X
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪
৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

খুলনায় হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

খুলনা প্রতিনিধি
১৫ মে ২০২৪, ১৫:৩৭আপডেট : ১৫ মে ২০২৪, ১৫:৪৪

দুটি হত্যা মামলায় দুই জনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। বুধবার (১৫ মে) খুলনার পৃথক দুটি আদালতে বিচার শেষে এই রায় দেওয়া হয়।

একটি মামলায় যশোরের অভয়নগরে চাঞ্চল্যকর কলেজছাত্র নুরুজ্জামান বাবু হত্যা মামলায় পলাতক আসামি মো. রাজ্জাক পাটোয়ারীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টায় খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মতিয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী মো. মাজাহারুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ হচ্ছে, ২০২০ সালের ১ জুন রাতে কলেজছাত্র নুরুজ্জামান বাবুকে তার বাড়ির পাশের আমবাগানে ডেকে অচেতন করে আসামিরা। এরপর চোখ বেঁধে তাকে অভয়নগরের পুড়াখালী গ্রামের সরকারি বাওড়ের পাশে নিয়ে দড়ি দিয়ে গলা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে তার মরদেহ বাওড়ের কচুরিপানার নিচে লুকিয়ে রাখে। ঘটনার পরের দিন ২ জুন বাবুর মোবাইল ফোন থেকে তার বাবাকে কল করে ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা ২ জুন অভয়নগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। এরপর পুলিশ রাজ্জাক পাটোয়ারীকে আটক করে। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক ৪ জুন বাবুর মরদেহ বাওড়ের কচুরিপানা থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে ৪ জুন অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করেন। সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে বুধবার খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মতিয়ার রহমান আসামি রাজ্জাক পাটোয়ারীকে এ দণ্ড দেন।

এদিকে, আরেক মামলায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে নুরুন্নবী শেখ নামে এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় খুলনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এর বিচারক আব্দুস সালাম খান এ আদেশ দেন।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ফরিদ আহমেদ জানান, যৌতুকের দাবিতে ২০১১ সালে ২৫ আগস্ট রাতে খুলনা মহানগরীর বেলায়েত হোসেন সড়কের বাসভবনে আসামি নুরুন্নবী তার স্ত্রী জোহরা খাতুনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এরপর মরদেহ এবং তার শিশুপুত্রকে ঘরের মধ্যে তালাবন্ধ করে রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর ভাই সাদ্দাম হোসেন বাদী হয়ে ২৭ আগস্ট খুলনা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ১৪ জন সাক্ষী সাক্ষ্য দিয়েছেন।

/এমএএ/
সম্পর্কিত
ন্যায়বিচার পাওয়া প্রত্যেকের মৌলিক অধিকার: প্রধান বিচারপতি
‘রহিম ডাকাত’ থেকে জঙ্গি সংগঠনের প্রধান অস্ত্র সরবরাহকারী
কচুরিপানার মধ্যে ভাসছিল বস্তাবন্দি লাশ: ২১ বছর পর ৩ জনের যাবজ্জীবন
সর্বশেষ খবর
হারপিক ও সাজেদা ফাউন্ডেশনের মধ্যে সমঝোতা চুক্তি
হারপিক ও সাজেদা ফাউন্ডেশনের মধ্যে সমঝোতা চুক্তি
শেষ দিনে সতীর্থদের আবেগপ্রবণ হতে বারণ আর্সেনাল অধিনায়কের
শেষ দিনে সতীর্থদের আবেগপ্রবণ হতে বারণ আর্সেনাল অধিনায়কের
আফগানিস্তানে অস্বাভাবিক বৃষ্টিপাত, বন্যায় নিহত ৬৮
আফগানিস্তানে অস্বাভাবিক বৃষ্টিপাত, বন্যায় নিহত ৬৮
অনুরাগ কাশ্যপের সিনেমায় ঋদ্ধি!
অনুরাগ কাশ্যপের সিনেমায় ঋদ্ধি!
সর্বাধিক পঠিত
যাত্রীর জামাকাপড় পুড়িয়ে পাওয়া গেলো সাড়ে চার কোটি টাকার স্বর্ণ
যাত্রীর জামাকাপড় পুড়িয়ে পাওয়া গেলো সাড়ে চার কোটি টাকার স্বর্ণ
৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি তৃতীয় শ্রেণির সরকারি কর্মচারীদের
৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি তৃতীয় শ্রেণির সরকারি কর্মচারীদের
সুপ্রিম কোর্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের স্থান পরিদর্শন প্রধান বিচারপতির
সুপ্রিম কোর্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের স্থান পরিদর্শন প্রধান বিচারপতির
আমেরিকা যাচ্ছেন ৩০ ব্যাংকের এমডি
আমেরিকা যাচ্ছেন ৩০ ব্যাংকের এমডি
কোথায় কীভাবে কেএনএফ সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেয়, জানালেন নারী শাখার প্রধান
কোথায় কীভাবে কেএনএফ সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেয়, জানালেন নারী শাখার প্রধান