এমপি মান্নানের মৃত্যুতে বগুড়া আ. লীগে ৩ দিনের শোক

Send
বগুড়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৮:৪৭, জানুয়ারি ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:০৬, জানুয়ারি ১৯, ২০২০

আবদুল মান্নানবগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের মৃত্যুতে জেলা আওয়ামী লীগ তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছে। এসময় কালো ব্যাজ ধারণ, কোরআন খানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। চার দফা জানাজা শেষে আগামীকার সোমবার (২০ জানুয়ারি) বাদ আসর গ্রামের বাড়ি সারিয়াকান্দিতে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মরহুমের শ্যালক মিনহাদুজ্জামান লিটন জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ৮টার দিকে তিনি মারা যান। দুপুরে তার মরদেহ বারডেম হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়। রবিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মেয়ে দেশে ফিরবেন। তার স্ত্রী শাহাদারা মান্নান সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য এবং ছেলে সাখাওয়াত হোসেন সজল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক। সোমবার সকাল ৮টায় রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সস্টিটিউট প্রাঙ্গণে প্রথম ও বেলা ১০টায় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর কফিন হেলিকপ্টরে করে নির্বাচনি এলাকার বগুড়ার সোনাতলায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে আনা হবে। সেখানে তৃতীয় জানাজার পর সারিয়াকান্দি ডিগ্রি কলেজ মাঠে নেওয়া হবে। চতুর্থ জানাজা শেষে পারিবারিক করস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

তিন দিনের শোক ঘোষণা: এমপি মান্নানের মৃত্যুতে জেলা আওয়ামী লীগ শনিবার থেকে তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছে। দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন, সাংগঠনিক পতাকা অর্ধনমিত, কালো ব্যাজ ধারন, কোরআন খতম এবং সুবিধামতো সময়ে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা করা হবে। স্থানীয় নেতারা বলেন, আমরা একজন বড় মাপের নেতা হারালাম। তার অভাব কখনও পূরণ হ্বার নয়।

আবদুল মান্নানের শিক্ষা ও কর্মময় জীবন: তিনি ১৯৫৩ সালের ১৯ ডিসেম্বর বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার হিন্দুকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবার নাম মরহুম জালাল উদ্দিন সরদার, মা মরহুমা মুনজিলা বেগম। সাত ভাইবোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। আব্দুল মান্নানের শিক্ষা জীবন শুরু হয় সারিয়াকান্দির ময়ূরের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ১৯৬৯ সালে সারিয়াকান্দি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি (এগ্রি) অনার্স ও ১৯৭৭ সালে এমএসসি (এগ্রি কেমিস্ট্রি) এবং ১৯৭৯ সালে এমএমসি (এগ্রি কেমিস্ট্রি) উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন। শিক্ষা জীবন শেষে সাইন্ট্রিফিক অফিসার হিসেবে পাট গবেষণা ইনস্টিটিউটে চাকরি শুরু করেন। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদালয়ে অধ্যায়নকালে তিনি ছাত্র রাজনীতিতে যোগদান করেন এবং বাকসুর ভিপি নির্বাচিত হন। ১৯৮৩-১৯৮৫ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯১ সালে তিনি আওয়ামী লীগের সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং ১৯৯৬ সালে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হন। ২০০২ সালের ২৬ ডিসেম্বর আবদুল মান্নান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৯৮ সাল থেকে ২০০২ পর্যন্ত দুই মেয়াদে বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটের মহাসচিব ছিলেন।

আবদুল মান্নান ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-১ (সোনাতলা-সারিয়াকান্দি) আসনে নির্বাচিত হন। পরে তিনি কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। এছাড়া ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদে দ্বিতীয় এবং ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তৃতীয় বারের মতো সংসদ সদস্য হন। নির্বাচনি এলাকায় যমুনা ও বাঙালি নদী ভাঙনরোধ, সড়ক এবং সেতু নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

 

 

/এসটি/

লাইভ

টপ