প্রথমবারের মতো রাবিতে শুরু হচ্ছে অনলাইন ক্লাস

Send
রাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:২৪, জুলাই ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৪, জুলাই ০৮, ২০২০

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) থেকে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া শুরু হচ্ছে। বুধবার (০৮ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগের চেয়ারম্যানদের সঙ্গে উপচার্যের অনুষ্ঠিত অনলাইন বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। তবে অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার প্রস্তুতি নেই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিভাগের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক বাবুল ইসলাম বলেন, ‘ক্লাস ভিডিও ভিত্তিক হবে। কখন, কোন মাধ্যমে এবং দিনে কয়টা ক্লাস নেওয়া হবে, তা বিভাগের সভাপতি ও শিক্ষকরা সিদ্ধান্ত নেবেন। যাদের প্রস্তুতি আছে, তারা কাল থেকে শুরু করবেন। অন্যরাও দ্রুত প্রস্তুতি নিয়ে ক্লাস শুরু করবেন।

অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার প্রস্তুতির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি বিভাগের সভাপতি ও অনুষদের ডিনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, হাতে গোনা দুই-একটি বিভাগ ছাড়া অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার সেরকম প্রস্তুতি কোনও বিভাগেরই নেই। বৃহস্পতিবারের ক্লাস কেবল আনুষ্ঠানিকতা। অল্প সময়ের মধ্যে সব বিভাগ প্রস্তুতি নিয়ে ক্লাস শুরু করবে। তবে এই ক্লাস কার্যক্রমকে ক্লাস অ্যাটেডেন্স হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হবে না বলে জানান তারা। এছাড়া অনলাইনে কোনও পরীক্ষাও নেওয়া হবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা অনুষদের ডিন অধ্যাপক হুমায়ূন কবীর বলেন, প্রস্তুতি আমাদের সেইভাবে নেই। আগামীকাল থেকে ক্লাস নেওয়ার বিষয়ে প্রশাসন থেকে আমি এখনও চিঠি পাইনি। চিঠি পেলে সব প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ক্লাস শুরু করতে দুই এক দিন বিলম্ব হলেও হতে পারে।

চিত্রকলা, প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুশান্ত কুমার অধিকারী বলেন, আামদের সেভাবে প্রস্তুতি নাই। তবে দুই-একজন শিক্ষক চাইলে অনলাইনে ক্লাস নিতে পারেন।

অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার জন্য সে অর্থে কোনও বিভাগেরই প্রস্তুতি নেই জানিয়ে বিশ্ববিদ্যায়ের গণ যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান আল মামুন বলেন, আগামীকাল থেকে ইনফরমালি ক্লাস শুরু হবে। এখানে বাধ্যবাধকতা নেই। যে পারবে নেবে, না পারলে নেবে না। তবে অল্প সময়ের মধ্যে প্রস্তুতি নিয়ে ফরমাল ক্লাস শুরু হবে ।

অনলাইন ক্লাসে সবার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা সম্ভব হবে কিনা, এমন প্রশ্নে অধ্যাপক আ. আল মামুন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও জানে দেশের সব জায়গা থেকে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন না। কারণ সব জায়গায় ইন্টারনেট স্পিড ও সুযোগ-সুবিধা এক রকম না। ফলে অনেক শিক্ষার্থীই অনলাইন ক্লাসে যুক্ত হতে পারবেন না। এই ক্লাসগুলো থেকে অ্যাটেডেন্সও কাউন্ট করা হবে না। ক্লাসগুলোর উদ্দেশ্য হচ্ছে ছাত্রদের পড়ালেখার মধ্যে রাখা। অনলাইনে কোনও পরীক্ষাও নেওয়া হবে না বলে জানান এ শিক্ষক।

প্রসঙ্গত, ৬ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে উপাচার্য ৯ জুলাই থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তারাই ধারাবাহিকতায় ৭ জুলাই অনুষদের ডিন ও ইনস্টিটিউটের পরিচালকদের সঙ্গে বৈঠক করেন। সর্বশেষ আজ বিভাগের সভাপতিদের সঙ্গে বৈঠক করে কাল থেকে ক্লাস নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

/টিটি/

লাইভ

টপ