শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় আনসার বাহিনীর অবদান প্রশংসনীয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Send
গাজীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:৩৭, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৪, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০

গাজীপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালশান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদানের জন্য আনসার বাহিনীর প্রশংসা করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন,‘বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের সবচেয়ে বড় সুশৃঙ্খল বাহিনী। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এ বাহিনীর সদস্যরা কর্মদক্ষতা ও সফলতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন। তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃত এ বাহিনী দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে প্রশংসনীয় অবদান রাখছে। সরকারি-বেসরকারী বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান ও স্থাপনা এবং শিল্প-কারখানার আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা রক্ষার লক্ষ্যে এ বাহিনীতে সাধারণ আনসার গঠন করা হয়।’

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর আনসার অ্যাকাডেমিতে সাধারণ আনসার মৌলিক প্রশিক্ষণ (পুরুষ) সমাপনী কুচকাওয়াজ ও নবগঠিত আনসার গার্ড ব্যাটালিয়নের ফ্ল্যাগ রেইজিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আনসার গার্ড ব্যাটালিন নতুন করে গঠনের উদ্দেশ্য হলো, দেশের ভিআইপিরা যাতে তাদের প্রটেকশনে নিরাপদে থাকেন। এছাড়া বিদেশিরাও যেন নিরাপদে থাকেন। কূটনীতিবিদ এবং কূটনৈতিক জোন যেন প্রোটেকটেড থাকে। আমরা মনে করি, আনসার একটি চৌকস বাহিনী। সব সময় আনসার বাহিনী ভালো কাজ করে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এ ব্যাটালিয়নটি গঠন করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীতে বর্তমানে একটি গার্ড ব্যাটালিয়ন ও দুটি মহিলা আনসার ব্যাটালিয়নসহ মোট ৪২টি ব্যাটালিয়ন রয়েছে। পার্বত্যাঞ্চলের পাশাপাশি দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলসহ সারাদেশের সমতল এলাকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, সন্ত্রাস দমন, জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ, মৌলবাদ এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে ব্যাটালিন আনসার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। আপনাদের অংশগ্রহণ ও সহযোগীতায় আইনশৃঙ্খলা, যোগাযোগ ব্যবস্থা, অবকাঠামো উন্নয়নসহ অর্থনীতির প্রতিটি ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য সাফল্য আসছে। এছাড়া দুটি মহিলা ব্যাটালিয়ন আনসার সচিবালয়, র‌্যাবসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ সরকারি দফতরে প্রেষণে কর্মরত থেকে নিরাপত্তা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল আরও বলেন, ‘বর্তমানে দেশের বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর, ইপিজেডসহ গুরুত্বপূর্ণ ৪ হাজার ২১৪টি প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় প্রায় ৫০ হাজার জন অঙ্গীভূত আনসার সদস্য নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ সব নির্বাচন, বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব, ঈদ, পূজা-পার্বণ, বিশ্ব ইজতেমা, বর্ষবরণ, শপিং মল, বাণিজ্য মেলা, বই মেলা, রেলস্টেশন, ট্রাফিক কন্ট্রোলসহ প্রভৃতি ক্ষেত্রে সাধারণ আনসার সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বিভিন্ন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করে দেশ আজ উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন করেছে। বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নে বদ্ধ পরিকর। এ সরকারের কর্মতৎপরতায় অর্থনীতি, রাজনীতি, শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অবকাঠামোসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী সরকারের এই সাফল্যের বিরাট একটি অংশ।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ‘বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের (আনসার ও সীমান্ত) জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব শায়েদ আলী, বাহিনীর অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম আসিফ ইকবাল, উপ-মহাপরিচালক (প্রশাসন) কর্নেল কামাল মামুন, উপ-মহাপরিচালক ও কমান্ড্যান্ট (অ্যাকাডেমি) নিমাই কুমার দাস, উপ-মহাপরিচালক (অপারেশন) মাহবুব উল ইসলাম,গাজীপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহারসহ বাহিনীর সদর দফতর ও অ্যাকাডেমির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।



/আইএ/

লাইভ

টপ