X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

এবার আলুর ন্যায্য দাম পাবেন না কৃষকরা: বাণিজ্যমন্ত্রী 

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০৫

দেশে আলুর ভালো ফলন হওয়ায় বাজারে দাম কমবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন,  ডিমান্ড আর সাপ্লাইয়ের কারণে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষপত্রের দাম বাড়ছে। যেমন- আলুর দাম কমে গেছে, এবার কৃষক উৎপাদিত আলুর ন্যায্য দাম পাবে না। কারণ চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি আলু উৎপাদন হয়েছে। তারপরেও আমরা চেষ্টা করছি কৃষক যাতে তাদের উৎপাদিত পণ্যের ভালো দাম পায়। আর শীতকালীন শাক-সবজির দাম বেড়েছে, তবে এই দাম ২-৪ দিনের মধ্যে কমে যাবে। 

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুর টাউন হলে রংপুর মহানগর মুক্তিযোদ্ধাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি কথা নিয়ে রচিত স্মৃতিতে রণাঙ্গন গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তেল ও চিনির দাম বাড়ার বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আর্ন্তজাতিক বাজারে ভোজ্যতেল আর চিনির দাম বাড়ার কারণে দেশের বাজারে পণ্য দুটির দাম বেড়েছে। যখনই আর্ন্তজাতিক বাজারে দাম কমে, তখন আমরা মূল্য পুনর্নির্ধারণ করে দেওয়ার চেষ্টা করি। তারপরেও আমরা সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছি, যাতে দাম না বাড়ে ও ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে। 

ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যবৈষম্য দকমিয়ে আনার চেষ্টা চলছে জানিয়ে তিনি আরও বরেন, আমরা ভারতের সঙ্গে এসব নিয়ে কথা বলছি। কিছু কিছু পণ্য রফতানিতে আমরা প্রতিবন্ধিকতার শিকার হচ্ছি। আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা চলছে। আমরা ভারতে মাছ রফতানির প্রস্তাব দিয়েছি। ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যে ভারসাম্য তৈরি করে ব্যালেন্স করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। 

রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মৃতিতে রণাঙ্গন গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের রংপুরের কমান্ডার মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু, মুক্তিযোদ্ধা সদরুল আলম দুলু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাজু, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি শাফিয়ার রহমান, সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল, রংপুর প্রেসক্লাব সভাপতি মাহবুব রহমান, সাধারণ সম্পাদক রফিক সরকার প্রমুখ। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনসিডিল রেখে ভারতে পালিয়ে গেলো চোরাচালানিরা

বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনসিডিল রেখে ভারতে পালিয়ে গেলো চোরাচালানিরা

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে ধরা

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০২

ময়মনসিংহে পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগে কামরুল হাসান (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। চাকরি দেওয়ার জন্য জেলা পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে তদবির করতে গিয়ে ধরা খান ওই প্রতারক। 

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাতে জেলার ভালুকা থেকে তাকে আটক করা হয়। কামরুল ফুলপুর উপজেলার বাঁশাটি গ্রামের মৃত গোলাম রব্বানীর ছেলে। 

বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকালে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

ওসি সফিকুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ কার্যক্রম চলমান সারা দেশে। একটি প্রতারকচক্র চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিচ্ছে। শুধু তাই নয়, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরিচয় দিয়ে পুলিশ সুপারকে ফোন দিয়ে তাদের চাকরি দেওয়ার জন্য তদবিরও করছে। 

তিনি আরও বলেন, গত সোমবার এমন একটি চক্রের তিন জনকে আটকের পর ডিআইজি পরিচয় দেওয়া আরও এক প্রতারককে আটক করা হয়েছে। 

জেলা পুলিশ সুপার আহমার উজ জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পুলিশের নাম ব্যবহার করে যে কেউ অপরাধ করলে আইনের আওতায় আনা হবে। তাদের শাস্তি ভোগ করতে হবে। পাশাপাশি মানুষকেও সচেতন হতে হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

জামালপুরে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে সমাবেশ

জামালপুরে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে সমাবেশ

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

স্কুলছাত্রীকে গলা কেটে হত্যা, সাবেক প্রেমিককে সন্দেহ পুলিশের

স্কুলছাত্রীকে গলা কেটে হত্যা, সাবেক প্রেমিককে সন্দেহ পুলিশের

খুঁটির বদলে গাছ ও বাঁশে বিদ্যুতের লাইন

খুঁটির বদলে গাছ ও বাঁশে বিদ্যুতের লাইন

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫১

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় ৬ষ্ঠ দফায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শেষ হয় সাক্ষ্যগ্রহণ। সাক্ষ্যগ্রহণে কক্সবাজারের দুই সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বলেছেন, সিনহা হত্যায় আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈলের আদালতে শুরু হয় মামলার বিচারিক কার্যক্রম। পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ১৫, ১৬ ও ১৭ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বিচারিক কার্যক্রমের শুরুতে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, সিনহা হত্যা মামলার নয় জন আসামি তার আদালতে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দি দেওয়ার আগে সব আসামিকে তিন ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়েছিল। তারপর স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

একই সাক্ষ্য দেন আরেক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন। জবানবন্দিতে তিনি আদালতকে জানান, সিনহা হত্যা মামলার তিন আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করেছিলেন তিনি। তারাও তিন ঘণ্টা সময় নিয়ে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন। 

আদালতের কার্যক্রম শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব কথা জানান পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম। তিনি বলেন, আগামী ১৫, ১৬ ও ১৭ নভেম্বর আদালত পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ করবেন। 

এদিকে, টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশের আইনজীবী রানা দাশ গুপ্ত জানিয়েছেন, মামলার ১২ আসামিকে চাপে ফেলে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে, শারীরিক নির্যাতন করে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে নিয়ে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তি দেননি। তাই জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন তিনি।

রানা দাশ গুপ্ত বলেন, তদন্তকারী সংস্থার পক্ষে আসামি প্রদীপকেও মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে স্বীকারোক্তি দিতে চাপ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রদীপ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেননি। কারণ তিনি সিনহা হত্যায় জড়িত ছিলেন না।

সকাল সাড়ে ৯টায় ওসি প্রদীপসহ মামলার ১৫ আসামিকে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় আদালতে আনা হয়। কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ ও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেনের সাক্ষ্যগ্রহণের মধ্য দিয়ে মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু হয়।

পিপি ফরিদুল আলম বলেন, সিনহা হত্যা মামলার ১৫ আসামির মধ্যে ১২ আসামির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিয়েছিলেন ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ এবং দেলোয়ার হোসেন। দুই সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশের আরও চার জন সদস্যকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। সময় স্বল্পতায় তাদের সাক্ষ্য নেওয়া হয়নি। পরবর্তী দিনে তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হবে। এই মামলায় এ পর্যন্ত ৫৯ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

গত বছরের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

/এএম/

সম্পর্কিত

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিহত ৬ রোহিঙ্গার পরিবারকে

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিহত ৬ রোহিঙ্গার পরিবারকে

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

শপথ নিলেন বাগেরহাটের নবনির্বাচিত ৬৬ ইউপি চেয়ারম্যান

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৫

বাগেরহাটে শপথ গ্রহণ করেছেন নবনির্বাচিত ৬৬ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান শপথ বাক্য পাঠ করান। শপথ নেওয়ার আগে নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান জেলা প্রশাসক।
অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক দেব প্রসাদ পাল, মোরেলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, পঞ্চকরণ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মজুমদার, বাঁশতলী ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল প্রমুখ।
গত ২০ সেপ্টেম্বর বাগেরহাটের ৬৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তারা প্রত্যেকেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়েছেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

গলায় মার্বেল আটকে এক বছরের শিশুর মৃত্যু

গলায় মার্বেল আটকে এক বছরের শিশুর মৃত্যু

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের প্রয়োজন আছে: ইনু

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনের প্রয়োজন আছে: ইনু

বিয়ে দিতে বাবার অসম্মতির কারণে ছেলের আত্মহত্যার অভিযোগ

বিয়ে দিতে বাবার অসম্মতির কারণে ছেলের আত্মহত্যার অভিযোগ

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ১৫টি ঘোড়া উপহার দিলো ভারত

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ১৫টি ঘোড়া উপহার দিলো ভারত

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৪

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় জেলা যুবদল সভাপতি মঞ্জুরুল আজিম সুমনসহ আরও তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

গ্রেফতার অন্য দুই জন হলেন, উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার দক্ষিণ পূর্ব হাজিপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম সুজন ও মধ্য হাজিপুর গ্রামের রাজু রহমান।

পুলিশ সুপার জানান, গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙ্গামাটির নানুয়ার চরে অভিযান চালিয়ে মঞ্জুরুল আজিম সুমনকে গ্রেফতার করে। তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার দেখিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। 

তিনি জানান, এর আগে সাম্প্রদায়িক হামলার মামলায় গ্রেফতার দুই আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে মঞ্জুরুল আজিম সুমনের নাম উঠে আসে। এ ছাড়াও সুমন আরও তিনটি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। তাকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ড আবেদন করবে পুলিশ।

চৌমুহনী মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যার ঘটনায় দায়ের করা তিনটি মামলা সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশ সুপার জানান, সুষ্ঠু ও নিবিড় তদন্তের স্বার্থে আরও কিছু মামলা পর্যায়ক্রমে সিআইডি ও পিবিআইতে হস্তান্তর করা হবে।

মো. শহীদুল ইসলাম জানান, জেলায় সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৯টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ২১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে এজাহারনামীয় ৯৪ জন ও সন্দেহভাজন ১১৮ জন। বেগমগঞ্জ মডেল থানার ১৪ মামলায় গ্রেফতার মোট ১৩৬ জন। এর মধ্যে এজাহারনামীয় ৬৪ জন ও সন্দেহভাজন ৭২ জন। তাদের মধ্যে ছয় জন ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। ১১ জন বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে আছেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিহত ৬ রোহিঙ্গার পরিবারকে

অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিহত ৬ রোহিঙ্গার পরিবারকে

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনসিডিল রেখে ভারতে পালিয়ে গেলো চোরাচালানিরা

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৬

পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলার দারখোর সীমান্ত থেকে ২৫৭ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে বিজিবি। বুধবার (২৭ অক্টোবর) ভোররাতে ভারত থেকে চালান নিয়ে আসার সময় টহলরত বিজিবি সদস্যরা সেগুলো উদ্ধার করেন।

বিজিবি জানায়, দারখোর বিওপির টহল দল সীমান্ত এলাকায় টহল দিচ্ছিল। এ সময় ভারত থেকে ফেনসিডিল নিয়ে নদীডাংগী এলাকার মেইন পিলার ৪০৩ ও ৪০৫-এর তিনশ’ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তর দিয়ে চোরাচালানিরা আসছিল। একপর্যায়ে বিজিবি সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে ফেনসিডিলগুলো রেখে তারা ভারতে পালিয়ে যায়। এরপর বিজিবি সদস্যরা ২৫৭ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল উদ্ধার করেন, যার মূল্য প্রায় দুই লাখ টাকা।

পঞ্চগড় ১৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খন্দকার আনিসুর রহমান জানান, সীমান্তে মাদক চোরাচালানে বিজিবি জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছে। মাদক ব্যবসা ও সেবন সমূলে উৎপাটন করা হবে।

উদ্ধার ফেনসিডিলগুলো ব্যাটালিয়নে জব্দ করে রাখা হয়েছে।

 

/এমএএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনসিডিল রেখে ভারতে পালিয়ে গেলো চোরাচালানিরা

বাংলাদেশ সীমান্তে ফেনসিডিল রেখে ভারতে পালিয়ে গেলো চোরাচালানিরা

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

এসএসসির ফরম পূরণের সময় জানলো জেএসসিতে ফেল

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

কুড়িয়ে পাওয়া ২ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিলেন ভ্যানচালক

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

বরাদ্দের আগেই প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের প্রচারণা

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুষ্টিয়ায় গ্রেফতার সিলেটের সাদি  

ফেরিডুবির ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি

ফেরিডুবির ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি

৪০০ টনের ফেরি উদ্ধারে কাজ করছে ৬০ টন সক্ষমতার হামজা

৪০০ টনের ফেরি উদ্ধারে কাজ করছে ৬০ টন সক্ষমতার হামজা

করোনায় আক্রান্ত শের-ই বাংলা মেডিক্যালের ৪২৬ নার্স, প্রণোদনা পাননি একজনও

করোনায় আক্রান্ত শের-ই বাংলা মেডিক্যালের ৪২৬ নার্স, প্রণোদনা পাননি একজনও

আমদানি বাড়ায় কমেছে পেঁয়াজের দাম

আমদানি বাড়ায় কমেছে পেঁয়াজের দাম

ফ্লাইওভারের পিলারে ফাটল নাকি ‘ফলস কাস্টিং’

ফ্লাইওভারের পিলারে ফাটল নাকি ‘ফলস কাস্টিং’

সর্বশেষ

পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে ধরা

পুলিশ সুপারকে ডিআইজি পরিচয়ে ফোন দিয়ে ধরা

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

‘সিনহা হত্যা মামলার আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিয়েছিল’

শপথ নিলেন বাগেরহাটের নবনির্বাচিত ৬৬ ইউপি চেয়ারম্যান

শপথ নিলেন বাগেরহাটের নবনির্বাচিত ৬৬ ইউপি চেয়ারম্যান

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর: জেলা যুবদল সভাপতিসহ গ্রেফতার ৩

সুদানে কার্যক্রম স্থগিত করলো বিশ্ব ব্যাংক

সুদানে কার্যক্রম স্থগিত করলো বিশ্ব ব্যাংক

© 2021 Bangla Tribune