X
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

প্রাণ দিয়েছেন, তবু মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড়েননি এএসআই পেয়ারুল

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৪২

জীবন বাজি রেখে সঙ্গীদের নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীকে ধরতে গিয়েছিলেন রংপুরের হারাগাছ থানার এএসআই পেয়ারুল ইসলাম। ঝুঁকি নিয়ে জাপটে ধরেছেনও। মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে ক্ষতবিক্ষত হয়েছেন। তবু মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড়েননি। দায়িত্বে পালনে কতটা অনড় ছিলেন জীবন দিয়ে প্রমাণ করে গেলেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

পেয়ারুল ইসলামের বাড়ি কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের চন্দ্রপাড়া গ্রামে। বাবা আব্দুর রহমান চন্দ্রপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। ২০১১ সালের ১৫ জানুয়ারি পুলিশে যোগ দেওয়া কনস্টেবল পেয়ারুল ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে এএসআই হন। হারাগাছ থানায় যোগ দিয়ে একাধিক অভিযানে মাদক উদ্ধার ও ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করেছেন। 

শুক্রবার রাতে হারাগাছ থানার বাহার কাছনার তেলিপাড়া এলাকায় মাদক মামলার আসামি ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত হন। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ‌সাড়ে ১১টার দিকে মারা যান।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে হারাগাছ থানার ওসি শওকত হোসেন বলেন, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শুক্রবার রাতে তিন পুলিশ সদস্যকে নিয়ে নগরীর বাহার কাছনা এলাকায় যান পেয়ারুল। সেখান থেকে মাদক ব্যবসায়ী পলাশকে ১৫১ পিস ইয়াবাসহ আটক করেন। এ সময় দৌড়ে পালাতে যায় পলাশ। তার পেছনে দৌড় দেন পেয়ারুল। অনেক দূর গিয়ে জাপটে ধরেন। তখন পেয়ারুলের সঙ্গীরা পেছনে পড়ে যান।    

এ সুযোগে পেয়ারুলকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে পলাশ। ছুরিকাঘাতে পাঁজরে রক্তক্ষরণ হলেও পলাশকে ছাড়েননি। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। একপর্যায়ে সঙ্গী ও স্থানীয়রা এসে পেয়ারুলকে উদ্ধার করে দ্রুত রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেই সঙ্গে পলাশকে আটক করে পুলিশ। অবস্থার অবনতি হলে পেয়ারুলকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এএসআই পেয়ারুল ইসলাম

খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন পেয়ারুলের বাবা, চাচা মেরাজুল ইসলাম, চাচাতো ভাই আব্দুস সালাম, আনোয়ারুল ও স্বজনরা। হাসপাতালে কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা। স্বজনদের আহাজারিতে আশপাশের পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। তাদের বুকফাটা আর্তনাদে হাসপাতালে শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। স্বজনদের সঙ্গে কান্নায় ভেঙে পড়েন সহকর্মীরাও।

চাচাতো ভাই আব্দুস সালাম বলেন, আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় অনেকেই জড়িত। সবাইকে আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশের কাছে আমাদের অনুরোধ।

পেয়ারুলের মৃত্যুর খবরে হাসপাতালে আসেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ, উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান, উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) মারুফুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারা শোকে মুহ্যমান।

পেয়ারুল ইসলামের স্বজনদের আহাজারি

কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান বলেন, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন  পেয়ারুল। তার শরীর, বুক, পেটসহ বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করেছিল পলাশ। জীবন দিয়ে প্রমাণ করেছে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালনে কতটা অবিচল। 

তিনি বলেন, বিষয়টিকে আমরা গুরুত্ব সহকারে দেখছি। ওই এলাকায় কারা কারা মাদক ব্যবসায় জড়িত, কারা কারা পলাশের সহযোগী তাদের গ্রেফতার করা হবে।

ওসি শওকত আলী বলেন, বিকাল ৫টার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে পেয়ারুলের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হয়েছে। রাতে পারিবারিক কবরস্থানে পেয়ারুল ইসলামকে দাফন করা হয়েছে।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে হিলিতে প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপি নেতারা

দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে হিলিতে প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপি নেতারা

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

ইউপি নির্বাচন

দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে হিলিতে প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপি নেতারা

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৩
video

এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয়ভাবে নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল বিএনপি। তবে দিনাজপুরের হিলিতে আসন্ন দ্বিতীয় দফার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপির স্থানীয় পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। এ ছাড়া চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে জামায়াতের এক নেতাও মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। সদস্য পদেও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপির অনেকে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আব্দুল মালেক; তিনি ওই ইউনিয়নের বিএনপির সদস্য। বোয়ালদাড় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মেফতাহুল জান্নাত; তিনিও জাতীয়তাবাদী দলটির সদস্য। এছাড়া আলিহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে থানা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাসুদ রানা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। একই ইউনিয়নেই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জামায়াতের আমিনুল ইসলাম। তিনি এর আগে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।

বোয়ালদাড় ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমাদানকারী মেফতাহুল জান্নাত বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দল থেকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দাঁড়ানো যাবে না- এমন কোনও নির্দেশনা আমি পাইনি। তবে আমি বর্তমান চেয়ারম্যান এবং এবারের নির্বাচনেও চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। আমি দলীয়ভাবে কোনও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি না এবং তাদের কোনও সমর্থন নেই।’

মনোনয়ন জমাদানকারী আব্দুল মালেক বলেন, ‘দলীয় সিদ্ধান্ত কী এটা আমি বলতে পারবো না। তবে আমি নির্বাচন করতেছি এটা আমি জানি। এই নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোননয়নপত্র জমা দিয়েছি ও আমি নির্বাচন করবো। আমি তো দলীয়ভাবে নির্বাচন করছি না।’

আলিহাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোননয়নপত্র জমাদানকারী মাসুদ রানা বলেন, ‘দলীয়ভাবে নির্বাচনে যাওয়ার কোনও সিদ্ধান্ত নেই, যা কেন্দ্র থেকে জানানো হয়েছে। তবে আমি স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে এই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করা যাবে না- এমন নির্দেশনা দলীয়ভাবে এখনও পাইনি।’

হাকিমপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফেরদৌস রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি দলীয়ভাবে অংশগ্রহণ করবে না। তাই এই নির্বাচনে আমাদের দলীয় কোনও প্রতীক নেই। কেউ যদি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দাঁড়ান সেটি তাদের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত।’

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শফিকুর রহমান আকন্দ বলেন, ‘উপজেলার তিন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, ইসলামী আন্দোলন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলিয়ে ১৪ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য পদে ১১৭ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য পদে ৩৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আগামী ২১ অক্টোবর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর। আগামী ১১ নভেম্বর ২৭টি কেন্দ্রে তিন ইউনিয়নে ভোট হবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২০

বাগেরহাটের কচুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়ার অভিযোগে ইসমাইল হোসেন (২১) নামে এক মাদরাসাশিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সকালে কচুয়া উপজেলার লড়ারকুল গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। দুপুরে ওই শিক্ষককে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ইসমাইল হোসেন লড়ারকুল গ্রামের মোস্তফা মৃধার ছেলে। তিনি লড়ারহাট খাদেমুল ইসলাম হাফিজিয়া মাদরাসার শিক্ষক।

কচুয়া থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মো. সেলিম মহলদার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছবি বিকৃত করে একটি ফেসবুক পেজে পোস্ট দেন ইসমাইল হোসেন। বিষয়টি দেখতে পেয়ে স্থানীয় জাকির হাজরা নামে এক ব্যক্তি পুলিশে খবর দেন। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

ইসমাইলের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ছবি বিকৃত করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টার অপরাধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কচুয়া থানায় মামলা করেছেন জাকির হাজরা। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ শেষে ইসমাইলকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এসআই সেলিম মহলদার।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে কারাগারে সাংবাদিক

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

নিখোঁজের ৮ দিন পর ধানক্ষেতে মিললো ইজিবাইক চালকের লাশ

যশোর বোর্ডের আড়াই কোটি টাকার সর্বশেষ গন্তব্য খুঁজছে দুদক

যশোর বোর্ডের আড়াই কোটি টাকার সর্বশেষ গন্তব্য খুঁজছে দুদক

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৮

টাঙ্গাইলের সখীপুরে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে একটি সড়ক পাকা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কাজ শেষ হওয়ার ১০ দিনের মাথায় উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। এমন দায়সারা কাজ করায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বানিয়ারসিট বাজার-দেবরাজ সড়কে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে আইআরআইডিপি প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার বানিয়ারসিট বাজার থেকে দেবরাজ সড়কের এক কিলোমিটার কাঁচা সড়ক পাকা করার কাজ পায় প্রাইম ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পাকাকরণের সময় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করেছে। 

বিটুমিন ছাড়া সড়ক পাকা করায় হাত দিয়ে টান দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। এখনও প্রায় ৫০ মিটার সড়ক পাকাকরণের বাকি রয়েছে। নির্মাণের সময় স্থানীয়রা বাধা দিলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়। পরে স্থানীয়দের কার্পেটিং উঠানোর ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় সমালোচনা। এরপর বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করেন ঠিকাদার।

নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে সড়ক পাকা করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের

কালিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মন্ডল বলেন, ‘১০ দিন আগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ শেষ করেছে। পাকাকরণের কাজটি অত্যন্ত নিম্নমানের। এজন্য হাত দিয়ে টান দিলেই কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। নিম্নমানের কাজ করে ঠিকাদার উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করেছেন। এই ঠিকাদারকে দিয়ে আর কোথাও যেন কাজ করা না হয়।’  

স্থানীয় বাসিন্দা আবু হানিফ বলেন, ‘এক কিলোমিটার সড়কের ৫০ মিটার রেখেই কাজটি শেষ করা হয়েছে। এখন কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজটি করা হয়েছে। কাজের সময় অনেকে বাধা দিলেও ঠিকাদার শোনেননি। আমরা সড়কটি পুনরায় সংস্কারের দাবি জানাই।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী মিজানুর রহমান বলেন, ‘নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজটি করা হয়নি। কার্পেটিংয়ের কাজ করার পর শক্ত হতে কিছু সময় লাগে। কয়েকজন লোক বিভিন্ন জায়গায় কাঠ দিয়ে নতুন সড়কের কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেছেন। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে কাজটি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু আমি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ায় কাজটি শুরু করতে সময় লেগেছে। সম্প্রতি কাজটি শেষ করেছি। যেসব জায়গায় সমস্যা হয়েছে, সেসব জায়গায় ঠিক করে দেওয়া হবে।’

স্থানীয়দের দাবি, বিটুমিন ছাড়া সড়ক পাকা করায় হাত দিয়ে টান দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ের প্রকৌশলী এসএম হাসান ইবনে মিজান বলেন, ‘নিম্নমাণের কাজের বিষয়টি স্থানীয়রা আমাদের জানাতে পারতেন। কিন্তু তারা ধারালো কিছু দিয়ে কার্পেটিং উঠিয়ে ফেলেছেন। এটি তারা ঠিক করেননি। সড়কের কাজ নিম্নমানের হয়নি। নিম্নমানের অভিযোগ শোনার পরপরই কর্তৃপক্ষ পাথর ও বিটুমিনসহ অন্যান্য জিনিস পাঠিয়েছেন। যেসব জায়গায় সমস্যা আছে, সেসব জায়গায় নতুন করে কার্পেটিংয়ের কাজ করা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে আইআরআইডিপি প্রকল্পে কাজটি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এএম/

সম্পর্কিত

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

আশুলিয়ায় ছেলের হাতে বাবা খুন

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৩

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রয়েছে। পাইকারিতে (ট্রাকসেল) কেজিপ্রতি ১ থেকে ২ টাকা কমেছে দাম। একদিন আগেও বন্দরে প্রতি কেজি পেঁয়াজ প্রকারভেদে ৩৬ থেকে ৩৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। বর্তমানে তা কমে ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এদিকে পেঁয়াজের ক্রেতা সংকটের কারণে বিক্রি না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন আমদানিকারকরা। আবার দাম কমায় খুশি বন্দরে আসা পাইকাররা।

হিলি বন্দরে পেঁয়াজ কিনতে আসা আইয়ুব আলী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, দুর্গাপূজার বন্ধের পর পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ১২ টাকার বেশি কমেছে। এতে আমাদের মতো পাইকারদের সুবিধা হয়েছে। কিন্তু পূজার বন্ধের আগে আমরা যেসব স্থানে সরবরাহ করেছি, সেখানে এখনও পর্যাপ্ত পেঁয়াজ রয়েছে। এ কারণে পার্টিরা পেঁয়াজ এখন কম দামে বিক্রি করায় লোকসানের মুখে পড়েছেন।

পেঁয়াজের দাম কমায় খুশি বন্দরে আসা পাইকাররা

ব্যবসায়ী মিরাজুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম বলেন, হঠাৎ করে বাজারে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে যাওয়ায় দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়ে যায়। একইভাবে ভারতে অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় সরবরাহ কমে দাম বাড়ে। এতে দেশের চাহিদা মেটাতে বাড়তি দামে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। ফলে দেশের বাজারে পেয়াজের দাম বাড়তে থাকে।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পূজার ছয় দিন বন্ধ শেষে ১৭ অক্টোবর থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পুনরায় পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার বন্দর দিয়ে ১৩টি ট্রাকে ৩৫৫ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়। পেঁয়াজ যেহেতু কাঁচামাল, তাই দ্রুত খালাস করে আমদানিকারকদের কাছে সরবরাহ করতে বন্দর কর্তৃপক্ষ সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪১

কৃষকের উৎপাদিত ফসল সংরক্ষণের জন্য আরও সাইলো নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি একনেকে ৩০টি সাইলো নির্মাণের অনুমতি পাওয়া গেছে। ২০৩০ সালের মধ্যে খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত হবে।’

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) দুপু‌রে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ‘দেশের বিভিন্ন স্থানে বসবাসরত দরিদ্র, অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী এবং দুর্যোগপ্রবণ এলাকার জনগোষ্ঠীর নিরাপদ খাদ্য সংরক্ষণের জন্য হাউজহোল্ড সাইলো সরবরাহ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগীদের মধ্যে হাউজহোল্ড সাইলো বিতরণ করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দুই শ’ সাইলো নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। আধুনিক এ সাইলোগুলো হবে পাঁচ হাজার মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতার। কৃষকের ভেজা ধান সংগ্রহ করে এখানে প্রক্রিয়াজাত করা হবে। এতে নায্য মূল্য নিশ্চিত হবে।’

তিনি জানান, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে আগামী ছয় মাসের মধ্যে স্মার্ট কার্ড প্রবর্তন করা হবে। এটি বাস্তবায়ন হলে খাদ্য সহায়তা বিতরণে আরও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত হবে।

জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন– সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমান, মমতাজ বেগম। এছাড়াও খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ মুজিবর রহমান, অতিরিক্ত সচিব খুরশিদ ইকবাল রেজভী, পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান খান জানু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন সুলতানা প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

উল্লেখ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এ প্রকল্পের আওতায় দেশের আট বিভাগের ২৩ জেলার ৫৫টি উপজেলায় সর্বমোট তিন লাখ পারিবারিক সাইলো বিতরণ করা হবে। মানিকগঞ্জ জেলার তিনটি উপজেলায় মোট ১৩ হাজার পারিবারিক সাইলো পর্যায়ক্রমে বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে শিবালয় উপজেলায় পাঁচ হাজার, দৌলতপুর উপজেলায় চার হাজার এবং হরিরামপুরে চার হাজার পারিবারিক সাইলো বিতরণ করা হবে। দুর্যোগকালে প্রতিটি পারিবারিক সাইলাতে ৪০ কেজি ধান অথবা ৫৬ কেজি চাল অথবা ৭০ লিটার পানি সংরক্ষণ করা যাবে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর চাপ, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে হিলিতে প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপি নেতারা

ইউপি নির্বাচনদলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে হিলিতে প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপি নেতারা

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

হামলা-তাণ্ডব ঠেকাতে পারলাম না কেন, প্রশ্ন ইনুর

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

মন্দির পরিদর্শনে কু‌ড়িগ্রা‌মে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার 

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

‘ম্যানেজ’ করে চলছে ইলিশ শিকার, বেচাকেনা জমজমাট

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

র‌্যাব সদস্য পরিচয়ে চাঁদাবাজি করতেন এনামুল 

পীরগঞ্জে হামলা: ফেসবুকে ‘ধর্ম অবমাননা’র পোস্ট দেওয়া ব্যক্তি গ্রেফতার

পীরগঞ্জে হামলা: ফেসবুকে ‘ধর্ম অবমাননা’র পোস্ট দেওয়া ব্যক্তি গ্রেফতার

পূজামণ্ডপে হামলা চেষ্টা: ১০ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ 

পূজামণ্ডপে হামলা চেষ্টা: ১০ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ 

‘ধর্ষণের শিকার’ প্রতিবন্ধী নারীর গর্ভপাত করানোর অভিযোগ

‘ধর্ষণের শিকার’ প্রতিবন্ধী নারীর গর্ভপাত করানোর অভিযোগ

সর্বশেষ

পীরগঞ্জের ঘটনা তদন্তে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কমিটি গঠন 

পীরগঞ্জের ঘটনা তদন্তে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কমিটি গঠন 

সব ধর্মের মানুষ নিজ ধর্ম পালন করবে স্বাধীনভাবে: প্রধানমন্ত্রী

সব ধর্মের মানুষ নিজ ধর্ম পালন করবে স্বাধীনভাবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

গুচ্ছ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘ভিশনারিসে’র যাত্রা শুরু

গুচ্ছ আলোচনা অনুষ্ঠান ‘ভিশনারিসে’র যাত্রা শুরু

ধর্মীয় সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা যুক্তরাষ্ট্রের

ধর্মীয় সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা যুক্তরাষ্ট্রের

© 2021 Bangla Tribune