X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কয়েদিকে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় ৩ কারারক্ষী বরখাস্ত

আপডেট : ০৩ জুলাই ২০২১, ২০:২৮

কুমিল্লার কেন্দ্রীয় কারাগারে শাহজাহান বিলাস (৪৮) নামের এক সাজাপ্রাপ্ত কয়েদিকে নির্যাতনের ঘটনায় তিন কারারক্ষীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনাটি তদন্ত করতে কারা অধিদফতরের নির্দেশে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার শফিকুল ইসলাম খানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া কারাগারের জেল সুপার ইকবাল হোসেন ও ফেনী জেলা কারাগারের জেলার শাহাদত হোসেন মিঠু। কমিটিকে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্রে জানা গেছে, শাহজাহান বিলাস (কয়েদি নম্বর ৭১৫১/এ) ভারতের পশ্চিম ত্রিপুরা রাজ্যের দুর্গাপুর গ্রামের আবদুল মিয়ার ছেলে। ডাকাতি ও হত্যা মামলায় ৫৮ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি। গত ২৬ বছর ধরে তিনি কুমিল্লা কারাগারে রয়েছেন। গত ১৫ এপ্রিল তার ওয়ার্ডে তল্লাশি চালায় কারারক্ষীরা। এ সময় ১২ পিস ইয়াবা, এক পুরিয়া গাঁজা, নগদ ৬০০ টাকাসহ কারারক্ষীদের হাতে তিনি ধরা পড়েন। পরে ১২ মে তাকে কারাভ্যন্তরে কেস টেবিলের সামনে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন সিনিয়র জেল সুপার শাহজাহান আহমেদ।

সেই জিজ্ঞাসাবাদের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ভিডিওটিতে দেখা যায়, জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে এ কয়েদির দুই হাত পিঠমোড়া করে বেঁধে মাটিতে ফেলে পেটাচ্ছেন কয়েকজন কারারক্ষী। এরপর বিষয়টি তদন্তে গত ১ জুলাই কারা অধিদফতরের নির্দেশে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার শফিকুল ইসলাম খানকে প্রধান করে বিষয়টি তদন্তে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এদিকে, নির্যাতনের ভিডিওটি ভাইরাল করার অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) কুমিল্লা কারাগারের প্রধান কারারক্ষী মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, কারারক্ষী অনন্ত চন্দ্র দাস ও চয়ন দাসকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বরখাস্ত হওয়ার পরদিন শুক্রবার (০২ জুলাই) কারারক্ষী অনন্ত চন্দ্র দাস কারাগারের ব্যারাকে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলে সূত্র জানিয়েছে। তবে বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন।

কয়েদিকে নির্যাতনের বিষয়ে শনিবার (০৩ জুলাই) দুপুরে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র সুপার শাহজাহান আহমেদ বলেন, বিলাসের ওয়ার্ডে তল্লাশি চালিয়ে ইয়াবা, গাঁজা, সিগারেট ও নগদ টাকা জব্দ করা হয়। পরে তাকে কেস টেবিলে ডেকে এনে মাদক ধ্বংস ও জব্দ করা টাকা সরকারের কোষাগারে জমা দেওয়া হয়। এ নিয়ে সে ক্ষুব্ধ ছিলো আমাদের ওপর। এ জন্য তাকে কেস টেবিলে এনে লঘু শাস্তি দেওয়া হয়। কিন্তু তাকে পেটানোর ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে দুই কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রেকর্ড করা হয়।

তদন্ত কমিটির প্রধান শফিকুল ইসলাম খান মুঠোফোনে বলেন, কারা অধিদফতরের নির্দেশে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রবিবার (৪ জুলাই) বিষয়টি তদন্ত করতে আমরা কুমিল্লা কারাগারে গিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলবো।

/এফআর/

সম্পর্কিত

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩০

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কথিত পীর আব্দুর রহমান ওরফে শামীমকে (৬৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাত ১টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ ফিলিপনগর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

আব্দুর রহমান ওরফে শামীম দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের দক্ষিণ ফিলিপনগর গ্রামের মৃত জেসের মাস্টারের ছেলে। বৃহস্পতিবার দৌলতপুর থানায় শামীমের বিরুদ্ধে সদর উপজেলার বড় আইলচারা গ্রামের মৃত হেলাল উদ্দিনের ছেলে খালিদ হাসান সিপাই বাদী হয়ে মামলা করেন। 

দৌলতপুর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, শামীমের বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া ছাড়াও মানুষকে জিম্মি করে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও চাঁদাবাজিসহ মামলার এজাহারে আটটি অভিযোগ আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

কেন্দ্রের নির্দেশ অমান্য, বাগেরহাটে আ.লীগের ২১ নেতা বহিষ্কার

কেন্দ্রের নির্দেশ অমান্য, বাগেরহাটে আ.লীগের ২১ নেতা বহিষ্কার

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

হেলপার ঘুমাচ্ছিলেন ট্রাকের নিচে, চালক উঠে দিলেন টান

হেলপার ঘুমাচ্ছিলেন ট্রাকের নিচে, চালক উঠে দিলেন টান

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৩

সাতক্ষীরার আশাশুনির শোভনালীতে জমিতে পানি দেওয়ার ড্রেন থেকে দুই যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতরা হলেন আশাশুনির শোভনালী ইউনিয়নের গোদাড়া এলাকার মোস্তফা মোল্লার ছেলে রশিদ মোল্লা (২৩), একই এলাকার রসুল পাড়ের ছেলে ইদ্রিস পাড় (২০)।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ভোরে মাঠে কাজ করতে গিয়ে কয়েকজন লাশ দেখতে পায়। পরে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। 

আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি গোলাম কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করা যাবে বলে জানান তিনি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কেন্দ্রের নির্দেশ অমান্য, বাগেরহাটে আ.লীগের ২১ নেতা বহিষ্কার

কেন্দ্রের নির্দেশ অমান্য, বাগেরহাটে আ.লীগের ২১ নেতা বহিষ্কার

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

ভাড়া দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ

হেলপার ঘুমাচ্ছিলেন ট্রাকের নিচে, চালক উঠে দিলেন টান

হেলপার ঘুমাচ্ছিলেন ট্রাকের নিচে, চালক উঠে দিলেন টান

বিকেএসপি থেকে বহিষ্কার ছেলেটি খেলতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ

বিকেএসপি থেকে বহিষ্কার ছেলেটি খেলতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১১

দুই টেস্ট ও ১০টি ওয়ানডে ম্যাচসহ প্রিমিয়ার লীগের অসংখ্য খেলা গড়িয়েছে যে মাঠে সেটি এখন পড়ে আছে নিতান্ত অবহেলায়। অনেকটাই পরিত্যক্ত অবস্থায় গত ছয় বছর ধরে পানির নিচে তলিয়ে আছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের মাঠ। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মালিকানাধীন আর্ন্তজাতিক মানের এ মাঠটির সংস্কারে কোনও উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ খেলোয়াড় ও সংগঠকদের। তাদের মতে অযত্ন-অবহেলার এক অনন্য নিদর্শন খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে দ্রুতই মাঠের সংস্কার করে খেলার উপযোগী করতে কাজ চলছে।  

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০০০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম উদ্বোধন করেন। ২০০৬ সালে বাংলাদেশ বনাম অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আর্ন্তজাতিক ভেনু হিসেবে যাত্রা শুরু করে স্টেডিয়ামটি। দুই টেস্ট এবং ১০টি ওয়ানডেসহ প্রিমিয়ারলীগের অসংখ্য ম্যাচে রঙ ছড়িয়েছেন ক্রিকেটাররা। সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশ ও ওয়েস্টইন্ডিজ টেস্ট ম্যাচের পর আর কোনও আর্ন্তজাতিক ম্যাচ মাঠটিতে গড়ায়নি। 

আউটার স্টেডিয়ামে জলাবদ্ধতা সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় আউটার স্টেডিয়াম থেকে শুরু করে মূল স্টেডিয়াম ভরা থৈ থৈ পানি আর কচুরিপানা। মাঠটি ডিএনডি প্রজেক্টের ভেতের থাকায় এবং ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড থেকে অনেক নিচু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায়। পাশের আউটার স্টেডিয়াম বর্তমানের হাটু পানির নিচে তলিয়ে আছে। কচুরিপানা আর কালো নোংরা পানিতে সৃষ্ট উৎকট দুর্গন্ধে টেকা দায়। আউটার স্টেডিয়ামের জলাবদ্ধতার আটকে থাকা পানি চুইয়ে মূল স্টেডিয়ামের ভেতের ঢুকে পড়ায় মাঠ পানির নিচে রয়েছে। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে পানির নিচে থাকায় এবং সংস্কার না হওয়ায় মাঠে জন্মেছে বড় বড় ঘাস। 

স্টেডিয়ামের দর্শক চেয়ারগুলো এখন বিবর্ণ ও নষ্ট হওয়ার পথে ২৫ হাজার দর্শকের ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন গ্যালারিতে বসার চেয়ার, ইলেকট্রনিক স্কোরবোর্ড, ভিআইপি গ্যালারি, সাংবাদিকদের বসার স্থান (প্রেস বক্স) ক্রিকেটারদের ড্রেসিং ও ওয়েটিংরুমসহ বাথরুম সবই এখন ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ার পথে। হঠাৎ করে মূল রাস্তা থেকে দেখলে আর্স্তজাতিক স্টেডিয়াম না ভেবে বড় ধরনের জলাশয় ভেবে বসতে পারেন যে কেউ। 

স্টেডিয়ামের মূল মাঠে যেন ঘাসের চাষ করা হয়েছে স্থানীয় ক্রিকেটার মোহাম্মদ আহমেদ হোসেন বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে ফুটবল ও ক্রিকেটের অনেক খেলোয়াড় জাতীয় পর্যায়ে খেলে সুমান অর্জন করেছেন। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য নারায়ণগঞ্জে একটি আর্ন্তজাতিক মানের স্টেডিয়াম থাকার পরেও শুধু সংস্কারের অভাবে আমরা পিছিয়ে পড়ছি। এই স্টেডিয়ামের আর্ন্তজাতিক মানের খেলা অনুষ্ঠিত হলে, অনেকেই উৎসাহ পেতো। স্থানয়িভাবে আরও খেলোয়াড় তৈরি হতো। 

তিনি আক্ষেপ নিয়ে আরও বলেন, দীর্ঘ ছয় বছর ধরে মাঠটি পানির নিচে, আউটার স্টেডিয়াম পানির নিচে থাকায় আমরা খেলাধুলা এবং প্র্যাকটিস পর্যন্ত করতে পারছি না। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যেন কোনও মাথাব্যথা নেই। 

মূল মাঠে পানি জমে থাকায় জন্মেছে বড় বড় ঘাস সাবেক ক্রিকেটার আল মামুন বলেন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ শুধু নতুন স্টেডিয়াম বানানোর প্রকল্প নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু এই স্টেডিয়ামটি সংস্কার করলে যে টাকা খরচ হবে, নতুন একটি স্টেডিয়াম তৈরি করলে তার থেকে দশগুণ বেশি খরচ পড়বে। কিন্তু তারা নতুন স্টেডিয়াম বানাতেই বেশি আগ্রহী। যে কারণে গত ছয় বছর ধরে পানির নিচে থাকলেও নারায়ণগঞ্জের স্টেডিয়ামটির কোনও সংস্কার হচ্ছে না। 

স্থানীয় ক্রিকেটার নাহিয়ান বলেন, ফতুল্লা খান সাহেব ওসামান আলী স্টেডিয়ামের পূর্বপাশের আউটার স্টেডিয়ামে ২০১২, ১৩ ও ১৪ সালে একাধারে প্র্যাকটিস করেছি। সে সময় আমার মতো অসংখ্য ছেলে সেখানে প্র্যাকটিস করেছে। কিন্তু মাঠটি রাস্তা থেকে নিচু হওয়ায় এবং সামান্য বৃষ্টি হলে পানি জমে  জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। পানি নিষ্কাশনের কোনও ব্যবস্থা নেই। যে কারণে মাঠটি দীর্ঘদিন ধরেই পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। 

তিনি আরও বলেন, একটি মাঠের অভাবে আমাদের খেলাধুলা ও প্র্যাকটিস ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, ঝরে পড়ছে উঠতি বয়সের খেলোয়াড়রা।


নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমেদ টিটু বলেন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ চাইলে আগামী সাত দিনের মধ্যে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ শুরু করে দিতে পারে। একজন খেলোয়াড় বা সংগঠক হিসেবে স্টেডিয়ামের দ্রুত সংস্কার শুরু করার দাবি জানাচ্ছি। 
তিনি আরও বলেন, এই মাঠে যদি একটি আর্ন্তজাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় তবে বাংলাদেশের সব মানুষ কিন্তু নিজের দেশে খেলা হচ্ছে বলেই খেলা দেখবে। এই জন্য বলছি এটি নারায়ণগঞ্জবাসীর নয়, দেশের সম্পদ।

তবে স্টেডিয়াম সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে আছে। সেখানে জলাবদ্ধতার পানি আটকে থাকে। স্টেডিয়ামের প্রকৃত মালিক হচ্ছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। পরিষদ ক্রিকেট বোর্ডকে মাঠটি ব্যবহারের জন্য দিয়েছিল। স্টেডিয়ামের সংস্কারের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ যৌথভাবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মাধ্যমে একটি কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ইতোমধ্যে ফিজিবিলিটি স্টাডি হয়েছে। শুনেছি খুব দ্রুতই সংস্কার কাজ শুরু হবে। এটি ভেঙে নতুন করে উঁচু করে স্টেডিয়ামের আনুসাঙ্গিক কাজ করা হবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক এবং সিনিয়র মাঠ ব্যবস্থাপক সৈয়দ আব্দুল বাতেন বলেন,  জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ও সিবিসি যৌথভাবে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে। এরই মধ্যে বুয়েট ড্রয়িং ডিজাইনের কাজ শেষ করেছে। এখন বিল অব কনট্রাক্টের কাজ চলছে। বুয়েটের সমীক্ষা শেষে আগামী ২০ বা ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কত টাকা ব্যয় হবে সেই প্রস্তাবনা দেওয়া হবে। পরে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়ে সংস্কার কাজ শুরু করা হবে বলে জানান তিনি।

 

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২১

দিনাজপুরের সদর ও বিরলে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অভিযানে জঙ্গি সন্দেহে প্রায় ৪৫ জনকে আটক করা হয়েছে। কয়েকটি মসজিদে অভিযান চালানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজন সরকার। তবে নির্দিষ্ট কত জনকে আটক করা হয়েছে তা তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।

কথা হলে তিনি জানান, ঢাকা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা কয়েকটি মসজিদে অভিযান চালিয়েছেন। তারা আমাদের সহযোগিতা চেয়েছিল, এই হিসেবে তাদের সহায়তার জন্য দিনাজপুর থেকে পুলিশ সদস্যদের দেওয়া হয়েছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত (১৭ সেপ্টেম্বর) ১২টার দিকে ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট দিনাজপুর সদর উপজেলার মহারাজা মোড়ের পূর্ব দিকে বাইতুল ফালাহ জামে মসজিদে অভিযান চালায়। এ সময় সেখান থেকে ১২ জনকে আটক করা হয়। একইসময়ে বিরল উপজেলার বিরল বাজার জামে মসজিদে অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে আটক করে ইউনিটের সদস্যরা। এছাড়া উপজেলা আরও দুটি মসজিদ থেকে প্রায় ১৫ জনকে আটক করা হয়। 

দুটি উপজেলার অভিযানেই স্থানীয় পুলিশ সদস্যরা সহযোগিতা করেন। 

পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, তাবলিগ জামায়াতের একটি দল দিনাজপুর সদর ও বিরল উপজেলায় বিভক্ত হয়ে নাশকতার পরিকল্পনা করছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে রাতে দিনাজপুরে আসে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা। পরে তারা স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করে।

বাইতুল ফালাহ জামে মসজিদের খাদেম আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বৃহস্পতিবার ২২ জন মানুষ ঢাকা থেকে আসেন। তাদের মধ্যে ১২ জন এখানে অবস্থান করে বাকিরা অন্য মসজিদে থাকার কথা বলে চলে যান। রাতে এশার নামাজের পরে আমরা বাসায় চলে গেলে তারা এই মসজিদেই অবস্থান করছিল। পরে রাতে শুনতে পারি তাদেরকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৩

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একদিনে আরও পাঁচ জন মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টার মধ্যে তারা মারা যান। এ নিয়ে চলতি সেপ্টেম্বরের ১৭ দিনে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১০৮ জনের মৃত্যু হলো। 

এর মধ্যে করোনায় ৩৬ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ৬০ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় সাত জনের মৃত্যু হয়।

এর আগে গত আগস্ট মাসে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৩৭৪ জন। এর মধ্যে করোনায় ১৫৪ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ১৮৬ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ৩৪ জনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। 

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে দুই জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে রাজশাহীর তিন জন, নওগাঁ ও নাটোরের একজন করে রোগী মারা গেছেন।

হাসপাতালের পরিচালক আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ১৪ জন। এ নিয়ে ২৪০ বেডের বিপরীতে মোট ভর্তি রোগী আছেন ১১৩ জন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

শুভ্রার ঘরে এলো নতুন অতিথি

শুভ্রার ঘরে এলো নতুন অতিথি

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

সর্বশেষ

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন বদলের কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

প্রতিবেদন বদলানোর কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

© 2021 Bangla Tribune