X
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘করোনাকালে মানুষের উপদ্রব কমায় সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে’

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:০৩

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার বলেছেন, সুন্দরবনের বাঘ সংরক্ষণে সরকার বদ্ধপরিকর। সুন্দরবনে বাঘের বসবাস উপযোগী নিরাপদ আবাসস্থল নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন উদ্দেশে সুন্দরবনে মানুষের প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, করোনাকালে সুন্দরবনে মানুষের উপদ্রব কম হওয়ায় বাঘের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কিছু মানুষের জন্য বিশ্ব ঐতিহ্যের সুন্দরবন এবং জাতীয় পশু বাঘের কোনও ক্ষতি হতে দেওয়া হবে না।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকালে ‘বাঘ বাঁচায় সুন্দরবন, সুন্দরবন বাঁচায় লক্ষ জীবন’ প্রতিপাদ্যে আন্তর্জাতিক বাঘ দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে বন অধিদফতর আয়োজিত ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ উপমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওয়েবিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল,  অতিরিক্ত সচিব ইকবাল আবদুল্লাহ হারুন এবং প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিদ মজুমদার বাবু প্রমুখ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বন বিভাগের উপ-প্রধান বন সংরক্ষক মো.জাহিদুল কবির, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোস্তফা ফিরোজ, বন সংরক্ষক মোল্লা রেজাউল করিম এবং বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ড. আবু নাসের মহসিন হোসেন প্রমুখ।

উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার তার বক্তব্যে বাঘ সংরক্ষণে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সুন্দরবনের বাঘ সংরক্ষণের লক্ষ্যে রক্ষিত এলাকার পরিমাণ আরও বাড়ানো হবে। বাঘ শিকার প্রতিরোধে সুন্দরবনের মধ্যে জিপিএস এর সাহায্যে ‘স্মার্ট পেট্রোলিং’ পরিচালনা করা হচ্ছে। সুন্দরবনে বন ও বন্যপ্রাণী রক্ষায় পর্যবেক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বন বিভাগ ড্রোন ব্যবহার করছে। বন্যপ্রাণীর সুপেয় পানির জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক মিঠাপানির পুকুর খনন করা হয়েছে।

/এসএনএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০০

রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেলের (এমআরটি-৬) ভাড়ার প্রস্তাব এখনও করা হয়নি। এমনটা জানিয়েছে ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ)। তবে চলতি সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে মেট্রোর মাসিক বা দৈনিক ব্যয় নির্ধারণ করে সরকারের জানানো হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। এরপর ভাড়ার প্রস্তাব সরকারের কাছে পাঠানো হবে। বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে যে তথ্য এসেছে সেটি সঠিক নয় বলেও দাবি প্রতিষ্ঠান দুটির।

জানতে চাইলে ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) নির্বাহী পরিচালক ও ভাড়া নির্ধারণ কমিটির প্রধান খন্দকার রাকিবুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মেট্রোরেলের ভাড়া নিয়ে কোনও প্রস্তাব করিনি। এ নিয়ে কারও সঙ্গে কথাও হয়নি। ভুল তথ্য ছড়িয়েছে। ভাড়া নির্ধারণ ছাড়াতো ট্রেন চলবে না। সময় হলে গণমাধ্যমও জানতে পারবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেট্রোরেল নিয়ে যেমন সাধারণ মানুষের আগ্রহ রয়েছে, সরকারও এটাকে গুরুত্ব দিচ্ছে। মানুষের সক্ষমতা বিবেচনায় নিয়েই ভাড়া নির্ধারণ করা হবে।’

কর্তৃপক্ষ বলছে, মেট্রোরেল রক্ষাবেক্ষণের বিশাল এ ব্যয় শুধু যাত্রীর ভাড়া থেকে তোলা সম্ভব নয়। এ জন্য বিকল্প আয় বা ভর্তুকির প্রয়োজন। বিকল্প আয় না থাকলে ভাড়া হবে এক রকম, থাকলে হবে আরেকরকম।

জানতে চাওয়া ডিএমটিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন সিদ্দিক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মেট্রোরেল তো আমার বিষয় নয়। সরকার নির্ধারণ করবে। ব্যয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ভাড়া নির্ধারণ করা হলে ভর্তুকির প্রশ্ন আসবে কেন?’

তিনি আরও বলেন,‘আমাদের আইনে দুটি বিষয় আছে। প্রথমত, জনগণের সক্ষমতা। দ্বিতীয়ত, মেট্রোরেল পরিচালনা ব্যয়। এখন সমন্বয় নিয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত আগাম কিছুই বলা যাবে না।’

মেট্রোরেল এমডি আরও বলেন, ‘আমাদের যেটা পরিচালনা ব্যয় তা সরকারকে জানিয়ে দেবো। আমরা বলবো পরিচালনা ব্যয় এত টাকা হলে মেট্রোরেল নিজের মতো চলতে পারবে। সরকার যদি মনে করে প্রথম দিকে একটু কমিয়ে ভাড়া রাখবো, সে ক্ষেত্রে খরচ না উঠলে তো মেট্রোরেল চলতে পারবে না। এটা যদি সমন্বয় করা হয় তবে নিশ্চিতভাবে আমরা প্রথম থেকেই নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবো। না হলে বিকল্প চিন্তা করতে হবে।’

প্রতিমাসে কী পরিমাণ খরচ হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা নিয়ে কাজ করছি। হয়তো মাসখানেক পর একটা হিসাব দিতে পারবো।’

বিকল্প উৎস থেকে আয়ের প্রসঙ্গে এমডি বলেন, ‘সেখান থেকে তো আয় আসবে। এটা বিশ্বের সবখানেই রয়েছে। শুধু ভাড়া দিয়ে মেট্রোরেল লাভজনক করা যাবে না। এর সঙ্গে আরও কিছু সংযুক্ত রয়েছে। স্টেশনে কমার্শিয়াল স্পেস, টিওডি বা ট্রান্সপোর্ট অব ইন্টার ডেভেলপমেন্ট ও স্টেশন প্লাজা- এই তিন বিষয় সংযুক্ত করা গেলে ঘাটতি মেটানো যাবে। এভাবেই বাদবাকি বিশ্বের মেট্রোরেল লাভজনকভাবে চলছে।’

/এফএ/আপ-এনএইচ/

সম্পর্কিত

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০০

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রম শুরুর আগেই ‘দারিদ্র্য পীড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং প্রকল্পে’র মেয়াদও বেড়েছে ছয় মাস। ইতোমধ্যে বর্ধিত সময়ের তিন মাস পার হয়ে গেলেও প্রকল্পের অর্থ ছাড় হয়নি। ফলে প্রাথমিকের ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর উচ্চপুষ্টিমান নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। এতে শিক্ষার্থী ঝরে পড়ারও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এডিপিতে বরাদ্দ ছিল না। বরাদ্দের জন্য মন্ত্রণালয়ে লিখেছি। বরাদ্দ পাওয়া সাপেক্ষে কার্যক্রম শুরু হবে।’

সংশ্লিষ্ট  সূত্রে জানা গেছে, গত ১৭ আগস্ট শর্তসাপেক্ষে গত জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ছয় মাস প্রকল্পের মেয়াদ বাড়িয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয় পরিকল্পনা কমিশন। এর এক সপ্তাহ পর প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরকে (ডিপিই) জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই চিঠি পেয়ে প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। কিন্তু বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এর কোনও অগ্রগতি নেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি চেয়ে প্রস্তাব পাঠায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। গত ৭ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির বিষয়টি জানিয়ে মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। এরপর প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াতে ডিপিইকে ফের প্রস্তাব পাঠাতে নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ জুন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ‘দারিদ্র্য পীড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং প্রকল্পের’ মেয়াদ বাড়াতে পত্র দেন। পত্রে জানানো হয়, ‘দারিদ্র্য পীড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং প্রকল্প’ব্যয় না বাড়িয়ে ২০২১ সালের জুনে শেষ হবে।

কিন্তু প্রকল্পের কার্যক্রম চলমান রাখা এবং মার্চ ২০২১ থেকে ৫ বছর ৪ মাস মেয়াদে পর্যায়ক্রমে দেশের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সম্প্রসারণের জন্য প্রকল্প প্রস্তাব পরিকল্পনা কমিশনের পাঠায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর ওই সময় জানায়, চলমান প্রকল্পসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়/বিভাগের মাধ্যমে বাস্তবায়নাধীন স্কুল ফিডিং কার্যক্রম পর্যালোচনা করে একটি কার্যকর মডেল নির্ধারণ এবং প্রক্কলনের যথার্থতা যাচাই করার জন্য কমপক্ষে এক বছর সময় প্রয়োজন হবে।

মন্ত্রণালয় জানায়, গত ১ জুন একনেক সভায় প্রকল্প সম্প্রসারণের অনুমোদন না দিয়ে চলমান মিল মোডালিটি পর্যালোচনা করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। কারণ, প্রকল্পে ফিজিবিলিটি স্টাডির জন্য বিদেশ সফরের প্রস্তাবনা থাকায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে প্রকল্পটি।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, দেশের দরিদ্র পীড়িত এলাকায় ২০১০ সাল থেকে স্কুল ফিডিং কর্মসূচি শুরু হয়। বর্তমানে ১০৪টি উপজেলায় ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে প্রতিদিন ৭৫ গ্রামের এক প্যাকেট বিস্কুট বিতরণ করা হয়। বিস্কুট থেকে একজন শিক্ষার্থী প্রতিদিন ৩৩৮ কিলোক্যালরি শক্তি পায়। এছাড়া মিড ডে মিল কর্মসূচির আওতায় দেশের ১৬টি উপজেলায় শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবারও দেওয়া হয়।

/এমআর/আপ-এনএইচ/

সম্পর্কিত

‘বাড়ছে আরও একটি ক্লাস’

‘বাড়ছে আরও একটি ক্লাস’

বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্লেন্ডেড লার্নিং এগিয়ে নিতে সহযোগিতার আগ্রহ যুক্তরাষ্ট্রের

বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্লেন্ডেড লার্নিং এগিয়ে নিতে সহযোগিতার আগ্রহ যুক্তরাষ্ট্রের

এসএসসি ৫ থেকে ১১ নভেম্বর, এইচএসসি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে

এসএসসি ৫ থেকে ১১ নভেম্বর, এইচএসসি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫১

প্রথম ধাপের স্থগিত ১৬০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলবে একটানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত। এছাড়াও আজ দেশের ৯টি পৌরসভা ও স্থানীয় সরকার পরিষদের কয়েকটি উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

করোনা মহামারির কারণে স্থগিত প্রথম ধাপের ১৬০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত ৪৪ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।  ইউপি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। দলীয় প্রতীকের এ ভোটে বিএনপি না থাকলেও আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশসহ কয়েকটি দল অংশ নিয়েছে। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বিএনপিরও কয়েকজন নেতাকর্মী।

সুষ্ঠুভাবে এসব নির্বাচনে ভোটগ্রহণের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল রবিবার প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে গেছে। ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে মাঠে নিয়োজিত আছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

স্বচ্ছ, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন নির্বাচন কমিশনের সচিব মো. হুমায়ন কবীর খোন্দকার। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আমরা যে প্রস্তুতি নিয়েছি তাতে আশা করতে পারি ভোট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে।

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, নির্বাচনী এলাকায় কোনও সাধারণ ছুটি থাকছে না। তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ছুটির আওতায় থাকবে। নাগরিকরা সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে ছুটি নিয়ে ভোট দিতে পারবেন।

১৬১টি ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা থাকলেও উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় একটি ইউপি নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচনে ১৬০টি ইউপির মধ্যে ৪৪টিতে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের সকলেই আওয়ামী লীগ মনোনীত। তবে এসব ইউপিতে সাধারণ সদস্য এবং সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলা ট্রিবিউনের নোয়াখালী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, আজ সোমবার নোয়াখালীর কবিরহাট পৌরসভা, হাতিয়ার সাতটি ও সুবর্ণচর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন ভোটগ্রহণ চলছে। তবে, কবিরহাট পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থী জহিরুল হক রায়হান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় শুধুমাত্র কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

কক্সবাজার প্রতিনিধি জানান, কক্সবাজারের চকরিয়া ও মহেশখালী পৌরসভা এবং চার উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নির্বাচনকে অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে প্রশাসনের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রয়েছে। প্রচারণার সময় কিছু এলাকায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটলেও তা নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে না বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন অনুযায়ী, ভোট গ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে প্রচার-প্রচারণা বন্ধ করতে হয়। সে হিসাবে ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টায় প্রচার কাজ বন্ধ হয়েছে। এ সময়ের পর প্রার্থী বা সমর্থকদের কেউ কোনও ধরনের প্রচারণা চালাতে পারবেন না।

নির্বাচনী এলাকায় যেসব যান চলাচল বন্ধ
১৮ সেপ্টেম্বর মধ্যরাত থেকে ২১ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া ভোটের আগের দিন ১৯ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা হতে ভোটের দিন ২০ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ, লঞ্চ, স্পিডবোট এবং ইঞ্জিনচালিত নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া জরুরি সেবাসহ অন্যান্য পরিবহন চলাচল করতে পারবে।

দেশে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ইউপিতে কয়েক ধাপে ভোট গ্রহণ হবে। গত ৩ মার্চ প্রথম ধাপে ৩৭১টি ইউপির ভোটের তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। পরে করোনা পরিস্থিতির কারণে ভোট স্থগিত করা হয়। স্থগিত ভোটের মধ্যে গত ২০ জুন ২০৪টি ইউপির ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

/ইএইচএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

ইউপি নির্বাচন অবাধ-নিরপেক্ষ হবে: আশা ইসির

ইউপি নির্বাচন অবাধ-নিরপেক্ষ হবে: আশা ইসির

আইসিটি আইনের মামলায় বিএনপি সমর্থিত ১১ আইনজীবীর জামিন

আইসিটি আইনের মামলায় বিএনপি সমর্থিত ১১ আইনজীবীর জামিন

নট ফর সেল ক্লাব: মধু পূর্ণিমায় উন্মুক্ত হচ্ছে ‘বুদ্ধ’

নট ফর সেল ক্লাব: মধু পূর্ণিমায় উন্মুক্ত হচ্ছে ‘বুদ্ধ’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৬

স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক আব্দুল মালেক ওরফে মালেক ড্রাইভারের বিরুদ্ধে দায়ের করা অস্ত্র আইনের মামলার রায় আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঘোষণা করা হবে। রাষ্ট্রপক্ষের দাবি, আসামি সর্বোচ্চ সাজা পাবেন।

আজ সোমবার দুপুর ১২টায় ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত আসামির উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করবেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর মোহাম্মাদ সালাহউদ্দিন হাওলাদার জানান, ‘আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। আশা করছি, তার সর্বোচ্চ সাজা হবে। 

অন্যদিকে মালেকের আইনজীবী শাহিনুর ইসলাম জানান, ‘রাষ্ট্রপক্ষ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি। আশা করছি, তিনি খালাস পাবেন।’

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়াস্থ ৪২ নম্বর বামনেরটেক হাজী কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলার বাসা থেকে আব্দুল মালেককে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাব-১ এর পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেন।

চলতি বছর ১১ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মেহেদী হাসান চৌধুরী ড্রাইভার মালেককে একমাত্র আসামি করে অস্ত্র মামলায় চার্জশিট আদালতে দাখিল করেন।

পরে গেল ১১ মার্চ ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত আসামি মালেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে মামলাটির বিচারের জন্য আদেশ দেন। 

করোনার প্রাদুর্ভাব কিছুটা কমে গেলে ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায় শেষ করেন। মামলাটির ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত।

এরপর ৬ সেপ্টেম্বর মামলাটি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম এর আদালতে পরবর্তী বিচার কাজের জন্য বদলির আদেশ দেন মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত।

র‌্যাবের ভাষ্য, তিনি পেশায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলের একজন ড্রাইভার এবং তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত। তিনি ১৯৮২ সালে সর্বপ্রথম সাভার স্বাস্থ্য প্রকল্পে ড্রাইভার হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলে ড্রাইভার হিসেবে চাকরি শুরু করেন।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫১

নারায়ণগঞ্জে পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগে ব্যাপক জালিয়াতি ও সম্ভাব্য ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে নিয়োগের ঘটনায় নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু ও পূর্ণাঙ্গ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। দুর্নীতি বিরোধী প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এই অনিয়মের কারণে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর প্রতি আস্থার সংকট তীব্রতর হওয়ার ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এই দাবি জানান।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালে জেলা কোটায় নারায়ণগঞ্জ পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগে কাগজপত্র যাচাই-বাছাই এবং পুলিশ ভ্যারিফিকেশন রিপোর্টে ব্যাপক অনিয়ম ও জালিয়াতি হয়েছে, যা ২০২০ সালে পুলিশ হেডকোয়ার্টারের এক তদন্তে উঠে এসেছে। সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত ওই তদন্ত রিপোর্টের তথ্যে দেখা যায়, নিয়োগপ্রাপ্ত কনস্টেবলদের অন্তত ১৮ জনের বিরুদ্ধে ভুয়া ও জাল কাগজপত্র দাখিল করে চাকুরিতে নিয়োগ পাওয়ার প্রমাণ মিলেছে। এমনকি স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ার প্রমাণপত্র হিসেবে ভিন্ন ভিন্ন ৫ জন একই নিবন্ধন নম্বরের জমির দলিল প্রদান করেছে এবং অন্তত ১১ জন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ২৩ দিন পর একই তারিখে, হুবহু একই মৌজা, দাগ ও খতিয়ানে একই সিএস, এসএ ও আরএস নম্বরে নিবন্ধিত জমির দলিল জমা দিয়েছে, যা আদতে অসম্ভব ও অবিশ্বাস্য! অথচ যাচাই-বাছাইয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ বিষয়টি সম্পূর্ণরূপে এড়িয়ে গেছেন কিংবা গোপন করে ইতিবাচক রিপোর্ট প্রদান করেছেন, যা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সরাসরি সম্পৃক্ততা ছাড়া সম্ভব নয় বলেই ধারণা করা যায়।’

প্রকাশিত এই ঘটনা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীতে নিয়োগে অনিয়ম-দুর্নীতির বহুল প্রচারিত ‘কথিত গুজব’-এর প্রমাণ হিসেবে দেখা যেতে পারে মন্তব্য করে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক আরও বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর নিয়োগে অনিয়ম-দুর্নীতি ও জালিয়াতির কথা শোনা গেলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা স্বীকার করা হয় না। তাই নারায়নগঞ্জের এই ঘটনা ‘হিমশৈলের চূড়ামাত্র’ একথা বলা অত্যুক্তি হবে না। এই ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা না গেলে আগামীতে এই ধরণের অনিয়মের বেপরোয়া পুনরাবৃত্তি রোধ সম্ভব হবে না এবং অপরাধীরা আরো দুঃসাহসী হয়ে উঠবে; যা চূড়ান্ত বিচারে আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর ওপর জনগনের বিশ্বাস ও আস্থার সংকট আরও প্রকট করবে। তাই অবিলম্বে দ্রুততম সময়ের মধ্যে কোন রাখঢাক না করে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এবং তদন্ত রিপোর্ট সর্বসমক্ষে প্রকাশ করে, দোষীদের বিভাগীয় প্রক্রিয়া ও প্রচলিত রাষ্ট্রীয় আইনে দৃষ্টান্তমূলক জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে।’

/এআরআর/জেজে/

সম্পর্কিত

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

প্রাথমিকের বিস্কুট বিতরণ প্রকল্প: মেয়াদ বাড়লেও কার্যক্রম শুরু হয়নি

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

‘বাড়ছে আরও একটি ক্লাস’

‘বাড়ছে আরও একটি ক্লাস’

ঢাকায় শুরু হলো রোহিঙ্গাদের শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক প্রদর্শনী

ঢাকায় শুরু হলো রোহিঙ্গাদের শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক প্রদর্শনী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

সাড়ে ৫ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

সাড়ে ৫ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

সর্বশেষ

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

‘মেট্রোরেলের ভাড়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে’

সাকিবদের ‘ভয়ঙ্কর’ কলকাতা মাঠে নামছে আজ

সাকিবদের ‘ভয়ঙ্কর’ কলকাতা মাঠে নামছে আজ

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

জালালাবাদে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার আইএসের

ময়মনসিংহে মৃত্যু-শনাক্ত কমেছে

ময়মনসিংহে মৃত্যু-শনাক্ত কমেছে

চট্টগ্রামে সর্বনিম্ন শনাক্তের দিনে একজনের মৃত্যু

চট্টগ্রামে সর্বনিম্ন শনাক্তের দিনে একজনের মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune