X
রবিবার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ধর্ম অবমাননা: পাকিস্তানে খ্রিস্টান দম্পত্তির মৃত্যুদণ্ড বাতিল

আপডেট : ০৪ জুন ২০২১, ১৮:০৭

পাকিস্তানের লাহোর হাই কোর্ট ধর্ম অবমাননার মামলায় জেলা ও দায়রা আদালতে মৃত্যুদণ্ডের সাজা পাওয়া এক খ্রিস্টান দম্পতিকে বেকসুর খালাসের রায় দিয়েছে। বৃহস্পতিবার আদালত এই রায় দেয় বলে জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন। ২০১৪ সালে এই দম্পতিকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছিল।

২০১৩ সালের জুন মাসে তোবা টেক সিং জেলার গজরা সিটি পুলিশের কাছে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগে স্থানীয় একটি স্কুলের দারোয়ান শাফকাত এমানুয়েল ও তার স্ত্রী শাগুফতা কাউসার মাসিহের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন স্থানীয় একজন ইমাম।

অভিযোগকারী মালিক মুহাম্মদ হোসাইন দাবি করেন, ইমানুয়েল তাকে ধর্ম অবমাননামূলক ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েছেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে ইমানুয়েল ও শাগুফতাকে গ্রেফতার করা হয়। যদিও এফআইআর-এ শাগুফতার নাম ছিল না।

নিম্ন আদালত মামলার রায়ে তাদের মৃত্যুদণ্ড দেয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে আপিল করেন ওই দম্পত্তি।

বৃহস্পিতবার দুই বিচারপতির একটি বেঞ্চ তাদেরকে বেকসুর খালাসের রায় দিয়েছে। বিস্তারিত রায়ে খালাসের কারণ উল্লেখ করা হবে।

চার সন্তানের বাবা-মা এই দম্পতি এক সপ্তাহের মধ্যে মুক্তি পেতে পারেন। তবে অভিযোগকারী সুপ্রিম কোর্টে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ পাবেন।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

সাড়ে ১৩ হাজার তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি আফগান সরকারের

সাড়ে ১৩ হাজার তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি আফগান সরকারের

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০৫:৪৭

মিয়ানমারের জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তুলেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ- এইচআরডব্লিউ। সংস্থাটি বলছে গত ছয় মাস ধরে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের আন্দোলনে দমন পীড়ন চালিয়ে আসছে নিরাপত্তা বাহিনী। যা স্পষ্ট মানবাধিকার লঙ্ঘন।

গত ফেব্রুয়ারিতে মিয়ামারের সু চি সরকারের কাছ থেকে জোরপূর্বক ক্ষমতা দখল করে নেয় সামরিক বাহিনী। একই সঙ্গে সু চিসহ অনেক রাজনৈতিক নেতাকে বন্দি করে। প্রতিবাদে গত ৬ মাস ধরে মিয়ানমারের রাজধানী ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ করে আসছেন সাধারণ মানুষ। চলমান আন্দোলন প্রথম থেকেই দমানোর চেষ্টা করে আসছে জান্তা। গণতন্ত্রের দাবি আন্দোলনকারীরা রাস্তায় নামলেই চালানো হচ্ছে নির্যাতন।

এমন পরিস্থিতিকে মানবতাবিরোধী অপরাধ অ্যাখায়িত করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। নিউইয়র্ক-ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটি বলেছে, সামরিক অভুত্থানের বিরুদ্ধে যারা বিক্ষোভ করছে তাদের কঠোরভাবে দমন করা হচ্ছে। বিরোধীদের গ্রেফতার, নির্যাতন ও হত্যা করা হচ্ছে।

সংগঠনটির এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডাস বলেন, নাগরিকের ওপর এ ধরনের হামলা মানবতাবিরোধী অপরাধের শামিল এবং দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা উচিত।

এদিকে, শনিবারও মান্দালয়ের মোটরবাইকে চড়ে লাল ও সবুজ পতাকা উড়িয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের বিভিন্ন সংগঠন। সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলে নেওয়ার পর নিরাপত্তা বাহিনীল গুলিতে এ পর্যন্ত প্রায় এক হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। গ্রেফতার হয়েছেন ৬ হাজারের বেশি।

/এলকে/

সম্পর্কিত

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

মিয়ানমারকে সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহে সহযোগিতা করছে রাশিয়া

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ নিয়ে সতর্ক রোহিঙ্গারা

রাশিয়ার কাছ থেকে ২০ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে মিয়ানমার

রাশিয়ার কাছ থেকে ২০ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে মিয়ানমার

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০৪:৩২

উচ্ছেদের মুখে যুক্তরাষ্ট্রের ৩৬ লাখের বেশি বাসিন্দা। করোনা মহামারিতে বাড়ি ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় ভাড়াটে উচ্ছেদ স্থগিতাদেশ স্থানীয় সময় শনিবার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে। ফলে ঘর ছাড়ার ঝুঁকিতে বহু মানুষ।

করোনা মহামারিতে গত বছরের মার্চ থেকে ভাড়াটিয়া উচ্ছেদের সব প্রক্রিয়া বন্ধ রয়েছে। করোনায় দুর্দশায় পড়া ভাড়াটিয়াদের উচ্ছেদ প্রক্রিয়ার নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আগামী ৩০ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়। কিন্তু ভাড়াটে উচ্ছেদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের যে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে তা শনিবার মধ্যরাতে শেষ হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে পদক্ষেপ নেওয়া না হলে আগস্টেই বাসা ছাড়তে হবে তাদের।

স্থগিতাদেশ আগামী মধ্য অক্টোবরের পর্যন্ত বাড়ানোর দাবিতে ডেমোক্র্যাট দলের প্রগতিশীল সদস্য কোরি বুশ, আয়ানা প্রেসলি এবং ইলহান ওমর শুক্র থেকে শনিবার ক্যাপিটলের বাইরে অবস্থান করেন।

কোরি বুশ টুইটারে লিখেন, আমরা সিনেট এবং হোয়াইট হাউস নিয়ন্ত্রণ করছি। সুতরাং মানুষকে অবশ্যই তাদের বাড়িতে রাখা উচিত। এ বিষয়ে ভোটাভুটির আয়োজন করতে মার্কিন নিম্মকক্ষ প্রতিনিধি পরিষধের স্পীকার ন্যান্সি পেলোসিকে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। একইসঙ্গে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়াতে সেনেটের ডেমোক্র্যাট শীর্ষ নেতা চাক শুমার প্রতিও আহ্বান জানান। 

ইলান ওমর টুইটে উল্লেখ করেন, ‘অনেক মানুষ ঘর ছাড়ার ঝুঁকির মুখে পড়েছেন। আমরা তাদের জন্য আছি’।

এর আগে নির্দিষ্ট আইনি প্রস্তাব ছাড়া ভাড়া পরিশোধ করতে না পারা লোকজনকে উচ্ছেদের মেয়াদ আর বর্ধিত না করার কথা জানান মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, সুপ্রিম কোর্টের এমন নির্দেশনার পর উচ্ছেদের ওপর নিষেধাজ্ঞা বর্ধিতের সুযোগ নেই। ফলে কংগ্রেসকে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জুলাইয়ের পাঁচ তারিখ পর্যন্ত কয়েক বহু লোকের ঘরভাড়া বাকি পড়েছে। এই হিসাবে তালিকাভুক্ত ভাড়াটেদের শুধু ধরা হয়েছে। তালিকার বাইরেও রয়েছেন অনেকে। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্স

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০২:৩৪

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারের নেওয়া সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন ফরাসিরা। প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ সরকারের ভাইরাস পাশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান লাখ লাখ মানুষ। শনিবারের বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় আন্দোলনকারীদের।

করোনার সংক্রমণ রোধে আগামী ৯ আগস্ট থেকে নতুন আইন জারি হতে যাচ্ছে ফ্রান্সে। এই আইন অনুসারে যদি কেউ কফি শপ বা রেস্তোরাঁয় যেতে চান, তবে তার অ্যান্টিকরোনাভাইরাস পাশ থাকতে হবে। এ ছাড়া বিমানে ভ্রমণ বা আন্তঃনগর ট্রেনে যাতায়াতের ক্ষেত্রে লাগবে এ পাশ। তবে দুই ডোজ টিকা নিলেই পাবেন। কিন্তু এখনও বহু নাগরিক টিকা না পাওয়ায় সরকারের এমন কঠোর পদক্ষেপের বিরুদ্ধে শনিবার টানা তৃতীয় সপ্তাহের বিক্ষোভে নামেন আন্দোলনকারী।

এ দিনের আন্দোলন গত সপ্তাহের তুলনায় সহিংস রূপ নেয়। রাজধানী প্যারিসের শঁজ এলিজে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ দেখান। ফলে রাজধানী জুড়ে তিন হাজারের মতো নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিচার্জ করে নিরাপত্তা সদস্যরা। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হলেও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। জলকামান ও কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়লে ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়েন তারা। এদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সামনেও অবস্থান করেন বিক্ষুব্ধরা।

খবরে বলা হয়েছে, অ্যান্টি ভ্যাকসিন পাশ বিরোধী বিক্ষোভে ফ্রান্সের বিভিন্ন জায়গায় দুই লাখের মতো মানুষ রাস্তায় নামেন। এর মধ্যে ১৪ হাজারের বেশি অবস্থান করেন প্যারিসে। ফ্রান্সে করোনার শুরু থেকে এ পর্যন্ত ১ লাখ ১২ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ডেল্টা সংক্রমণে বিপর্যস্ত মালয়েশিয়া

ডেল্টা সংক্রমণে বিপর্যস্ত মালয়েশিয়া

ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো

ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

ফের বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০১:০১

ফের বাবা হতে চলছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বরিসের স্ত্রী ক্যারি সায়মন্ডস নিজের ইনস্টাগ্রামে নিশ্চিত করেছেন। আসছে বড়দিনেই দ্বিতীয় সন্তানের অপেক্ষায় রয়েছেন এই দম্পতি।

মাস খানেক আগেই গর্ভপাত হয় ক্যারি সায়মন্ডসের। সেবার মন ভেঙে যায় বরিস জনসন ও ক্যারির। খারাপ স্মৃতি পেছনে ফেলে সুখবর নিয়ে এলো জনসন পরিবার। শনিবার নিজের ইনস্টাগ্রামের পাতায় বার্তা দেন ক্যারি।

ক্যারি জানান, ‘বড়দিনেই  ‘রেনবো বেবি’ আসার অপেক্ষায় রয়েছেন। এরপরই লেখেন, আরও একবার অন্তঃসত্ত্বা হয়ে দারুণ লাগছে। একইসঙ্গে আবার একটু নার্ভাসও অনুভব করছেন।

গত বছরের মে মাসে করোনার সংক্রমণের মধ্যেই সাদামাটাভাবে ওয়েস্টমিনস্টার ক্যাথেড্রালে ঘরোয়া আয়োজনে নিজেদের বিয়েটা সেরে ফেলেন ক্যারি-বরিস। তবে বিয়ের আগেই তাদের ঘরে প্রথম সন্তান ছেলে উইলফ্রেড আসে। যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে ২০০ বছরের মধ্যে ৫৭ বছর বয়সী বরিস জনসনই প্রথম প্রধানমন্ত্রী যিনি দায়িত্বরত অবস্থায় বিয়ের পিঁড়িতে বসেন।

বরিস জনসন এর আগেও দু’বার বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন। দ্বিতীয় স্ত্রী আইনজীবী ম্যারিনা হুইলারের ঘরে চার সন্তান আছে। ২০২০ সালে ম্যারিনার সঙ্গে বরিসের বিচ্ছেদ ঘটে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

নি‌র্দোষ প্রমা‌ণিত হলেন এম‌পি আপসানা

নি‌র্দোষ প্রমা‌ণিত হলেন এম‌পি আপসানা

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

সাড়ে ১৩ হাজার তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি আফগান সরকারের

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ২৩:১৮

আফগানিস্তানে সাড়ে ১৩ হাজারেরও বেশি তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। আফগান সরকার বলছে, তাদের সেনারা গত চার মাসে তালেবানের ওপর ব্যাপক হামলা চালিয়েছে। এসব হামলায় এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

তালেবান দৃশ্যত পুরো আফগানিস্তানে নিজেদের কর্তৃত্ব বিস্তৃত করে চলেছে। মার্কিন বাহিনীর এমন পর্যালোচনার মাত্র এক সপ্তাহের মাথায় আফগান সরকারের পক্ষ থেকে দলটির হাজার হাজার সদস্যকে হত্যার এমন দাবি করা হলো।

শুক্রবার আফগানিস্তানের শান্তি বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত চলা যুদ্ধে ১৩ হাজার ৫৫৫ জন তালেবান যোদ্ধা নিহত হয়েছে। একই সময়ে আহত হয়েছে আরও ১১ হাজার ৫৪ জন। তবে এতে সরকারি বাহিনীর ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি।

তালেবানের পক্ষ থেকে অবশ্য সরকারের দাবি প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। দলটির একজন প্রতিনিধি জাপানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম এনএইচকে-এর কাছে বলেছেন, সরকারের দাবি প্রচারণার জন্য চালানো মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছুই নয়। বাস্তবে তালেবানের খুব সামান্যই ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ শহর ঘিরে জোরালো লড়াইয়ের খবর পাওয়া গেছে। সরকারি বাহিনীর কাছ থেকে এসব শহরের নিয়ন্ত্রণ ছিনিয়ে নিতে তালেবান সেখানে তীব্র হামলা চালাচ্ছে।

পশ্চিমের হেরাত শহরে বিদ্রোহীরা তাদের আক্রমণ জোরদার করেছে। খবর পাওয়া যাচ্ছে তালেবান যোদ্ধারা শহরের ভেতর ঢুকে পড়েছে। লড়াই চলছে লস্কর গাহ এবং কান্দাহারেও। তালেবান যোদ্ধারা হেরাত শহরের দক্ষিণে রণাঙ্গন এলাকা অতিক্রম করে শহরের বিভিন্ন এলাকায় ঢুকে পড়েছে; এমন খবর পাওয়া যাচ্ছে।

বিবিসির আনবারাসান এথিরাজন জানিয়েছেন, গতকাল আফগান কর্মকর্তারা বলেছিলেন মার্কিন বিমান হামলার সহায়তা নিয়ে তারা তালেবান বিদ্রোহীদের পিছু হঠতে বাধ্য করেছেন। শনিবার হেরাতে আবার তুমুল লড়াই শুরু হয়েছে।

কাবুল থেকে বিবিসির সংবাদদাতা সেকান্দার কিরমানি জানান, হেলমান্দ প্রদেশের লস্কর গাহ শহরে বিমান হামলায় একটি হাসপাতালের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং একজন মারা গেছে। হাসপাতালের ভেতর কতজন ছিল সেটি এখনও স্পষ্ট নয়।

শুক্রবার আফগান সরকারের কর্মকর্তারা বলেছিলেন, তারা লস্কর গাহ শহরে তালেবানের অগ্রযাত্রা ঠেকাতে সমর্থ হয়েছেন এবং আমেরিকান বিমান হামলায় অনেক তালেবান যোদ্ধা হতাহত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রগুলো বিবিসিকে বলেছে, তালেবান গতকাল গর্ভনরের দফতরের কাছাকাছি পৌঁছেছিল। কিন্তু তাদের প্রতিহত করা হয়েছে। একজন আফগান এমপি বিবিসিকে বলেছেন, লড়াইয়ে কান্দাহার শহরে ৩০ হাজারের বেশি মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। খাদ্য ও পানির চরম সংকট দেখা দিয়েছে। তালেবান কান্দাহার দখল করলে আরও পাঁচ থেকে ছয়টি প্রদেশ তাদের নিয়ন্ত্রণে চলে যাবে।

আফগানিস্তান বিষয়ক ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিশেষ দূত টমাস নিকলাসন বলেছেন, তার আশঙ্কা যুদ্ধ আরও খারাপ দিকে মোড় নেবে। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তার ধারণা তালেবান এখন আগের মতোই আবার একটি ইসলামিক আমিরাত প্রতিষ্ঠার কথা ভাবছে।

ব্রিটিশ সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক প্রধান জেনারেল ডেভিড রিচার্ডস হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যে, আন্তর্জাতিক বাহিনী প্রত্যাহারের ফলে এখন আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর মনোবলে ধস নামতে পারে। পরিণামে তালেবান আবার দেশটির নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে। সেখান থেকে আবার নতুন করে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের হুমকি তৈরি হতে পারে। সূত্র: এনএইচকে, বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

সর্বশেষ

এখনও শেষ হয়নি বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার

এখনও শেষ হয়নি বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

আগস্টের প্রথম প্রহরে শত আলো জ্বললো

আগস্টের প্রথম প্রহরে শত আলো জ্বললো

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্স

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্স

‘দূরপাল্লার বাসে শ্রমিকরা আসতে চাইলে, সেই বাস পুলিশ ধরবে না’

‘দূরপাল্লার বাসে শ্রমিকরা আসতে চাইলে, সেই বাস পুলিশ ধরবে না’

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

ফের বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

ফের বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

কারখানা খুলতে মানতে হবে ১৫ শর্ত

কারখানা খুলতে মানতে হবে ১৫ শর্ত

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

আরেক মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

আরেক মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সাড়ে ১৩ হাজার তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি আফগান সরকারের

সাড়ে ১৩ হাজার তালেবান সদস্যকে হত্যার দাবি আফগান সরকারের

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

গুরুত্বপূর্ণ তিন শহরের দখল নিতে তালেবানের তীব্র লড়াই

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

১০০ কেজি ওজনের লেহেঙ্গা পরে বিয়ের পিঁড়িতে কনে (ভিডিও)

আসামের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর মিজোরাম পুলিশের

আসামের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর মিজোরাম পুলিশের

ডেল্টা সংক্রমণে বিপর্যস্ত মালয়েশিয়া

ডেল্টা সংক্রমণে বিপর্যস্ত মালয়েশিয়া

আফগানিস্তানে জাতিসংঘ কার্যালয়ে হামলা, রক্ষী নিহত

আফগানিস্তানে জাতিসংঘ কার্যালয়ে হামলা, রক্ষী নিহত

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

© 2021 Bangla Tribune