X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কোরবানির জন্য দেশে আছে ১ কোটি ২৯ লাখ গবাদিপশু

আপডেট : ২৪ জুন ২০২১, ০৩:০৫

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশে কোরবানির জন্য এক কোটি ২৯ লাখ গবাদিপশু মজুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

বুধবার (২৩ জুন) বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটে (বিএলআরআই) আয়োজিত ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগলের জাত সংরক্ষণ ও উন্নয়ন গবেষণা প্রকল্পের খামারি মাঠ দিবসের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, কোরবানির ঈদ উপলক্ষে এক কোটি ২৯ লাখ গবাদিপশু মজুত রয়েছে। আজ আমরা খামারিদের সঙ্গে একত্রিত হয়েছি। প্রাণিসম্পদ খাতের একটি বৈপ্লবিক পরিবর্তন এসেছে। এই পরিবর্তনের ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য আমরা কাজ করে চলেছি। মানুষ যেন স্বাবলম্বী হতে পারে সে জন্য ছাগল, ভেড়া, মহিষ ও মৎস্য পালনসহ বিভিন্ন কৃষি খাতে তারা কাজ করতে পারে। এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে তাদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। সহজ শর্তে অল্প সুদে তাদেরকে ঋণ দেওয়া হচ্ছে। খামারিদের যত প্রকার টেকনিক্যাল সাপোর্ট দরকার আমরা দিচ্ছি, আর দিয়ে যাবো। খামারিরা আরও সামনে এগিয়ে আসুন, বেকারত্ব দূর হোক এর জন্য আমাদের আজকের আয়োজন।

তিনি বলেন, করোনাকালেও কিন্তু আমাদের যেসব আইটেম মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম পরিবহনের ক্ষেত্রে কোনও বাধা ছিলো না। এখনও বাধা থাকবে না। ফলে এ ধরনের খাবার সরবরাহের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার বাধা থাকবে না।

রেজাউল করিম আরও বলেন, আওয়ামী লীগের ৭২ বছর হচ্ছে। বাঙালি জাতির অস্তিত্বের ঠিকানা খুঁজে দিয়েছে। বাংলাদেশ খুঁজে দিয়ে বাঙালির অধিকার দিয়েছে। আওয়ামী লীগ সৃষ্টি না হলে, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব না থাকলে, আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে শেখ হাসিনা না এলে আজকে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ পেতাম না। আওয়ামী লীগ মানেই বাংলাদেশ, আওয়ামী লীগ মানেই বঙ্গবন্ধু। আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা- উন্নয়ন, সমৃদ্ধি ও স্বাধীনতার সমার্থক শব্দ।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ বলেন, ২০২৫ সালের ভেতর দেশকে পিপিআর মুক্ত করা হবে। ভবিষ্যতে বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন দেশে গবাদিপশুর মাংস রফতানির করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. শেখ আজিজুর রহমান, বিএলআরআইয়ের মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুল জলিলসহ প্রায় দেড় শতাধিক খামারি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

খালি বাস নিয়ে উত্তরের পথে চালকরা

খালি বাস নিয়ে উত্তরের পথে চালকরা

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:৪৬

অগ্নিকাণ্ডের পর ১৫ দিন কেটে গেলেও এখনও চালু হয়নি টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)। ফলে আইসিইউ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন এ জেলার ১২ উপজেলার করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীরা।

জানা গেছে, গত ১৫ জুলাই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের সূত্রপাত হয় হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা থেকে। ওইদিন ইউনিটের ১০টি শয্যায় থাকা রোগীদের তাড়াহুড়ো করে হাসপাতালের বাইরে নিরাপদ স্থানে রাখা হয়। অক্সিজেন সাপোর্ট না পেয়ে অনেকে রোগীর অবস্থা অবনতি হয়। এমতাবস্থায় একাধিক রোগীকে অন্যত্র রেফার্ড করেন চিকিৎসকরা। এর মধ্যে ওইদিন বাইরে অনেকেরই মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সোহানা নাসরিনকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি প্রতিবেদনে জানায়, আইসিইউতে হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা মেশিনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার এবং নির্দেশনা অনুযায়ী মেশিন ব্যবহার না করার কারণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছিল। প্রতিবেদনটিতে আটটি সুপারিশও করা হয়েছে।

এদিকে এই অগ্নিকাণ্ডের পর ১৫ দিন গেলেও আইসিইউ সেবা চালু করতে পারেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ফলে এ জেলার মুমূর্ষু রোগীরা এখন আইসিইউ সেবা থেকে বঞ্চিত। বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ৫৬ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, আইসিইউ সেবা বন্ধ থাকায় মুমূর্ষু রোগীদের অন্যত্র রেফার্ড করা হচ্ছে। হাসপাতালে আইসিইউ সেবা না পেয়ে অনেকেরই মৃত্যু হচ্ছে।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) শফিকুল ইসলাম সজিব বলেন, ‘আইসিইউ এখনও চালু হয়নি। আইসিইউ প্রস্তুতের কাজ অনেকটাই শেষের দিকে। আগামী শনিবার নাগাদ চালু হতে পারে।’

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) জেলায় করোনায় ও উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে ৫৩০টি নমুনা পরীক্ষায় ১২৫ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৪৬৯ জনে। আর মৃত্যু হয়েছে ২০৯ জনের।

/এফআর/

সম্পর্কিত

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

আইসিইউ খালি নেই রংপুর বিভাগের করোনা হাসপাতালে

আইসিইউ খালি নেই রংপুর বিভাগের করোনা হাসপাতালে

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:১২

নোয়াখালীর হাতিয়ার ঠেঙ্গারচর এলাকায় মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় ট্রলারডুবির ঘটনায় এক জেলের লাশ ও ১১ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

মারা যাওয়া শ্যামল চন্দ্র জলদাস (২৩) উপজেলার চরকিং ইউনিয়নের দাসেরহাট এলাকার দক্ষিণ শুল্লুকিয়া গ্রামের মতিলাল চন্দ্র জলদাসের ছেলে। উদ্ধার ১১ জেলে ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোস্টগার্ড হাতিয়ার স্টেশন কমান্ডার লে. এ এস এম লুৎফর রহমান।

তিনি বলেন, ২৭ জুলাই মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে রওনা হন ১২ জেলে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সাগরে না গিয়ে ঠেঙ্গারচরে আশ্রয় নেন। বৃহস্পতিবার ট্রলার নিয়ে এলাকায় রওনা হন তারা। মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় আবহাওয়ার কবলে পড়ে তাদের ট্রলার ডুবে যায়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টায় ১১ জেলেকে জীবিত ও একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। রাত সাড়ে ১০টায় মৃত জেলের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

/এএম/

সম্পর্কিত

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০০:১৬

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত চাঁনমারি বস্তিটি শতভাগ উচ্ছেদ করেছে জেলা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশের এ বস্তিতে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। এতে সেখানে থাকা পাঁচ শতাধিক ঘর গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় পাঁচ শতাধিক ঘর ছিলো এই চাঁনমারি বস্তিতে। প্রশাসনের নাকের ডগায় এ বস্তিতে কয়েক যুগ ধরেই মাদক ব্যবসা চলছিলো। নিয়মিতই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানও হতো এখানে। তবে শত প্রচেষ্টার পরও এখানে বন্ধ করা যায়নি মাদক ব্যবসা।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, ‘এটি অনেক পুরান বস্তি। এর পাশে অবস্থিত পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক ও জেলা দায়রা জজসহ গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয় রয়েছে। এই বস্তিতে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বেশ কয়েকবার সংঘর্ষ হয়েছে। তাছাড়া যতবারই এই বস্তি উচ্ছেদ হয়েছে ততবারই কোনও না কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি যোগদানের পর থেকেই নারায়ণগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল, এই এখান থেকে মাদক নির্মূল করা এবং এই বস্তি অপসারণ করা। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ গত তিন দিন এই উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেছে এবং বৃহস্পতিবার বস্তিটি শতভাগ উচ্ছেদ করা হয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী

রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০০:০৭

ভোলার চরফ্যাশনে বড় ভাই অবিবাহিত থাকায় পরিবারের বাধার মুখে প্রেমিকাকে বিয়ে করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন ছোট ভাই মো. রিয়াজ (১৮)।

বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের উত্তর আইচা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

পুলিশ ও স্বজনরা জানিয়েছেন, কয়েক মাস ধরে অপরিচিত এক মেয়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন রিয়াজ। কিছুদিন আগে ওই মেয়ের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। বুধবার ওই মেয়েকে বিয়ে করার জন্য পরিবারকে জানান। কিন্তু বড় ভাই অবিবাহিত থাকায় পরিবার বাধা দেয়। ওই দিন রাতেই বিষপান করেন রিয়াজ। তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শশীভূষণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রেমিকাকে বিয়ে করতে পরিবারের সম্মতি না পেয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে ওই যুবক। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৪

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। নগরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোরে তিনি মারা যান।

তার নাম তানজিদা মোরশেদ (২৬)। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০১২–১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী ছিলেন। নগরের হালিশহর এলাকায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রবিউল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তানজিদা মোরশেদ আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্রী ছিলেন। তার বাবা বেঁচে নেই। দুই বোনের মধ্যে সে ছোট। বড় বোনের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় মাকে নিয়ে সে নগরের হালিশহর এলাকায় থাকতেন। জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আজ ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। সকাল সাড়ে ১০টায় জানাজা শেষে হালিশহর বি ব্লকের বিহারি কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।’

তার মা পারভীন নাহার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ঈদের এক দিন আগে তানজিদার জ্বর হয়েছিল। বাসার পাশের ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনে খাওয়ার পরও জ্বর কমেনি। উল্টো শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। পরে অবস্থা আরও খারাপ হতে থাকে। শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুর ২টায় আমরা তাকে প্রথমে মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে সিট খালি না পেয়ে ডায়াবেটিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেখানে রাত ১২টা পর্যন্ত অক্সিজেনের সুবিধা দিয়ে রাখার পর, সার্জিস্কোপ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে আইসিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মারা যায়।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

সর্বশেষ

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ডাকটিকিট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তীর স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ

ডাকটিকিট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তীর স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের ভিড়, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই

খালি বাস নিয়ে উত্তরের পথে চালকরা

খালি বাস নিয়ে উত্তরের পথে চালকরা

৩৮ যাত্রী নিয়ে ডুবলো পিকনিকের লঞ্চ, অল্পের জন্য রক্ষা

৩৮ যাত্রী নিয়ে ডুবলো পিকনিকের লঞ্চ, অল্পের জন্য রক্ষা

ঈদেও বন্ধ খাগড়াছড়ির পর্যটন কেন্দ্র, হতাশ স্থানীয়রা

ঈদেও বন্ধ খাগড়াছড়ির পর্যটন কেন্দ্র, হতাশ স্থানীয়রা

করোনায় মৃত্যু, পশু কেনা হলেও হলো না কোরবানি

করোনায় মৃত্যু, পশু কেনা হলেও হলো না কোরবানি

‘২০০ টাকায় কেনা চামড়ার দাম ২০০, বাড়ি যামু কী নিয়া’

‘২০০ টাকায় কেনা চামড়ার দাম ২০০, বাড়ি যামু কী নিয়া’

এক উদ্যোগে ছয়শ’ পরিবারের ঈদ আনন্দ

এক উদ্যোগে ছয়শ’ পরিবারের ঈদ আনন্দ

কষ্টের স্মৃতি নিয়ে ক্যাম্পে কাটলো আরও একটি ঈদ

কষ্টের স্মৃতি নিয়ে ক্যাম্পে কাটলো আরও একটি ঈদ

© 2021 Bangla Tribune