দুর্ভাগ্য ১০ হাজার টাকা দিতে না পারায় ঘরের বরাদ্দ পাননি তিনি।

বুধবার কক্সবাজারের টেকনাফ হ্নীলা মৌলভিবাজার থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার ভেতরে সীমান্ত সড়কের কাছাকাছি ভূমিহীন-গৃহহীনদের জন্য তৈরি নতুন ঘরের পাশে নিজের পলিথিনের ঝুপড়ি ঘরের সামনে বসে এমন অভিযোগ করেন জাহেদা বেগম। তিনি ওই এলাকার ইউনুছ উদ্দিনের স্ত্রী। ঘর বরাদ্দের তালিকায় তাদের নাম ছিল, কিন্তু দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় ঘর মেলেনি বলে অভিযোগ জাহেদা বেগমের। 

জাহেদা বেগম

তিনি বলেন, ‘জাহাঙ্গীর আলম নামে এক ব্যক্তি ঘর বরাদ্দের জন্য ১০ হাজার টাকা দাবি করেছিল। কিন্তু টাকা দিতে না পারায় ঘর পাইনি। তাছাড়া মালামাল বহন খরচের টাকাও দিতে পারেনি। বিনা টাকার ঘর, টাকা দিয়ে নিতে হবে—এটা কেমন বিচার? যারা টাকা দিয়েছে তারা ঘর পাচ্ছে। জাহাঙ্গীর অনেকের কাছে টাকা নিয়েছে।’   

উল্লেখ্য, ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, গৃহহীন থাকবে না একটি পরিবার’ এই স্লোগান বাস্তবায়নে আগামী শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে প্রথম পর্যায়ে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় হতদরিদ্র গৃহহীন ৫০ পরিবারকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে একটি করে ঘর। কিন্তু বিনামূল্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় তৈরি করে ঘর বুঝিয়ে দেওয়ার কথা থাকলেও অনেক সুবিধাভোগীর কাছ ১৫ থেকে ২০ হাজার করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এক মৎস্যজীবী নেতার বিরুদ্ধে।

সুবিধাভোগীরা বলছেন, উপজেলা প্রশাসন থেকে ঘরগুলো দেখভালের দায়িত্ব পাওয়ার কথা বলে মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম নামে এক ব্যক্তি ঘর বরাদ্দের জন্য তাদের কাছ থেকে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছে। এছাড়া প্রত্যেকের কাছ থেকে ঘর নির্মাণের মালামাল বহন খরচ হিসেবে নিয়েছে ১০ থেকে ১৪ হাজার টাকা।

জানা গেছে জাহাঙ্গীর বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী জেলে সমিতির হ্নীলা মৌলভীবাজার ২ নং ওয়ার্ডের সভাপতি। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তাদের নাম ভাঙিয়ে টাকা হাতিয়ে নেন। এমনকি টাকা না দিলে ঘর দেওয়া হবে না বলেও হুমকি দিয়েছিল। তার কারণে ঘর বরাদ্দ পায়নি বলে দাবি করেন ওই জাহেদা বেগম । ঘরে দুটি রুম, একটি করিডোর, একটি বাথরুম ও একটি রান্নাঘর থাকার কথা থাকলেও বাথরুম নির্মাণ করা হয়নি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জানা গেছে, মুজিববর্ষে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারসহ মোট ২২৯টি ঘর বরাদ্দ এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অর্থায়নে প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। তবে প্রথম পর্যায়ে ৫০টি পরিবারকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে। ঘরের সব কাজ শেষ হয়েছে। আগামী শনিবার সুবিধাভোগীদের ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভী বাজার থেকে পূর্ব দিকে দেড় কিলোমিটার ভেতরে সীমান্ত সড়কের কাছাকাছি সরকারি উদ্যোগে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে মুজিব শতবর্ষে ‘ভূমিহীন ও গৃহহীন’ অর্থাৎ ‘ক’ শ্রেণির দুর্যোগ সহনীয় ২৮টি টিনশেড পাকা ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। সেখানে আশে পাশে অহস্থায়ী পলিথিন ছাউনিতে বসতি করছে ‘ভূমিহীন ও গৃহহীন’ সুবিধাভোগীরা।

জালাল উদ্দিন

এসময় জালাল উদ্দিন নামে এক সুবিধাভোগী জানান, ‘টমটম চালিয়ে সীমান্তের বেড়িবাঁধে ঝুপড়ি ঘরে কষ্টের জীবন যাপন করতাম। সীমান্ত সড়ক নির্মাণ কাজ শুরু সেখানে থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। এরপর ভূমিহীন ও গৃহহীন হয়ে পরি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিকতায় সীমান্ত সড়কের পাশে আমাদের তিন শতক জমিসহ সেমিপাকা একটি করে ঘর বরাদ্দ দেয়। তবে এই ঘর বরাদ্দে নাম ভাঙিয়ে মো. জাহাঙ্গীর আলম ১০ হাজার টাকা নিয়েছে। এছাড়া ঘর নির্মাণের মালামাল বহন খরচের জন্য ১১ হাজার টাকা দিতে হয়েছে। এরপরও ঘরগুলোর টয়লেট নির্মাণ করেনি। তবু প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই একটি করে নতুন ঘর দেওয়ার জন্য।’

আরেক অসহায় সুবিধাভোগী নুর বেগম জানান, আমাকে হুমকি দিয়ে ১৫ হাজার করে টাকা নেওয়া হয়েছে। কেউ গবাদিপশু বিক্রি করে, কেউ শেষ সম্বল একমাত্র ফসলের জমি বন্ধক রেখে, কেউ স্ত্রীর গহনা বিক্রি করে আবার কেউ ঋণ নিয়ে জাহাঙ্গীরকে টাকা দিয়েছেন। বিষয়টি সাংবাদিকদের অবহিত করায় জাহাঙ্গীরের লোকজন আমাদের হুমকি ধমকি দিচ্ছে।   

টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় মারধরের হুমকি দিয়েছিল অভিযোগ করে সুবিধাভোগী হাবিব উল্লাহ জানান, ‘ওপরমহলে টাকা দিতে হবে, না হলে ঘর পাবে না’—শুরুতে এমন হুমকি পান জাহাঙ্গীরের কাছ থেকে। পরে কোনও উপায়  পেয়ে টাকা দিতে বাধ্য হয়েছেন। তিনি বলেন,  ঘরের জন্য ৩৮ হাজার টাকা নিয়েছে সে। এর মধ্যে ঘর বরাদ্দের ১০ হাজার টাকা এবং বাকি টাকা মালামাল খরচ বহনে। এরা কেমন মানুষ অসহায়দের জন্য প্রধানমন্ত্রী বিনা টাকায় ঘর বরাদ্দ দিলেও সেখানে মিলেমিশে টাকা খাচ্ছে সবাই।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘ঘর বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলে কারো কাছ থেকে কোনও টাকা নেইনি। তবে মালামাল বহন খরচের জন্য প্রত্যেকের কাছ থেকে ১৪ হাজার ২শ টাকা করে নিয়েছি। আমি প্রকৃত খরচের টাকাগুলো নিয়েছি। কারণ ঘর নির্মাণে মালামালের বহন খরচ কর্তৃপক্ষ পুরোপুরি দেয়নি। আমিও নিজে একটি ঘর বরাদ্দ পেয়েছি। তাছাড়া এসব ঘর নির্মাণের কাজ দেখাশুনা করতে উপজেলা প্রশাসন আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে। আর কোথায় কি ব্যয় করেছি তার হিসেব কর্তৃপক্ষকে দিয়েছি।’   

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ‘হ্নীলায় মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী উপহার ঘর বরাদ্দকৃত উপকারভোগীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া বিষয়টি আমার জানা নেই। তাছাড়া জাহাঙ্গীর নামে কাউকে ঘরগুলো নির্মাণের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পিআইও সঙ্গে কথা বলতে বলেন।’

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. সিফাত বিন রহমান জানান, ‘জাহাঙ্গীর আলমকে ঘর নির্মাণে তদারকি দায়িত্বে দেওয়া হয়নি। সে সেখানকার মাঝির দায়িত্ব আছে, ফলে তাকে দেখাশোনা করতে বলা হয়েছে। কিন্তু কোনও উপকারভোগীদের কাছ থেকে ঘর এবং মালামাল বহনের কোনও টাকা নেওয়া নির্দেশনা ছিলনা। সেরকম কোনও নিয়মও নেই। টাকা নেওয়ার বিষয়ে অফিসিয়ালি কেউ আমাদের অবহিত করেনি।’

তিনি আরও জানান, ‘জাহেদা বেগমের জায়গা সমস্যা ছিল। তাছাড়া তার খোঁজ পাওয়া পাওয়া যাচ্ছে না। সে জায়গা চিহ্নিত করে দিলে ঘর পাবে।’ 

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. মামুনুর রশিদ জানান, ‘গৃহহীন মানুষগুলো প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে স্থায়ীভাবে বসবাস করার জন্য একটি করে ঘর পাচ্ছেন, এটাই হবে মুজিববর্ষের সেরা উপহার। এখান থেকে কেউ নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা নিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

/এমআর/

সম্পর্কিত

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

কওমি শিক্ষার্থীদের কর্মমুখী ও সাধারণ শিক্ষার সুযোগ দেবে সরকার

কওমি শিক্ষার্থীদের কর্মমুখী ও সাধারণ শিক্ষার সুযোগ দেবে সরকার

করোনার প্রভাব সুদূরপ্রসারী, পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

করোনার প্রভাব সুদূরপ্রসারী, পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

আটক বাঙালিদের ভাগ্যে কী ঘটেছে জানতে চান বঙ্গবন্ধু

আটক বাঙালিদের ভাগ্যে কী ঘটেছে জানতে চান বঙ্গবন্ধু

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, মধ্যরাতে বিক্ষোভ

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, মধ্যরাতে বিক্ষোভ

আপত্তির মুখে দেশে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা খোলার অনুমোদন

আপত্তির মুখে দেশে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা খোলার অনুমোদন

সংকট সামলাতে এলএনজি সরবরাহ বাড়ছে

সংকট সামলাতে এলএনজি সরবরাহ বাড়ছে

প্রক্টর কার্যালয়ে শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগকর্মী

প্রক্টর কার্যালয়ে শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগকর্মী

শাহবাগে আটককৃত শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

শাহবাগে আটককৃত শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

নৌকার মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলার অভিযোগ

নৌকার মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলার অভিযোগ

সর্বশেষ

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

শামীমার দেশে ফেরার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানালো যুক্তরাজ্যের সুপ্রিম কোর্ট

শামীমার দেশে ফেরার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানালো যুক্তরাজ্যের সুপ্রিম কোর্ট

চলে গেলেন পাবনার তালিকাভুক্ত একমাত্র নারী মুক্তিযোদ্ধা ভানু নেছা

চলে গেলেন পাবনার তালিকাভুক্ত একমাত্র নারী মুক্তিযোদ্ধা ভানু নেছা

ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা চালকসহ নিহত ২

ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা চালকসহ নিহত ২

মেসি-রোনালদো নন, সর্বকালের সেরা ফেনোমেনন রোনালদো

ইব্রাহিমোভিচের চোখেমেসি-রোনালদো নন, সর্বকালের সেরা ফেনোমেনন রোনালদো

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

জামিন পেলেন ভারতের দলিত অ্যাকটিভিস্ট নদ্বীপ

জামিন পেলেন ভারতের দলিত অ্যাকটিভিস্ট নদ্বীপ

দেওয়ানগঞ্জ পৌর নির্বাচন স্থগিত

দেওয়ানগঞ্জ পৌর নির্বাচন স্থগিত

ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ, ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ, ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু বর্বর হত্যাকাণ্ড: সিপিবি

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু বর্বর হত্যাকাণ্ড: সিপিবি

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

ধর্ষণ মামলায় কনস্টেবল গ্রেফতার

প্রক্টর কার্যালয়ে শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগকর্মী

প্রক্টর কার্যালয়ে শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগকর্মী

নৌকার মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলার অভিযোগ

নৌকার মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলার অভিযোগ

মিষ্টিতে দেওয়া হতো কাপড়ের রং

মিষ্টিতে দেওয়া হতো কাপড়ের রং

কেন বারবার রক্তাক্ত বাঘাইছড়ি

কেন বারবার রক্তাক্ত বাঘাইছড়ি

সন্তানসহ বাজার করে ফেরা হলো না সুমির

সন্তানসহ বাজার করে ফেরা হলো না সুমির

বিস্কুট-নুডুলসসহ ৩০ কোটি টাকার সরঞ্জাম পুড়ে ছাই

বিস্কুট-নুডুলসসহ ৩০ কোটি টাকার সরঞ্জাম পুড়ে ছাই

৮ মাসে ৩৪ কোটি টাকার সোনা জব্দ, মূল হোতারা অধরা

৮ মাসে ৩৪ কোটি টাকার সোনা জব্দ, মূল হোতারা অধরা

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন মুজাক্কিরের মা-বাবা

প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন মুজাক্কিরের মা-বাবা


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.