X
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

ডেয়ারিং গ্রুপের সদস্যদের সপ্তাহে দেওয়া হতো ৪০০ টাকা

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ১৫:৫৯

গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় দুটি পরিবারের ওপর নৃশংস হামলায় জড়িত কিশোর গ্যাং ‘ডি কোম্পানি’ ওরফে ডেয়ারিং গ্রুপের পৃষ্ঠপোষক রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি ও নীরব ওরফে ডন নীরবসহ ১২ সদস্যকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। ছিনতাই, মাদকের কারবার, মারামারিসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত এই গ্রুপের রয়েছে ৫০ জনেরও বেশি সদস্য। তাদের সবাইকে প্রতি সপ্তাহে পৃষ্ঠপোষক লন্ডন বাপ্পি জনপ্রতি ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা করে দিতো। এছাড়াও নানা ধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বাপ্পি প্রতি মাসে আয় করতো দুই থেকে তিন লাখ টাকা।

রবিবার (৬ জুন) বিকালে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

গত শনিবার (৫ জুন) মধ্যরাত থেকে ভোর রাত পর্যন্ত রাজধানীর উত্তরা ও গাজীপুরের টঙ্গীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পিসহ (৩৫) মোট ১২ জনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। গ্রেফতার আসামিদের দেওয়া তথ্যমতে টঙ্গীর পূর্ব আরিচপুরে লন্ডন বাপ্পির আস্তানাসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে দুটি বিদেশি পিস্তল, দুটি চাপাতি, দুটি রামদা, তিনটি লোহার রড এবং একটি ছুরি উদ্ধার করে র‌্যাব।

গ্রেফতার অন্যরা হলো– তানভীর হোসেন ওরফে ব্যাটারি তানভীর (২৪), পারভেজ ওরফে ছোট পারভেজ (১৯), তুহিন ওরফে তারকাটা তুহিন (২১), রাজিব আহমেদ নীরব ওরফে টম নীরব (৩০), সাইফুল ইসলাম শাওন (২৩), রবিউল হাসান (২০), শাকিল ওরফে বাঘা শাকিল (২৮), ইয়াছিন আরাফাত ওরফে বিস্কুট ইয়াছিন (১৮), মাহফুজুর রহমান ফাহিম (২২), ইয়াছিন মিয়া ওরফে প্রিন্স ইয়াছিন (১৯)। অভিযানের সময় তাদের কাছ থেকে ১২টি মোবাইল ফোন এবং নগদ ৬ হাজার ১৩০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১ জুন গাজীপুরের টঙ্গী পূর্ব আরিচপুর এলাকায় একটি ফুচকার দোকানে বসা নিয়ে মারামারির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ডেয়ারিং কোম্পানির গ্যাং গ্রুপের দুই সদস্য সেখানে বসে থাকা তুহিন ও তুষার নামে দুই যুবককে এলোপাতাড়ি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে ঘটনা বিভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ৩ জুন রাতে একই এলাকার একটি টেইলার্সসহ বিভিন্ন বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। এ সময় টেইলার্সের দোকানি রুপালি তার স্বামী আরজু মিয়া ও সুজন মিয়া নামে একজনকে কুপিয়ে যখম করে। এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে র‌্যাব ছায়া তদন্ত করে ডেয়ারিং কোম্পানির পৃষ্ঠপোষক ও লিডার নীরবসহ ১২ জনকে গ্রেফতার করে।

র‌্যাব কর্মকর্তা খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে তারা ডেয়ারিং কোম্পানি নামে একটি গ্রুপ খুলে। সেই গ্রুপে গত পাঁচ বছর ধরে লন্ডন বাপ্পি সদস্যদের নির্দেশনা দিয়ে উত্তরা-টঙ্গীতে আধিপত্য বিস্তার ও নানা অপরাধ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে। এসব কাজে তার ছোট ভাই পাপ্পু তাকে সহযোগিতা করতো। ডেয়ারিং গ্রুপে অন্তত ৫০ জন সদস্য রয়েছে। তাদের প্রত্যেককে প্রতি সপ্তাহে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা করে দিতো পৃষ্ঠপোষক লন্ডন বাপ্পি। এছাড়াও নানা ধরনের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বাপ্পি মাসিক আয় দুই থেকে তিন লাখ টাকা রয়েছে বলে জানতে পেরেছি।’

তিনি বলেন, ‘গ্রেফতার আসামিরা গ্রুপের অনেক সদস্যদের নাম-পরিচয় বলেছে। আমরা তাদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছি। পাশাপাশি এই গ্রুপের সব সদস্যের ওপর র‌্যাবের গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। আমরা তথ্য পেয়েছি, রাজিব চোধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পির ছোট ভাই পাপ্পুর নামেও মামলা রয়েছে। সম্প্রতি একটি মারামারির ঘটনায় সেও কারাগারে রয়েছে। এছাড়াও গ্রেফতার অন্য আসামিদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও রয়েছে।’

কে এই বাপ্পি

রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি (৩৫) টঙ্গীর পূর্ব আরিচপুরে কিশোর গ্যাং গ্রুপ ডেয়ারিং গ্রুপের পৃষ্ঠপোষক। বাপ্পির গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীতে। টঙ্গীতে সে তার নানা বাড়িতে (লন্ডন হাউজ) বসবাস করে। সে দুই বছর লন্ডনে পড়াশোনা করেছে। ২০১৩ সালে পড়াশোনা শেষে লন্ডন থেকে বাংলাদেশে ফিরে আসে। এরপর এলাকায় আধিপত্য ও ক্ষমতা বিস্তারের জন্য টঙ্গীর পূর্ব আরিচপুরে ডেয়ারিং কোম্পানি নামে একটি কিশোর গ্যাং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করে। কিশোর গ্যাংয়ে জড়িত হওয়ার কারণ ছিল বাপ্পির পারিবারিক সমস্যা। ২০০৭ সালে বাপ্পির মায়ের মৃত্যুর পর তার বাবা পুনরায় বিয়ে করেন। এরপর থেকে বাপ্পি তার নানার বাড়িতে বসবাস শুরু করে।

র‌্যাব জানায়, বাপ্পি ডেয়ারিং কোম্পানি গ্রুপের সদস্যদের মাঠ পর্যায়ে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য মঈন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরবকে (২৪) দায়িত্ব দেয়। পুরো গ্যাংকে পৃষ্ঠপোষকতা করতো বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি। গ্রেফতার আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

অরিত্রীর আত্মহত্যা মামলা: সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ জুলাই

অরিত্রীর আত্মহত্যা মামলা: সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ জুলাই

রূপনগরে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৬ শিশুর মৃত্যু: দুজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

রূপনগরে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৬ শিশুর মৃত্যু: দুজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলায় যুক্তি উপস্থাপন শুনানি ২৩ সেপ্টেম্বর

হুমায়ুন আজাদ হত্যা মামলায় যুক্তি উপস্থাপন শুনানি ২৩ সেপ্টেম্বর

ডিআইজি বজলুর রশীদের বিরুদ্ধে মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ১৮ জুলাই

ডিআইজি বজলুর রশীদের বিরুদ্ধে মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ১৮ জুলাই

হাইকোর্টে আরেকটি বড় জালিয়াতি ঘটনার নেপথ্যে

হাইকোর্টে আরেকটি বড় জালিয়াতি ঘটনার নেপথ্যে

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানি ২২ সেপ্টেম্বর

সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানি ২২ সেপ্টেম্বর

সড়ক থেকে তুলে নিয়ে নারী শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

সড়ক থেকে তুলে নিয়ে নারী শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

সাবরিনাসহ আটজনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ জুলাই

করোনাভাইরাস পরীক্ষায় জালিয়াতিসাবরিনাসহ আটজনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ জুলাই

রেইনট্রিতে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ৫ জুলাই

রেইনট্রিতে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ৫ জুলাই

রমনা বোমা হামলা মামলার শুনানি: রাষ্ট্রপক্ষকে চূড়ান্ত সময় দিলেন হাইকোর্ট

রমনা বোমা হামলা মামলার শুনানি: রাষ্ট্রপক্ষকে চূড়ান্ত সময় দিলেন হাইকোর্ট

ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপালের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ১৫ জুলাই

ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপালের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ১৫ জুলাই

সর্বশেষ

গাছ না কেটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রকল্প বাস্তবায়নের অঙ্গিকার

গাছ না কেটে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রকল্প বাস্তবায়নের অঙ্গিকার

সাদ-বাঁধন কানে উড়াল দিচ্ছেন এই ভোরে

সাদ-বাঁধন কানে উড়াল দিচ্ছেন এই ভোরে

প্রাথমিকে মেন্টরের দায়িত্বে পরিবর্তন

প্রাথমিকে মেন্টরের দায়িত্বে পরিবর্তন

বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বিলের রিপোর্ট চূড়ান্ত করেছে সংসদীয় কমিটি

বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বিলের রিপোর্ট চূড়ান্ত করেছে সংসদীয় কমিটি

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

গ্রেফতারের সময় মারা গেলেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সমালোচক

নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে শুরু হলো অনলাইন গার্লস ইনোভেশন বুটক্যাম্প

নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে শুরু হলো অনলাইন গার্লস ইনোভেশন বুটক্যাম্প

লকডাউন নয়, এবার শাটডাউন  চায় জাতীয় কমিটি

লকডাউন নয়, এবার শাটডাউন  চায় জাতীয় কমিটি

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ফ্রি চিকিৎসা পাচ্ছেন করোনা রোগীরা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ফ্রি চিকিৎসা পাচ্ছেন করোনা রোগীরা

শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে সরকার

শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছে সরকার

শুধু লকডাউনে কাজ হবে? 

শুধু লকডাউনে কাজ হবে? 

হেঁচকি এবার বন্ধ হবেই!

হেঁচকি এবার বন্ধ হবেই!

মেজাজ হারিয়ে শাস্তি পেলেন মাহমুদউল্লাহ

মেজাজ হারিয়ে শাস্তি পেলেন মাহমুদউল্লাহ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সড়ক থেকে তুলে নিয়ে নারী শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

সড়ক থেকে তুলে নিয়ে নারী শ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

বোঝার উপায় নেই নারায়ণগঞ্জে চলছে লকডাউন

বোঝার উপায় নেই নারায়ণগঞ্জে চলছে লকডাউন

পরকীয়া নিয়ে রাতে ঝগড়া, সকালে ফ্যানে ঝুলছিল স্ত্রীর লাশ

পরকীয়া নিয়ে রাতে ঝগড়া, সকালে ফ্যানে ঝুলছিল স্ত্রীর লাশ

২১ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হননি পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা প্রকৌশলী

২১ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হননি পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা প্রকৌশলী

টিকার ২ ডোজ নেওয়া শিক্ষকের করোনায় মৃত্যু

টিকার ২ ডোজ নেওয়া শিক্ষকের করোনায় মৃত্যু

একসঙ্গে ৬ কোটি টাকার গরু বিক্রি করবেন এরশাদ

একসঙ্গে ৬ কোটি টাকার গরু বিক্রি করবেন এরশাদ

সৈয়দ নজরুল মেডিক্যালে কর্মচারীদের কর্মবিরতি, রোগীদের ভোগান্তি

সৈয়দ নজরুল মেডিক্যালে কর্মচারীদের কর্মবিরতি, রোগীদের ভোগান্তি

প্রেমিকার নামে ‘ফেক অ্যাকাউন্ট’ খুলে কারাগারে যুবক 

প্রেমিকার নামে ‘ফেক অ্যাকাউন্ট’ খুলে কারাগারে যুবক 

© 2021 Bangla Tribune