X
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৫

আবাসিক এলাকায় গ্যাস সংযোগ না দিয়ে টাকা ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দিতে সরকারের নিষ্ক্রিয়তাকে কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, রুলে তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

আরেকটি রুলে এ মামলার রিট আবেদনকারীদের গ্যাস সংযোগ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তাও জানাতে বলা হয়েছে। চার সপ্তাহের মধ্যে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের (জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ) জ্যেষ্ঠ সচিব, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান, গ্যাস সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, কর্ণফুলীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাখরাবাদের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে এসব রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। 

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মো. ওজি উল্লাহ। তাকে সহযোগিতা করেন আইনজীবী আজিম উদ্দিন পাটোয়ারী ও আফরোজা সুলতানা। অপরদিকে রাষ্ট্র পক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

এর আগে গত ২৭ এপ্রিল বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের মাসিক সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে ‘আবাসিকে গ্যাস সংযোগ আর চালুর সুযোগ না থাকায় ডিমান্ড নোটের পরিপ্রেক্ষিতে যারা টাকা জমা দিয়েছিল, তাদের ক্রস চেকের মাধ্যমে টাকা ফেরত দেওয়ার কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।’

পরে সরকারের ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে গত ৪ অক্টোবর চট্টগ্রাম গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির গ্রাহক ঐক্যজোটের সভাপতি আলমগীর নূর ও মহাসচিব একেএম অলিউল্লাহ হক ও সাধারণ গ্রাহক মো. নুরুল আলম হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, আইন অনুসারে ডিমান্ড নোটের (চাহিদাপত্র) পরিপ্রেক্ষিতে গ্যাস সংযোগের জন্য টাকা জমা নেওয়া হলে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের গ্যাস সংযোগ দিতে সরকার বাধ্য। কিন্তু টাকা জমা নেওয়ার পর নির্ধারিত সময় পার হয়ে গেলেও তাদের গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়নি। বরং তাদের টাকা ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে, যা আইনসম্মত নয়।

 

/বিআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

বাল্যশিক্ষায় কী শিখছে শিশু?

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত সাড়ে ১৫ হাজার

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

সহকারী জজ পদে নিয়োগ পাওয়া শাহ্ পরানের যোগদান স্থগিত

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যার চেয়ে বিশ্বমান গুরুত্বপূর্ণ’

নির্যাতনের শিকার ব্যক্তিদের তথ্য সহায়তায় ব্র্যাকের নতুন উদ্যোগ

নির্যাতনের শিকার ব্যক্তিদের তথ্য সহায়তায় ব্র্যাকের নতুন উদ্যোগ

পার্বত্য ইস্যু একটি রাজনৈতিক ও জাতীয় সমস্যা: সন্তু লারমা

পার্বত্য ইস্যু একটি রাজনৈতিক ও জাতীয় সমস্যা: সন্তু লারমা

‘সম্প্রীতি আর সহনশীলতার অনন্য দৃষ্টান্ত পার্বত্য শান্তি চুক্তি’

‘সম্প্রীতি আর সহনশীলতার অনন্য দৃষ্টান্ত পার্বত্য শান্তি চুক্তি’

সহকারী জজ পদে শাহ পরানের যোগদান স্থগিত

সহকারী জজ পদে শাহ পরানের যোগদান স্থগিত

মাধ্যমিকে শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে জরুরি নির্দেশনা

মাধ্যমিকে শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে জরুরি নির্দেশনা

ঢাবির শতবর্ষে শত আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

ঢাবির শতবর্ষে শত আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন

সর্বশেষ

মুন্সীগঞ্জে ফ্ল্যাটে বিস্ফোরণের ঘটনায় একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জে ফ্ল্যাটে বিস্ফোরণের ঘটনায় একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

ঐশীর অভিষেক: গত কয়েক রাত ঘুমাতে পারিনি

চার মহাদেশে ‘মিশন এক্সট্রিম’ঐশীর অভিষেক: গত কয়েক রাত ঘুমাতে পারিনি

ঢাকা আসছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব

ঢাকা আসছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব

ভিয়েতনামে বন্যা-ভূমিধসে নিখোঁজ ১৮

ভিয়েতনামে বন্যা-ভূমিধসে নিখোঁজ ১৮

পঞ্চম ধাপে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ইউপিতে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

পঞ্চম ধাপে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ইউপিতে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

© 2021 Bangla Tribune