X
মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

বাংলাদেশ ছাড়ছে মুহিবুল্লাহর পরিবার?

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:১৮

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গাদের শীর্ষস্থানীয় নেতা মো. মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিল তার পরিবারের সদস্যরা। মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ ৯ পরিবারকে অন্যত্র একটি সেন্টারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে ইতোমধ্যে তারা বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে (থার্ড কান্ট্রি) আশ্রয়ের আবেদন করেছেন। জাতিসংঘ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে সম্প্রতি সংশ্লিষ্টদের কাছে এই আবেদন করেছেন তারা। তবে তারা কোন দেশে যাচ্ছেন যা যেতে চান—সে বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ছাড়াও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিমসহ সংগঠনের কিছু সদস্য এবং মুহিবুল্লাহর ঘনিষ্ঠসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বাইরে অন্য কোনও দেশের আশ্রয় নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছেন।

এ বিষয়ে রবিবার (১৭ অক্টোবর) শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন, আমাদের কাছে মুহিবুল্লাহর পরিবার কোনও আবেদন করেনি। তাছাড়া বিষয়টি আমাদের এখতিয়ারের বাইরে। তবে যদি তারা কোনও দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেখানে যেতে চায় সেক্ষেত্রে সেদেশের সঙ্গে সকল প্রক্রিয়া শেষে কাগজপত্রগুলো পররাষ্ট্র দফতর থেকে আমাদের কাছে আসবে। তারপরই বলা সম্ভব, তারা অন্য কোনও দেশে যাচ্ছেন কিনা।

এদিকে মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করার পর থেকে তার ছোট ভাই হাবিব উল্লাহ, স্ত্রী নাসিমা খাতুনসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজনদের অপরিচিত নম্বর থেকে মোবাইলে টেক্সট ও ভয়েজ মেসেজ পাঠিয়ে প্রতিনিয়ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অপরদিকে পুলিশ বলছে, এসব হুমকির ঘটনা কেন এবং কারা ঘটাচ্ছে তা নিয়েও কাজ করছেন মামলাটির তদন্তকারীরা।

মুহিবুল্লাহর পরিবার ও এআরএসপিএইচ সংগঠনে নেতারা জানান, মুহিবুল্লাহ হত্যার পর তারা সবাই ক্যাম্পের খুব ভয়ভীতির মধ্য ছিলেন। এরপর তারা নিরাপত্তার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। এরপরও মুহিবুল্লাহর পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার তাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে অন্য একটি জায়গায় নেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যেই মুহিবুল্লাহ পরিবার, আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) সংগঠনের কিছু সদস্যসহ মোট ১১টি পরিবার বাংলাদেশ-মিয়ানমার ছাড়া ছাড়া অন্য কোনও দেশে বসতি স্থাপন করতে চেয়ে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্র বরাবর আবেদন করেন। আবেদনে তারা যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া বা কানাডা নাম উল্লেখ করেছেন। এসব বিষয়ে আলোচনায় লিড করছেন এআরএসপিএইচ-এর অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ নওখিম। তবে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

তবে মুহিবুল্লাহর ভাগনে এবং আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস (এআরএসপিএইচ)-এর মুখপাত্র রশিদ উল্লাহ বলেন, জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে দুই দফায় ১১টি পরিবার থার্ড কান্ট্রি যেতে চেয়ে ত্রাণ শরণার্থী ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার এবং যুক্তরাষ্ট্রে আবেদন করেছি। তার মধ্য আমরা তিন দেশের কথা উল্লেখ করেছি। এসব দেশের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে। তবে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তাছাড়া ইতোমধ্য আমাদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেখানে আমরা ক্যাম্প থেকে ভালো আছি।

‘থার্ড কান্ট্রি’-তে  যাবার বিষয়টি আমাদের জানা নেই উল্লেখ করে ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাঈমুল হক বলেন, মুহিবুল্লাহর পরিবারসহ কয়েকজনকে ক্যাম্পের ভেতরে একটি সেন্টারে সরিয়ে রাখা হয়েছে। বিষয়টি এমন-না যে, নিরাপত্তাজনিত কারণে তাদের সরিয়ে রাখা হয়েছে। মূলত মুহিবুল্লাহ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল থেকে তাদের সরিয়ে রাখা হয়। যেহেতু ‘ক্রাইম সিন’ এলাকায় লোকজন যাওয়া আসা নিষিদ্ধ। তাদের সেখানে আমরা পূর্ণ-নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি।

/এমআর/

সম্পর্কিত

ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকাফেরত ৭ জনের বাড়িতে পতাকা টানানোর সিদ্ধান্ত

ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকাফেরত ৭ জনের বাড়িতে পতাকা টানানোর সিদ্ধান্ত

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: পুলিশের হাতে ফুটেজ, হিট স্কোয়াডে ছিল ৬

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: পুলিশের হাতে ফুটেজ, হিট স্কোয়াডে ছিল ৬

কেন্দ্রে ঢুকে প্রিসাইডিং ও পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলায় মামলা

কেন্দ্রে ঢুকে প্রিসাইডিং ও পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলায় মামলা

সিনহা হত্যা মামলা: তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা শেষ হয়নি

সিনহা হত্যা মামলা: তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা শেষ হয়নি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকাফেরত ৭ জনের বাড়িতে পতাকা টানানোর সিদ্ধান্ত

ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকাফেরত ৭ জনের বাড়িতে পতাকা টানানোর সিদ্ধান্ত

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: পুলিশের হাতে ফুটেজ, হিট স্কোয়াডে ছিল ৬

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: পুলিশের হাতে ফুটেজ, হিট স্কোয়াডে ছিল ৬

কেন্দ্রে ঢুকে প্রিসাইডিং ও পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলায় মামলা

কেন্দ্রে ঢুকে প্রিসাইডিং ও পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলায় মামলা

সিনহা হত্যা মামলা: তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা শেষ হয়নি

সিনহা হত্যা মামলা: তদন্ত কর্মকর্তাকে জেরা শেষ হয়নি

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার

নৌকার চেয়ারম্যানের ভাগনেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ 

নৌকার চেয়ারম্যানের ভাগনেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ 

চট্টগ্রামে দ্রুতযানের চালককে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৩

চট্টগ্রামে দ্রুতযানের চালককে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৩

হেফাজতের মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদী আর নেই 

হেফাজতের মহাসচিব নুরুল ইসলাম জিহাদী আর নেই 

সর্বশেষ

সাধারণ ক্ষমাপ্রাপ্তদের উদ্দেশে বঙ্গবন্ধু

সাধারণ ক্ষমাপ্রাপ্তদের উদ্দেশে বঙ্গবন্ধু

টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসির পদত্যাগ

টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসির পদত্যাগ

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

কুমিল্লায় কাউন্সিলর হত্যা: দুই আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

সরাসরি ভোটের ইউপিতে আ.লীগের চেয়ে এগিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা

সরাসরি ভোটের ইউপিতে আ.লীগের চেয়ে এগিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা

নিহত শিক্ষার্থী মাইনুদ্দীনের ফেসবুক স্ট্যাটাসে যা ছিল

নিহত শিক্ষার্থী মাইনুদ্দীনের ফেসবুক স্ট্যাটাসে যা ছিল

© 2021 Bangla Tribune