ডিসি’র নাম করে চাঁদা দাবি পুলিশ সদস্যের!

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৯:২৪, মার্চ ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৬, মার্চ ৩১, ২০২০

সিসিটিভিতে ধরা পড়া পুলিশ সদস্যকক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের (ডিসি) নাম করে টেকনাফের চারটি প্যাথলজি সেন্টার থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। টেকনাফ থানার পুলিশ সদস্য অরুণ কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের নাম করে ওই চাঁদাবাজি করেছেন বলে জানিয়েছেন প্যাথলজির পরিচালকরা।
তাদের অভিযোগ, অরুণ নামে একজন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের নাম করে মেরন সিটি হাসপাতাল, নাফ ভিউ প্যাথলজি সেন্টার, কেয়ার ল্যাব লিমিটেডসহ টেকনাফের চারটি প্যাথলজির পরিচালকের কাছে চাঁদা দাবি করেন। বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় তারা বিষয়টি টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামকে জানান। এরপর ওইসব প্যাথলজির সিসিটিভি ফুটেজ চেক করে দেখা যায় অরুণ জেলা প্রশাসনের কেউ না। তিনি টেকনাফ থানা পুলিশের সদস্য।
এ সম্পর্কে জানতে পুলিশ সদস্য অরুণের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
পরে টেকনাফ থানা পুলিশের ওসি প্রদীপ কুমার দাসের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
এ বিষয়ে কক্সবাজারের ডিসি কামাল হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি আমি জেনেছি। এটি খুবই দুঃখজনক ঘটনা। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমি টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি।’
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নাম করে টেকনাফের চারটি প্যাথলজি সেন্টারে চাঁদা দাবি করা হয়েছে এমন একটি অভিযোগ আমার কাছে আসার পর বিষয়টি তাকে জানাই। এরপর তিনি আমাকে বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখতে বলেছেন। ওইসব প্যাথলজিতে গিয়ে আমরা সিসিটিভি ফুটেজ দেখেছি। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি।’

/এসটি/এমএমজে/

লাইভ

টপ