X
সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্বখ্যাত স্থপতি জাহা হাদিদের প্রয়াণ

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০১৬, ০৮:৪২
image

জাহা হাদিদ ইরাকি বংশোদ্ভূত বিশ্বখ্যাত স্থপতি জাহা হাদিদ মারা গেছেন। এক বিবৃতিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামির একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ওই হাসপাতালে তিনি ব্রঙ্কাইটিসের চিকিত্সা গ্রহণ করছিলেন।
স্থাপত্যকলায় অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে চলতি বছরেই যুক্তরাজ্যের রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব ব্রিটিশ আর্কিটেক্টসের স্বর্ণপদক অর্জন করেন জাহা হাদিদ। নারীদের মধ্যে তিনিই প্রথম এ পদক অর্জন করেন। রয়্যাল ইনস্টিটিউট অব ব্রিটিশ আর্কিটেক্টস কর্তৃপক্ষ তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে।
ফেব্রুয়ারিতে ব্রিটিশ রয়্যাল ইনস্টিটিউটের পদক নেয়ার সময় হাদিদ বলেন, ‘নারী স্থপতিদের প্রথম হিসেবে নিজের অধিকার অর্জন করে নিতে পেরে আমি গর্বিত। বর্তমানে প্রতিষ্ঠিত নারী স্থপতির সংখ্যা আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় অনেক বেশি। তার মানে এই নয়, নারীদের জন্য বিষয়টি অত্যন্ত সহজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখনো নারীদের কোথাও কোথাও প্রচণ্ড বাধার সম্মুখীন হতে হয়। সাম্প্রতিক বছরগুলোয় পরিস্থিতি অনেকখানি বদলেছে এবং এ পরিবর্তন অব্যাহত থাকবে।’
২০০৪ সালে হাদিদ পিৎজকার পুরস্কার লাভ করেন। ওই পুরস্কারটিকে ‘স্থাপত্যকলার নোবেল’ বলে গণ্য করা হয়। শিকাগোভিত্তিক পিৎজকার আর্কিটেকচার প্রাইজ অর্গানাইজেশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, জাহা হাদিদের মৃত্যুতে তারা গভীরভাবে শোকাহত।
জাহা হাদিদের নকশা করা অনেক স্থাপনা হংকং, জার্মানি, আজারবাইজান সহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে। তার সবচেয়ে বিখ্যাত কাজের মধ্যে রয়েছে – স্ট্র্যাটফোর্ডের লন্ডন অ্যাকুয়াটিক সেন্টার। দুটি ৫০ মিটার লম্বা পুল ও একটি ডাইভিং পুল নিয়ে তৈরি সেন্টারটির নকশার বৈশিষ্ট্য হলো, ঢেউ-তরঙ্গের বিমূর্তায়ন। ২০২২ সালে কাতারে অনুষ্ঠেয় ফুটবল বিশ্বকাপের একটি স্টেডিয়ামের নকশাও তার করা।

আজারবাইজানে জাহা হাদিদের অনন্য স্থাপনা ‘হেইদার আলিয়েভ’

জাহা হাদিদের উল্লেখযোগ্য স্থাপত্যকর্মের নিদর্শনগুলোর মধ্যে রয়েছে – লন্ডনের সার্পেন্টাইন স্যাকলার গ্যালারি, গ্লাসগোর মিউজিয়াম অব ট্রান্সপোর্টের রিভারসাইড মিউজিয়াম ও চীনের গুয়াংঝু অপেরা হাউজ। তিনি স্থাপত্যে অবদানের জন্য যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে সম্মানজনক রিবা স্টার্লিং প্রাইজ জিতেছেন দুবার। ২০১০ সালে রোমের ম্যাক্সি মিউজিয়ামের ও ২০১১ সালে ব্রিক্সটনের এভিলিন গ্রেস একাডেমির অনবদ্য নকশা তৈরির জন্য তিনি এ সম্মাননা অর্জন করেন।

জাহা হাদিদ ১৯৫০ সালের ৩১ অক্টোবর বাগদাদে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৭২ সালে লন্ডনের আর্কিটেকচারাল অ্যাসোসিয়েশনে স্থাপত্যে পড়াশোনা শুরুর আগে বৈরুত বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিতে পড়াশোনা করেন। ১৯৭৯ সালে তিনি নিজের প্রতিষ্ঠান জাহা হাদিদ আর্কিটেক্টস প্রতিষ্ঠা করেন। সূত্র: বিবিসি, আলজাজিরা।

/এসএ/

সম্পর্কিত

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ০২:৪৭
image

গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে রাজপথে তীব্র লড়াইয়ের পাশাপাশি গোষ্ঠীটির বিভিন্ন অবস্থানে বোমা হামলা চালিয়েছে আফগানিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী। পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাত শহরে মোতায়েন করা হয়েছে সরকারি বাহিনীর হাজার হাজার কমান্ডো। এছাড়া দক্ষিণাঞ্চলীয় লস্কর গাহে তালেবান প্রতিহত করতে অতিরিক্ত সেনা চেয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। রবিবার এই শহরে সরকারি বাহিনীর বোমা হামলায় রাজপথে মৃতদেহ পড়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাসিন্দারা।

রবিবার পুলিশ জানিয়েছে, আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় কান্দাহার প্রদেশে একটি ট্যাক্সিতে মর্টার শেল আঘাত হানায় পাঁচ বেসামরিক নিহত হয়েছে। কান্দাহার শহরের বাইরে দুপুরের দিকে এই ঘটনা ঘটে। ওই শহর ঘিরে তালেবান ও আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে লড়াই চলছে। হামলার জন্য তালেবানকে দায়ী করেছেন পুলিশ মুখপাত্র জামাল নাসের।

মে মাসের শুরুতে মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরুর পর দেশটিতে তালেবান ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে তুমুল লড়াই শুরু হয়েছে। বিস্তৃত দুর্গম এলাকা এবং কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সীমান্ত ক্রসিং দখলের পর তালেবানরা প্রাদেশিক রাজধানীগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহারে এক সময় তালেবানদের শক্ত অবস্থান ছিলো। রবিবার ভোরে শহরটির বিমানবন্দরে তিনটি রকেট হামলা হয়। এই ঘটনার পর বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইট বন্ধ রাখা হয়েছে। বিমানবন্দরের প্রধান মাসুদ পাশতুন জানান দুইটি রকেট রানওয়ে আঘাত হানে আর সংস্কার কাজ চলছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

সংঘাত এড়াতে সিকিম সীমান্তে চীন-ভারতের হটলাইন

সংঘাত এড়াতে সিকিম সীমান্তে চীন-ভারতের হটলাইন

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

ব্রাজিলের নির্বাচন ব্যবস্থা বদলের দাবি বলসোনারো সমর্থকদের

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ০২:০০
image

ক্ষমতাসীন ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারোর সমর্থকেরা ব্রাজিলের নির্বাচন ব্যবস্থা বদলের দাবিতে মিছিল করেছেন। প্রেসিডেন্টের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রিও ডি জেনিরোতে এই মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলে আসা ইলেক্ট্রনিক নির্বাচনি ব্যবস্থা বদলের ডাক দিয়েছেন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট। কাতারিভত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

ব্রাজিলে আগামী বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। আর এদিকে দুর্নীতি এবং করোনা মহামারি মোকাবিলার অভিযোগে নাকাল প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো। তিনি এখন চাইছেন নির্বাচনি ব্যবস্থা বদল করে প্রত্যেক ভোটারকে ইলেক্ট্রনিক ব্যালট বক্সের প্রিন্টেড রিসিট প্রদান করা হোক। যাতে করে ভোটগুলো আলাদা করে গণনা করা যায়।

ধারণা করা হচ্ছে আগামী নির্বাচনে বলসোনারো কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে যাচ্ছেন। সাম্প্রতিক জনমত জরিপে দেখা গেছে বামপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট লুইস ইনাসিও লুলা ডি সিলভা ২০২২ সালের নির্বাচনে বলসোনারোকে হারিয়ে দেবেন।

রিও ডি জেনিরোতে নির্বাচন ব্যবস্থা বদলের দাবিতে বিক্ষোভে যোগ দেয় প্রায় তিন হাজার বলসোনারো সমর্থক। ৪৬ বছর বয়সী রোনাল্ডো কালভালকান্তে বলেন, ‘আমরা চাইছি প্রকাশ্যে ভোট পুনর্গনণা হোক, আরও বেশি স্বচ্ছতার জন্য কারণ জালিয়াতির আশঙ্কা রয়েছে।’ এছাড়া রাজধানী ব্রাসিলিয়াতেও বিক্ষোভ হয়েছে।

ব্রাজিলের নির্বাচনি ট্রাইব্যুনাল বলছে, বর্তমানে প্রচলিত ভোটিং সিস্টেম সম্পূর্ণ স্বচ্ছ আর এতে কখনও ব্যাপক অনিয়ম হয়নি। তবে কোনও প্রমাণ দেওয়া ছাড়াই বলসোনারোর অভিযোগ, ২০১৮ সালে যে নির্বাচনে তিনে জয় পান সেই নির্বাচনেও জালিয়াতি হয়েছে। তার দাবি এই জালিয়াতির কারণে তিনি প্রথম রাউন্ডে জয় পাননি। তবে এর কোনও প্রমাণ নেই।

/জেজে/

সম্পর্কিত

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ০০:৫৪
image

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেন্নেত দাবি করেছেন, তিনি সুনির্দিষ্টভাবে জানেন ওমান উপকূলে তেলের ট্যাংকারে প্রাণঘাতী হামলার জন্য ইরান দায়ী। তবে এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে তেহরান। ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী হুঁশিয়ার করে বলেছেন ইরানকে কিভাবে বার্তা দিতে হয় তা জানা আছে তাদের। আর ইরান বলছে, নিজেদের স্বার্থ রক্ষায় কোনও দ্বিধায় ভুগবে না তারা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত বৃহস্পতিবার ওমান উপকূলে ইসরায়েলি ব্যবসায়ীর পরিচালিত জাহাজ মারসার স্ট্রিটে হামলার ঘটনায় দুই নাবিক প্রাণ হারিয়েছেন। একজন ব্রিটিশ অন্যজন রোমানিয়ার নাগরিক। ওই ব্যবসায়ীর কোম্পানি জোডিয়াক ম্যানেজমেন্টের টুইটার পোস্টে বলা হয়েছে, এটি সন্দেহভাজন ডাকাতির ঘটনা।

ইসরায়েল ও ইরানের পরিচালিত জাহাজে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। মার্চ থেকে শুরু হওয়া এসব ঘটনাকে পাল্টাপাল্টি হিসেবে দেখা হয়ে থাকে। বিশ্লেষকরা বলছেন, এই অষ্পষ্ট ছায়া যুদ্ধ আর পাল্টাপাল্টি অস্বীকার- ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। কিন্তু মারসার স্ট্রিট জাহাজে প্রাণঘাতী ঘটনা উত্তেজনা আরও বাড়িয়ে তুলেছে।

ওই হামলার জন্য ড্রোন হামলার দিকে ইঙ্গিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেন্নেত রবিবার মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে বলেন, বিদ্যমান গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী ইরান ওই হামলা চালিয়েছে। তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, স্পষ্ট করতে হবে যে ইরান ভয়াবহ ভুল করেছে।

তবে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সায়িদ খতিবজাদেহ সাংবাদিকদের বলেছেন, ইসরায়েলকে অবশ্যই ভিত্তিহীন অভিযোগ থামাতে হবে। তিনি দাবি করেন এই অভিযোগ ভিত্তিহীন।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ০০:১১

ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের প্রধান হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন দলটির বর্তমান নেতা ইসমাইল হানিয়া (৫৮)। এর ফলে আগামী সেশনে অর্থাৎ, পরবর্তী চার বছরও দলটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। হামাসের এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

২০১৭ সাল থেকে হামাস প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইসমাইল হানিয়া। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচিত হলেন তিনি।

গত দুই বছর ধরে মিত্র দেশ তুরস্ক ও কাতারে অবস্থান করে ফিলিস্তিনি আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন তিনি। এর মধ্যেই ২০২১ সালের মে মাসে হামাস নিয়ন্ত্রিত ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় আগ্রাসন চালায় দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। হত্যা করা হয় দুই শতাধিক ফিলিস্তিনিকে। ১১ দিনের ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের পর অবশেষে হামাসের সঙ্গে যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছায় দখলদার বাহিনী। এই যুদ্ধবিরতিকে নিজেদের বিজয় হিসেবে দাবি করে হামাস। ফিলিস্তিনের পতাকা নিয়ে রাজপথে নেমে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে গাজার বাসিন্দারা।

হামাসের প্রতিষ্ঠাতা আহমেদ ইয়াসিনের ডান হাত হিসেবে পরিচিত ছিলেন ইসমাইল হানিয়া। ২০০৪ সালে বিমান হামলা চালিয়ে হুইল চেয়ারে চলাচলকারী শেখ আহমেদ ইয়াসিনকে হত্যা করে দখলদার বাহিনী। ২০০৬ সালে তিনি ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। তবে ইসরায়েল ও পশ্চিমা দেশগুলো হামাসকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করায় সৃষ্ট জটিলতার ফলে নির্বাচিত হলেও দায়িত্ব নিতে ব্যর্থ হন তিনি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

সংঘাত এড়াতে সিকিম সীমান্তে চীন-ভারতের হটলাইন

সংঘাত এড়াতে সিকিম সীমান্তে চীন-ভারতের হটলাইন

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

সংঘাত এড়াতে সিকিম সীমান্তে চীন-ভারতের হটলাইন

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ২৩:১৩

সীমান্তের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় স্থিতাবস্থা ফেরাতে আরও উদ্যোগী হয়েছে চীন ও ভারত। দুই দেশের সেনাদের মধ্যে বিশ্বাস ও সৌহার্দ্য বজায় রাখতে সীমান্তে হটলাইন স্থাপন করা হয়েছে।

উভয় দেশের মধ্যে সামরিক বাহিনী পর্যায়ে বৈঠকের পর স্থির হয়, উত্তর সিকিমের কোংরা লায় ভারতীর বাহিনীর ঘাঁটির সঙ্গে তিব্বতের খাম্বা জংয়ে চিনা গণফৌজের ঘাঁটি নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করবে।

সীমান্ত সংক্রান্ত সমঝোতা নিয়ে শনিবার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে চীনের এলাকা মল্ডোতে সামরিক পর্যায়ের বৈঠকে বসেন উভয় দেশের কর্মকর্তারা। পরে ভারতীয় বাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়, ‘কমান্ডার পর্যায়ে যোগাযোগ বাড়াতে আরও উদ্যোগী হয়েছে দুই দেশের সেনারা। উভয় পক্ষের তরফে সীমান্তে শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে হটলাইন স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বছর পূর্ব লাদাখে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়েছিল চীনা ও ভারতীয় সেনারা। পরে স্থিতাবস্থা ফেরাতে বিরোধপূর্ণ অঞ্চল থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানায় উভয় দেশ। তবে হটস্প্রিং এবং গোগরা ঘাঁটি এলাকায় এখনও বিপুল সেনা মোতায়েন করে রেখেছে দুই দেশ। সেই বিষয়টি নিয়েই আলোচনা চালাতে গিয়েই হটলাইন স্থাপনে রাজি হন উভয় দেশের কর্মকর্তারা। সূত্র: আনন্দবাজার।

/এমপি/

সম্পর্কিত

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন মোদি!

সর্বশেষ

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

তালেবান অগ্রযাত্রা ঠেকাতে আফগান বাহিনীর বোমাবর্ষণ

‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’

‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

ব্রাজিলের নির্বাচন ব্যবস্থা বদলের দাবি বলসোনারো সমর্থকদের

ব্রাজিলের নির্বাচন ব্যবস্থা বদলের দাবি বলসোনারো সমর্থকদের

খুলনায় জুনের চেয়ে জুলাইয়ে তিন গুণ বেশি মৃত্যু

খুলনায় জুনের চেয়ে জুলাইয়ে তিন গুণ বেশি মৃত্যু

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

পর্নোগ্রাফিতে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন, স্বামীর কারাদণ্ড

পর্নোগ্রাফিতে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন, স্বামীর কারাদণ্ড

মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

সিআরবিতে নলকূপ স্থাপন বন্ধে ওয়াসার এমডির কাছে অভিযোগ

সিআরবিতে নলকূপ স্থাপন বন্ধে ওয়াসার এমডির কাছে অভিযোগ

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে নিহত, গুরুতর আহত ১

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে নিহত, গুরুতর আহত ১

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ডিএনসিসি করোনা হাসপাতালের ৫০০ বেডে যুক্ত হচ্ছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন

ডিএনসিসি করোনা হাসপাতালের ৫০০ বেডে যুক্ত হচ্ছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ট্যাংকারে হামলা নিয়ে ইরান-ইসরায়েল উত্তেজনা

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ফের হামাস প্রধান নির্বাচিত হলেন ইসমাইল হানিয়া

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ ৫ আগস্ট

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

এশিয়ার দুই দেশ সফরে যাচ্ছেন কমলা হ্যারিস

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

ওমান উপকূলে হামলার শিকার ইসরায়েলি ধনকুবেরের জাহাজ

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

© 2021 Bangla Tribune