X
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

সালমান শাহকে হারানোর ২৫ বছর

আপডেট : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৯

বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে উজ্জ্বল ও ক্ষণজন্মা নায়কের নাম সালমান শাহ। আজ (৬ সেপ্টেম্বর) তার অকাল প্রস্থানের দিন। মাঝে পেরিয়ে গেলো ২৫ বছর।

১৯৯৬ সালের এই দিনে (৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ইস্কাটনের নিজ ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় এই নায়কের লাশ। সে সময় তার বাবা প্রয়াত কমরউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন।

অপমৃত্যু নয়, বরং হত্যা করা হয়েছে তার ছেলেকে—এ প্রশ্ন তুলে তিনি ঢাকার সিএমএম আদালতে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। যার সুরাহা হয়নি আজও। ছেলের অকাল মৃত্যুর রহস্য উন্মোচনের জন্য এখনও আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরী।

সালমান শাহের মৃত্যুর ২৫ বছর পরও রহস্যের জাল এখনও ছিঁড়েনি। তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন, নাকি খুন হয়েছিলেন—এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর আজও খুঁজে চলেছেন সালমান স্বজন-ভক্তরা। যদিও ২০২০ সালে পিবিআইর তদন্ত প্রতিবেদনে জানানো হয়, সালমান শাহের মৃত্যু হত্যা নয়, আত্মহত্যা।

৯০ দশকের শ্রেষ্ঠতম নায়ক সালমানের প্রকৃত নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। এ অভিনেতা মাত্র ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। যার বেশিরভাগই ছিল তুমুল জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল। মাত্র তিন বছরের অভিনয় জীবনে এতটা দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র উপহার দেওয়ার ইতিহাস বিরল।

১৯৯৩ সালে সালমান অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‌‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ মুক্তি পায়। এরপর থেকেই বাংলা চলচ্চিত্রে ভরসার প্রতিশব্দ হয়ে ওঠেন এ নায়ক।

সালমান শাহ অভিনীত চলচ্চিত্রগুলো:

কেয়ামত থেকে কেয়ামত-১৯৯৩
তুমি আমার-১৯৯৪
অন্তরে অন্তরে-১৯৯৪
সুজন সখী-১৯৯৪
বিক্ষোভ-১৯৯৪
স্নেহ-১৯৯৪
প্রেমযুদ্ধ-১৯৯৫
কন্যাদান-১৯৯৫
দেনমোহর-১৯৯৫
স্বপ্নের ঠিকানা-১৯৯৫
আঞ্জুমান-১৯৯৫
মহামিলন-১৯৯৫
আশা ভালোবাসা-১৯৯৫
বিচার হবে-১৯৯৬
এই ঘর এই সংসার-১৯৯৬
প্রিয়জন-১৯৯৬
তোমাকে চাই-১৯৯৬
স্বপ্নের পৃথিবী-১৯৯৬
সত্যের মৃত্যু নেই-১৯৯৬
জীবন সংসার-১৯৯৬
মায়ের অধিকার-১৯৯৬
চাওয়া থেকে পাওয়া-১৯৯৬
প্রেম পিয়াসী-১৯৯৭
স্বপ্নের নায়ক-১৯৯৭
শুধু তুমি-১৯৯৭
আনন্দ অশ্রু-১৯৯৭

বুকের ভেতর আগুন-১৯৯৭।

সালমান শাহ’র আত্মহত্যার পেছনে পাঁচটি কারণ রয়েছে বলে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্তে উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলো হলো:

১. সালমান শাহ ও চিত্রনায়িকা শাবনূরের অতিরিক্ত অন্তরঙ্গতা।

২. স্ত্রী সামিরার সঙ্গে দাম্পত্য কলহ।

৩. সালমান শাহ’র মাত্রাতিরিক্ত আবেগপ্রবণতা এবং একাধিকবার আত্মঘাতী হওয়া বা আত্মহত্যার চেষ্টা করা।

৪. মায়ের প্রতি অসীম ভালোবাসা, জটিল সম্পর্কের বেড়াজালে পড়ে পুঞ্জীভূত অভিমানে রূপ নেওয়া।

৫. সন্তান না হওয়ায় দাম্পত্য জীবনের অপূর্ণতা।

সালমান শাহ হত্যা মামলার গতিবিধি:

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান চিত্রনায়ক চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার (ইমন) ওরফে সালমান শাহ। সে সময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছিলেন তার বাবা প্রয়াত কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী।

পরে ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে মামলাটিকে হত্যা মামলায় রূপান্তরিত করার আবেদন জানান তিনি। অপমৃত্যুর মামলার সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগের বিষয়টি একসঙ্গে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন আদালত।

৩ নভেম্বর ১৯৯৭ সালে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সিআইডি। চূড়ান্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহ’র মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়। ২৫ নভেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে এটি গৃহীত হয়। সিআইডি’র প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী রিভিশন মামলা দায়ের করেন।

২০০৩ সালের ১৯ মে মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে পাঠায় আদালত। এরপর প্রায় ১৫ বছর মামলাটি সে তদন্তে ছিল।

২০১৪ সালের ৩ আগস্ট ঢাকার সিএমএম আদালতের বিচারক বিকাশ কুমার সাহার কাছে বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রতিবেদন দাখিল করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইমদাদুল হক। এ প্রতিবেদনে সালমান শাহ’র মৃত্যুকে অপমৃত্যু হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর এ চিত্রনায়কের মা নীলা চৌধুরী ছেলের মৃত্যুতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন এবং ওই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেবেন বলে আবেদন করেন।

২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নীলা চৌধুরী ঢাকা মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেনের আদালতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে নারাজির আবেদন দাখিল করেন। সে আবেদনে উল্লেখ করা হয়, আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জন তার ছেলে সালমান শাহ’র হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারেন।

২০১৬ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ ৬-এর বিচারক ইমরুল কায়েশ রাষ্ট্রপক্ষের রিভিশনটি মঞ্জুর করেন এবং মামলাটি তদন্তের দায়িত্বে পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এরপরও নানা কারণে দফায় দফায় প্রতিবেদন প্রকাশের তারিখ পেছানো হয়। অবশেষে সেটি প্রকাশ হয় গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি।

/এমএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

নায়ককে নিয়ে শাবনূরের আবেগঘন স্মরণ

নায়ককে নিয়ে শাবনূরের আবেগঘন স্মরণ

তিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

তিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

‘মানবিক রাষ্ট্র গঠনে ভূমিকা রাখবেন অভিনয়শিল্পীরা’

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২২:২৮

বাংলাদেশকে বিশ্বের সামনে অনুসরণীয় একটি উন্নত ও মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে অভিনয় শিল্পীরা সক্রিয় ভূমিকা রাখবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে অভিনয় শিল্পী সংঘের বার্ষিক সাধারণ সভা ২০২১-এ অংশ নিয়ে তিনি এমন আশা ব্যক্ত করেন। এ সময় সংঘের ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।
 
অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি শহীদুজ্জামান সেলিমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিমের পরিচালনায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, চিত্রনায়ক আলমগীর, প্রথিতযশা অভিনয় শিল্পী মামুনুর রশীদ, তারিক আনাম খান, সালাহউদ্দীন লাভলু অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।
 
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে সম্মিলিতভাবে ২০৪১ সালের মধ্যে জাতির পিতার স্বপ্নের উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়া। ভৌত অবকাঠামোগতভাবে উন্নত এবং মানবিক ও সমাজকল্যাণ রাষ্ট্র গড়তে মানুষের মনন তৈরিতে অভিনয় শিল্পীদের ভূমিকা অপরিহার্য।’

বক্তৃতায় মন্ত্রী অভিনয় শিল্পীদের পেশার প্রতি মমতার জন্য অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, ‘শিল্পীরা শিল্পকে ভালোবেসেই অন্য পেশায় যাননি। অনেকে বহু সংগ্রাম ও ত্যাগ করেও অভিনয় জগতে রয়ে গেছেন, যারা চাইলেই অন্য পেশায় যেতে পারতেন। তারা আছেন বলেই আমাদের অভিনয় শিল্প সমৃদ্ধ হয়েছে।’

দেশের টেলিভিশন খাতের সুরক্ষা ও উন্নয়নে সরকারের পদক্ষেপগুলোর সঙ্গে একাত্মতার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কেউ কেউ মনে করেছিলেন আইন অনুযায়ী বিদেশি চ্যানেলের বিজ্ঞাপনমুক্ত বা ক্লিনফিড সম্প্রচার সম্ভব হবে না, তারা এ নিয়ে শোরগোল করারও চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সবার সহযোগিতায় দেশের স্বার্থে আমরা সেটি বাস্তবায়ন করতে পেরেছি।’
 
বরেণ্য শিল্পীরা তাদের বক্তৃতায় শিল্পী কল্যাণ ট্রাস্ট গঠনের জন্য প্রধানমন্ত্রী এবং তথ্যমন্ত্রীসহ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। সেই সঙ্গে গণমাধ্যম ও অভিনয় জগতের দর্শনগত ও কর্মক্ষেত্র প্রসারে সরকারের ভূমিকা অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন তারা।

/এসআই/এমএম/এমওএফ/
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

নায়ককে নিয়ে শাবনূরের আবেগঘন স্মরণ

৫০-এ সালমান শাহনায়ককে নিয়ে শাবনূরের আবেগঘন স্মরণ

তিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

৫০-এ সালমান শাহতিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

সালমান শাহ ভাটির আগে উজানের ঢেউ: শাকিব খান

সালমান শাহ ভাটির আগে উজানের ঢেউ: শাকিব খান

সালমান শাহের গান গাইলেন পড়শী

সালমান শাহের গান গাইলেন পড়শী

সর্বশেষ

হেলিকপ্টারে করে ভোট কেন্দ্রে পৌঁছালেন কর্মকর্তারা

হেলিকপ্টারে করে ভোট কেন্দ্রে পৌঁছালেন কর্মকর্তারা

নির্বাচ‌নে জিত‌তে রাতে বিতরণ হচ্ছিলো টাকা 

নির্বাচ‌নে জিত‌তে রাতে বিতরণ হচ্ছিলো টাকা 

ন্যায়বিচারের অপেক্ষায় আবরারের বাবা-মা

ন্যায়বিচারের অপেক্ষায় আবরারের বাবা-মা

আবরার হত্যা মামলার রায় আজ

আবরার হত্যা মামলার রায় আজ

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

© 2021 Bangla Tribune