X
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

সরকারের অনুমতির পরই বিদেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত: খালেদা জিয়ার চিকিৎসক

আপডেট : ০৭ মে ২০২১, ২১:৩১

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার বিষয়ে তার চিকিৎসক দলের অন্যতম সদস্য অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেছেন, সরকারের অনুমতি পাওয়ার পর মেডিক্যাল বোর্ডে পর্যালোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিনি জানান, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের মতোই স্থিতিশীল।

শুক্রবার (৭ মে) রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং আয়োজিত তাৎক্ষণিক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন ডা. জাহিদ হোসেন। এ সময় দেশবাসীর কাছে খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি চেয়ে দোয়া কামনা করেন তিনি।

ব্রিফিংয়ে ডা. জাহিদ জানান, খালেদা জিয়া করোনা পরবর্তী চিকিৎসার জন্য রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি আছেন। বর্তমানে তিনি সিসিইউ'তে চিকিৎসা নিচ্ছেন এবং তার বর্তমান শারীরিক অবস্থা আগের মতোই স্থিতিশীল আছে।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ব্রিফ করছেন ডা. জাহিদ হোসেন ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, ‘মেডিক্যাল বোর্ড পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে যে চিকিৎসা দিয়েছিল সেটি এখনও অব্যাহত আছে। তার অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল আছে। তার জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করছি।’

বিদেশে যাওয়ার মতো তার শারীরিক সক্ষমতা আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তার বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে, এটি আপনারা জানেন। সরকার কীভাবে তাকে যাওয়ার অনুমতি দেবে, সেটি এখন তাদের বিষয়। বর্তমানে তিনি দেশের স্বনামধন্য একটি হাসপাতালে এবং দেশের স্বনামধন্য চিকিৎসকদের নিয়ে গঠিত বোর্ডের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন।’

প্রসঙ্গত, গত ২৭ এপ্রিল রাতে খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন বিএনপি প্রধানের চিকিৎসার জন্য ১০ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। ওই দিন হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর নন-কোভিড কেবিনে চিকিৎসা চলছিল তার। এর আগে, গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ওইদিন বিকালে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

/এসটিএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

কদমতলীতে বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিনের স্বামীর স্বীকারোক্তি

কদমতলীতে বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিনের স্বামীর স্বীকারোক্তি

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

এইচএসসির ফরম পূরণ ২৯ জুন থেকে শুরু

এইচএসসির ফরম পূরণ ২৯ জুন থেকে শুরু

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান অবস্থায় ইউরোপগামী ২৬৪ বাংলাদেশি উদ্ধার

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান অবস্থায় ইউরোপগামী ২৬৪ বাংলাদেশি উদ্ধার

২০০ বছরের পুরনো হাটে ক্রেতা নেই

২০০ বছরের পুরনো হাটে ক্রেতা নেই

অর্থনৈতিক পরিবর্তনের ‘গিয়ার’ হলো বাজেট: পরিকল্পনামন্ত্রী

অর্থনৈতিক পরিবর্তনের ‘গিয়ার’ হলো বাজেট: পরিকল্পনামন্ত্রী

সর্বশেষ

কদমতলীতে বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিনের স্বামীর স্বীকারোক্তি

কদমতলীতে বাবা-মা-বোনকে হত্যা: মেহজাবিনের স্বামীর স্বীকারোক্তি

কবরস্থানে সাইনবোর্ড লাগানো নিয়ে সংঘর্ষ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩

কবরস্থানে সাইনবোর্ড লাগানো নিয়ে সংঘর্ষ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩

মুম্বাইয়ে ২ হাজার, কলকাতায় ৫০০ জনের শরীরে করোনার ভুয়া টিকা

মুম্বাইয়ে ২ হাজার, কলকাতায় ৫০০ জনের শরীরে করোনার ভুয়া টিকা

মাঠের সমালোচনা করে শাস্তি পেলেন ব্রাজিল কোচ  

মাঠের সমালোচনা করে শাস্তি পেলেন ব্রাজিল কোচ  

‘গ্রিন ফাঙ্গাস’ করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ: বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

‘গ্রিন ফাঙ্গাস’ করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ: বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

পল্লবীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লিফট মিস্ত্রীর মৃত্যু

পল্লবীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লিফট মিস্ত্রীর মৃত্যু

পুলিশের সহায়তায় এসএসসি পরীক্ষার্থী’র ফরম ফিলাপ

পুলিশের সহায়তায় এসএসসি পরীক্ষার্থী’র ফরম ফিলাপ

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

তিব্বতে প্রথম বুলেট ট্রেন চালু করলো চীন

তিব্বতে প্রথম বুলেট ট্রেন চালু করলো চীন

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকেই পাচ্ছে না উইম্বলডন

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকেই পাচ্ছে না উইম্বলডন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

হাসপাতাল থেকে যেমন এসেছেন ‌‘তেমনই’ আছেন খালেদা জিয়া

হাসপাতাল থেকে যেমন এসেছেন ‌‘তেমনই’ আছেন খালেদা জিয়া

‘এনআইডি নিবন্ধন কার্যক্রম স্থানান্তরে সংকট আরও বাড়বে’

‘এনআইডি নিবন্ধন কার্যক্রম স্থানান্তরে সংকট আরও বাড়বে’

ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান নিষিদ্ধ করা অমানবিক: বাংলাদেশ ন্যাপ

ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান নিষিদ্ধ করা অমানবিক: বাংলাদেশ ন্যাপ

নিরাপদ পানি সরবরাহের দাবিতে ওয়াসাকে বিএনপির স্মারকলিপি

নিরাপদ পানি সরবরাহের দাবিতে ওয়াসাকে বিএনপির স্মারকলিপি

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় তৎপর বিএনপি, এত দেরিতে কেন?

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় তৎপর বিএনপি, এত দেরিতে কেন?

ষড়যন্ত্র করে আ.লীগকে বিলুপ্ত করা যাবে না: ওবায়দুল কাদের

ষড়যন্ত্র করে আ.লীগকে বিলুপ্ত করা যাবে না: ওবায়দুল কাদের

সরকার মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে মেগা কমিশনের জন্য: বাবলু

সরকার মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে মেগা কমিশনের জন্য: বাবলু

‘উপহার আর ভিক্ষা করে টিকার চাহিদা মেটানো সম্ভব নয়’

‘উপহার আর ভিক্ষা করে টিকার চাহিদা মেটানো সম্ভব নয়’

© 2021 Bangla Tribune